রুবাইয়াত হোসেন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
রুবাইয়াত হোসেন
Rubaiyat Hossain.JPG
জন্ম
রুবাইয়াত হোসেন

১৯৮১
জাতীয়তাবাংলাদেশী
পেশাচলচ্চিত্র পরিচালক, চিত্রনাট্যকার ও প্রযোজক
উল্লেখযোগ্য কর্ম
মেহেরজান, আন্ডার কনস্ট্রাকশন
দাম্পত্য সঙ্গীআশিক মোস্তফা
ওয়েবসাইটrubaiyat-hossain.com

রুবাইয়াত হোসেন (সৈয়দা রুবাইয়াত হোসেন) একজন আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসিত ও প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশী চলচ্চিত্র নির্মাতা, লেখক, প্রযোজক এবং গবেষক।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানি সৈন্যবাহিনীর সাথে বাঙালি নারীর প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে নির্মিত মেহেরজান চলচ্চিত্র পরিচালনার মাধ্যমে ২০১১ সালে চলচ্চিত্র নির্মাতা হিসাবে তিনি আত্মপ্রকাশ করেন। এই চলচ্চিত্রটি বাংলাদেশে তুমুল বিতর্কের সৃষ্টি করে এবং মুক্তির মাত্র এক সপ্তাহ পরেই চাপের মুখে পরিবেশক সিনেমা হল থেকে নামিয়ে নেয়।[১] তবে এটি আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসিত ও বিভিন্ন চলচ্চিত্র উৎসবে পুরস্কৃত হয়েছে।

তার পরের ছবি, আন্ডার কন্সট্রাকশন ২০১৫ সালে মুক্তি পায় যা একটি শহুরে মধ্যবিত্ত বিবাহিত অসুখী নারীর গল্প, যিনি এক যুগ ধরে মঞ্চে রবিন্দ্রনাথ ঠাকুরের রক্তকরবী -এর নন্দিনীর ভূমিকায় অভিনয় করছেন। এটি সারা বিশ্বের চলচ্চিত্র উৎসবগুলিতে প্রদর্শিত হয়েছে, বিভিন্ন পুরষ্কার পেয়েছে এবং বাংলাদেশেও সমাদৃত হয়েছে।।

তার সাম্প্রতিক ছবি, মেড ইন বাংলাদেশ টরন্টো চলচ্চিত্র উৎসব ২০১৯ এ প্রদর্শিত হয় এবং এই বছরের শেষে ছবিটি বিশ্বব্যাপী মুক্তি পেতে যাচ্ছে।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

রুবাইয়াত হোসেন বাংলাদেশের বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ সৈয়দ আবুল হোসেন ও তার স্ত্রী খাজা নার্গিস হোসেনের মেয়ে। তার মা ভারতীয় উপমহাদেশের অন্যতম সুফি সাধকদের একজন হযরত খাজা এনায়েতপুরীর বংশধর।

জুন ২০০৮ সাল থেকে তিনি চলচ্চিত্র পরিচালক ও প্রযোজক আশিক মোস্তফার সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।

শিক্ষা[সম্পাদনা]

সত্যজিৎ রায় এবং ঋতিক ঘাটকের দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে রুবাইয়াত হোসেন চলচিত্র জগতে আগ্রহ প্রকাশ করেন এবং ২০০২ সালে নিউইয়র্ক ফিল্ম একাডেমিতে চলচ্চিত্র পরিচালনায় ডিপ্লোমা সম্পন্ন করেন। তিনি প্রখ্যাত স্মিথ কলেজ থেকে নারী গবেষণায় বিএ পাস করেছেন এবং পেনসিলভানিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দক্ষিণ এশীয় গবেষণায় এমএ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের টিশ স্কুল অফ আর্টস থেকে সিনেমা স্টাডিতে এমএ সম্পন্ন করেছেন। সুফিবাদ, বাঙালি জাতীয়তাবাদ, বাঙালি আধুনিকতার গঠন এবং নারীবাদ তার প্রাথমিক অগ্রহের বিষয় ছিল।[২]

সামাজিক কর্মকান্ড[সম্পাদনা]

রুবাইয়াত হোসেন বাংলাদেশে বিশিষ্ট নারী অধিকার বিষয়ক এনজিও যেমন আইন ও সালিশ কেন্দ্র ও নারিপক্ষ এর জন্য কাজ করেছেন। তিনি ২০০৭ সালে ব্র্যাক স্কুল অব পাবলিক হেলথ দ্বারা আয়োজিত যৌনতা ও অধিকার বিষয়ক প্রথম আন্তর্জাতিক কর্মশালার সহ