মাদারীপুর জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
মাদারিপুর
জেলা
বাংলাদেশে মাদারীপুর জেলার অবস্থান
বাংলাদেশে মাদারীপুর জেলার অবস্থান
মাদারিপুর বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
মাদারিপুর
মাদারিপুর
বাংলাদেশে মাদারীপুর জেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৩°১০′১২″ উত্তর ৯০°৬′০″ পূর্ব / ২৩.১৭০০০° উত্তর ৯০.১০০০০° পূর্ব / 23.17000; 90.10000স্থানাঙ্ক: ২৩°১০′১২″ উত্তর ৯০°৬′০″ পূর্ব / ২৩.১৭০০০° উত্তর ৯০.১০০০০° পূর্ব / 23.17000; 90.10000 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ  বাংলাদেশ
বিভাগ ঢাকা বিভাগ
আয়তন
 • মোট ১১৪৪.৯৬ কিমি (৪৪২.০৭ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • মোট ১২,১২,১৯৮
 • ঘনত্ব ১১০০/কিমি (২৭০০/বর্গমাইল)
স্বাক্ষরতার হার
 • মোট ৪৮%
সময় অঞ্চল বিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড ৭৯০০ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
ওয়েবসাইট অফিসিয়াল ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

মাদারিপুর জেলা বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চলের ঢাকা বিভাগের একটি প্রশাসনিক অঞ্চল। জেলার আয়তন ১,১৪৪.৯৬ বর্গকিলোমিটার।

ভৌগোলিক সীমানা[সম্পাদনা]

২৩‑০০ উত্তর অক্ষাংশ থেকে ২০-৩০ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৯-৫৬ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ থেকে ৯০-২১ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ পর্যন্ত এই জেলার বিস্তার। জেলার উত্তরে ফরিদপুর জেলামুন্সিগঞ্জ জেলা, পূর্বে শরিয়তপুর জেলা, পশ্চিমে ফরিদপুর জেলাগোপালগঞ্জ জেলা, এবং দক্ষিণে গোপালগঞ্জ জেলাবরিশাল জেলা

নামকরনের ইতিহাস[সম্পাদনা]

পঞ্চদশ শতাব্দীর সুফি সাধক হযরত বদিউদ্দীন জিন্দা শাহ মাদার (রঃ) এর নাম অনুসারে মাদারিপুর জেলার নামকরণ করা হয়।

প্রশাসনিক এলাকাসমূহ[সম্পাদনা]

মাদারিপুর জেলায় ৩ টি সংসদীয় আসন , ৪ টি উপজেলা , ৫ টি থানা , ৪ টি পৌরসভা, ৫৯ টি ইউনিয়ন পরিষদ , ১০৬২ টি গ্রাম, ৪৭৯ টি মৌজা রয়েছে ।

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

মোট জনসংখ্যাঃ ১২,১২,১৯৮ জন (আদমশুমারী ও গৃহায়ন - ২০১১)
  • পুরুষঃ ৫০.২৯%
  • মহিলাঃ ৪৯.৭১%

প্রধান শস্য[সম্পাদনা]

রপ্তানী পণ্য
  • পাট ও পাটজাত দ্রব্য

জলবায়ু[সম্পাদনা]

উষ্ণ ও আর্দ্র ৷

বার্ষিক গড় বৃষ্টিপাতঃ ২১০৫ মিলিমিটার ৷

সর্বোচ্চ গড় তাপমাত্রা ৩৫·৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২·৬ ডিগ্রী সেলসিয়াস ৷

আবহাওয়া - স্বাস্থ্যকর ৷

নদীসমূহ[সম্পাদনা]

মাদারিপুর জেলায় প্রায় ১০টি নদী আছে। সেগুলো হচ্ছে পদ্মা, আড়িয়াল খাঁ নদী, কুমার নদী, বিষারকান্দি নদী, টর্কি নদী, পালাদি নদী, মাদারিপুর নদী, বিলরুট চ্যানেল নদী এবং ময়নাকাটা নদী।[২]

কৃতী ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

  • শাহ মাদার (১৩-১৪শতাব্দী) - প্রখ্যাত সূফী সাধক;
  • কেদার রায় (১৫ শতাব্দী) - বার ভুঁইয়ার অন্যতম ও বিক্রমপুর পরগনার জমিদার;
  • আলাওল (১৫৯৭-১৬৭৩) - মহাকবি;
  • রাজা রাম রায়চৌধুরী (১৬ শতাব্দী) - রাজৈরের খালিয়া অঞ্চলের জমিদার;
  • হাজী শরীয়তুল্লাহ (১৭৮০-১৮৪০) - ধর্মীয় সংস্কারক ও ফরায়েজী আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা;
  • মৌলোবী আব্দুল জব্বার ফরিদপুরী (১৮০১-১৮৭৬) - বিশিষ্ট উর্দু কবি ও লেখক;
  • পীর মুহসীনউদ্দীন দুদু মিয়া (১৮১৯-১৮৬২) - ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন ও ফরায়েজী আন্দোলনের অন্যতম প্রধান নেতা;
  • অম্বিকাচরণ মজুমদার (১৮৫১ -১৯২২) - বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ ও সমাজসেবী; ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস সভাপতি (১৯১৬);
  • সূফী আমির শাহ (মৃত্যুঃ ১৯৪৪) - প্রখ্যাত আধ্যাত্মিক সাধক;
  • পুলিন বিহারী দাস (১৮৭৭-১৯৪৯) - ব্রিটিশ বিরোধী সন্ত্রাসবাদী আন্দোলনের ঢাকা অনুশীলন সমিতির প্রধান (১৯০৭-১০);
  • কিরণ চাঁদ দরবেশ (১৮৭৮-১৯৪৬) - স্বদেশী যুগের রাজনৈতিক কর্মী, কবি, গীতিকার ও সাহিত্য সাধক;
  • আবা খালেদ রশীদ উদ্দিন (১৮৮৪-১৯৫৬) - বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ও রাজনীতিবিদ;
  • পূর্ণচন্দ্র দাস (১ জুন ১৮৯৯ - ৪ মে ১৯৫৬) - ভারতীয় উপমহাদেশের ব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনের একজন ব্যক্তিত্ব ও অগ্নিযুগের বিপ্লবী;
  • চিত্তপ্রিয় রায়চৌধুরী (১৮৯৪-১৯১৫খ্রি.); মাদারিপুর সমিতি ও যুগান্তর বিপ্লবী, বালেশ্বর রনাঙ্গনে সম্মুখ যুদ্ধে শহীদ ৷
  • নীরেন্দ্রনাথ দাশগুপ্ত (১৮৯৫-১৯১৫খ্রি.); মাদারিপুর সমিতি ও যুগান্তর বিপ্লবী, বালেশ্বর কারাগারে ফাঁসির মঞ্চে শহীদ ৷
  • মনোরঞ্জন সেনগুপ্ত (১৮৯৮-১৯১৫খ্রি.); মাদারিপুর সমিতি ও যুগান্তর বিপ্লবী, বালেশ্বর কারাগারে ফাঁসির মঞ্চে শহীদ ৷
  • স্বামী প্রণবানন্দ মহারাজ (১৮৯৬-১৯৪১খ্রি.); স্বদেশী যুগের বিশিষ্ট বিপ্লবী ও বীর সাধক ৷
  • খান বাহাদুর আব্দুর রহমান খাঁ (১৮৯০-১৯৬৪খ্রি.); শিক্ষাবিদ ও সাহিত্যিক; যুক্ত বঙ্গের এডিপিআই(১৯৩৯-৪৫), জগন্নাথ কলেজ এর প্রিন্সিপাল(১৯৪৮-৫৬) ও রেক্টর(১৯৫৬) ৷
  • আলিমুদ্দিন আহম্মদ, খান সাহেব (১৮৯০ -১৯৫৭খ্রি.); মোক্তার ও বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ ৷
  • ডাঃ জোহরা কাজী (১৯১২-২০০৭খ্রি.) ভারতীয় উপমহাদেশ এর প্রথম মহিলা চিকিৎসক ৷
  • মুন্সী মোজাহারুল হক (১৮৯৮-১৯৭৯খ্রি.); রাজনীতিবিদ ও মাদারিপুরের প্রথম লঞ্চ ব্যাবসায়ী ৷
  • ইস্কান্দার আলী খান (১৯০১-৮৩খ্রি.); বিশিষ্ট আইনজীবি ও রাজনীতিবিদ; এমএলএ ৷
  • ফণীভূষণ মজুমদার (১৯০১ -৮১খ্রি.); এমএলএ, এমপিএ, মুজিবনগর সরকারের উপদেষ্টা কমিটির সদস্য, মন্ত্রী ৷
  • দ্বারকানাথ বারুরী (১৯০৬ -৮৫খ্রি.); যুক্ত বঙ্গের ও পূর্ব পাকিস্তান মন্ত্রী, পাকিস্তান কন্সটিটিউশন কমিশনের সদস্য(১৯৬০) ৷
  • ডাঃ গোলাম মওলা (১৯২০ -৬৭খ্রি.); ভাষা সৈনিক, এমএলএ, এমএনএ একুশে পদক(২০১০) প্রাপ্ত; বিশিষ্ট চিকিৎসক ৷
  • ড. ফজলুর রহমান খান (১৯২৯-৮২খ্রি.); বিশ্ববিখ্যাত স্থপতি; আমেরিকান ইঞ্জিনিয়ারিং রেকর্ডের "ম্যান অব দ্যা ইয়ার"(১৯৬৬,৬৯,৭১,৭২), মরণোত্তর স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার(১৯৯৯) প্রাপ্ত ৷
  • পদ্মা দেবী (১৯১৭ -৮৩খ্রি.); ভারতীয় বাঙালি চলচ্চিত্রাভিনেত্রী ৷
  • সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় (১৯৩৪ -খ্রি.); প্রখ্যাত কবি, ঔপন্যাসিক ও সাংবাদিক ৷
  • প্রফেসর গোলাম ওয়াহেদ চৌধুরী; রাষ্ট্রবিজ্ঞান গবেষক ও সমাজসেবী; পাকিস্তান কন্সটিটিউশন কমিশনের অনারারি উপদেষ্টা(১৯৬১) ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী(প্রাক্তন) ৷
  • রশীদ তালুকদার, (২৪শে অক্টোবর, ১৯৩৯ - ২৫শে অক্টোবর, ২০১১) বিজ্ঞান জাদুঘর (১৯৭৮) ও বিপিএস (১৯৮২) স্বর্ণপদক প্রাপ্ত ফটো সাংবাদিক।
  • আভা আলম (১৯৪৭-৭৬খ্রি.); সঙ্গীত শিল্পী; মরনোত্তর একুশে পদক(১৯৭৮) স্বর্ণপদক প্রাপ্ত ৷
  • ড. মুহাম্মদ আব্দুর রশীদ (১৯৩৮-৬৯খ্রি.); ভূ-তত্ত্ববিদ ও গবেষক ৷
  • রাজিয়া মাহবুব; বিশিষ্ট সাহিত্যিক ৷
  • স্টুয়ার্ড মুজিবর রহমান; আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার তিন(৩) নম্বর আসামী ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ৷
  • মৌলভী আচমত আলী খান (১৯০৭-৯৩খ্রি.) - এমপিএ, এমপি; বঙ্গীয় গভর্ণর মেডেল(১৯৪৩) প্রাপ্ত; মরণোত্তর স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার(২০১৬) প্রাপ্ত ৷
  • প্রফেসর ড. জিল্লুর রহমান খান - রাষ্ট্রবিজ্ঞান গবেষক ও লেখক ৷
  • আব্দুল মান্নান শিকদার - ভাষা সৈনিক; প্রাক্তন এমপি ও প্রতিমন্ত্রী ৷
  • গোলাম মোস্তফা আখন্দ (রতন)- (১৯২৬-)ভাষা সৈনিক, বিট্রিশ বিরোধী আন্দোলনের সক্রিয় কর্মী।
  • বাশার মাহমুদ - কবি, সাহিত্যিক, নাট্যকার, সাংবাদিক, গবেষক।
  • সৈয়দ আবুল হোসেন - রাজনীতিবিদ;
  • শাহজাহান খান - রাজনীতিবিদ;
  • আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম - রাজনীতিবিদ;
  • বাসুদেব দাশগুপ্ত - হাংরি আন্দোলন এর বিশিষ্ট ঔপন্যাসিক;
  • মোহাম্মদ নিজামউদ্দিন আহমেদ (১৯৬০- ) - এডমিরাল, বাংলাদেশ নৌবাহিনীর বর্তমান প্রধান (২০১৫- )।
  • অধ্যাপক কবি আবুল হোসেন মিয়া (১৯১৮-১৯৯৮ খ্রিঃ) কবি, শিশু সাহিত্যিক, শিক্ষক। অধ্যাপক এবং উপ-বিভাগীয় প্রধান, বাংলা বিভাগ, নটরডেম কলেজ (১৯৭৮)। অবনী স্মৃতি পদক, কোলকাতা (১৯৩৮), শিশুসাথী পুরুস্কার (১৯৪০), যশোর সাহিত্য সংসদ কতৃক "কবি শেখর" উপাধি লাভ (১৯৫২), গৌরবঙ্গ সাহিত্য পরিষদ, কোলকাতা কতৃক "কবি শেখর" উপাধি লাভ (১৯৫৪)। মরনোত্তর মাদারীপুর জেলা শিশু একাডেমি কতৃক সম্মাননা (২০১৬)।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ[সম্পাদনা]

মাদারিপুর জেলায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখা সব মিলিয়ে ২১৩টি। শিক্ষার হার - ৪৮ %

  • বিশ্ববিদ্যালয়: 0 টি
  • কলেজ : ১৪
  • মাধ্যমিক বিদ্যালয়: ১৩৮
  • মাদ্রাসা : ৬১

উপজেলাসমূহ[সম্পাদনা]

  1. মাদারিপুর সদর
  2. শিবচর
  3. কালকিনি
  4. রাজৈর
  5. ডাসার(থানা)

ইতিহাস[সম্পাদনা]

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

চিত্তাকর্ষক স্থান[সম্পাদনা]

  • পর্বতের বাগান- মস্তফাপুর,
  • প্রণবানন্দের মন্দির- বাজিতপুর,
  • গণেশ পাগলের মন্দির- কদমবাড়ী,
  • রাজারাম মন্দির- খালিয়া,
  • সূফী আমীর শাহ (রঃ) এর মাজার,
  • সেনাপতির দিঘি,
  • ঝাউদি গিড়ি,
  • সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের বাড়ি- মাইজপাড়া,
  • নারায়ণ মন্দির- পানিছত্র,
  • মাদারিপুর শকুনী দিঘি,
  • শাহ মাদার (রঃ) দরগাহ শরীফ ৷

আনুষঙ্গিক নিবন্ধ[সম্পাদনা]

বাড়তি পঠন[সম্পাদনা]

  1. আনন্দনাথ রায়ের ফরিদপুরের ইতিহাস (সংগ্রহ ও সম্পাদনা: ড. তপন বাগচী), গতিধারা প্রকাশনী, ঢাকা, ২০০৭।
  2. আনম আবদুস সোবহান, বৃহত্তর ফরিদপুরের ইতিহাস, সূর্যমুখী প্রকাশনী, ফরিদপুর, ১৯৯৬।
  3. মু. মতিয়ার রহমান, অপ্রভ্রষ্ট অপভ্রংশ শামান্দার : মাদারীপুর জেলার ইতিকথা, গতিধারা প্রকাশনী, ঢাকা, ২০১০।
  4. বাশার মাহমুদ, শাহমান্দারের ঘাট, গাংচীল প্রকাশনী, ঢাকা, ২০১০।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন, ২০১৪)। "এক নজরে মাদারিপুর"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগৃহীত ২৬ জুন, ২০১৪ 
  2. ড. অশোক বিশ্বাস, বাংলাদেশের নদীকোষ, গতিধারা, ঢাকা, ফেব্রুয়ারি ২০১১, পৃষ্ঠা ৩৯৭, আইএসবিএন ৯৭৮-৯৮৪-৮৯৪৫-১৭-৯

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]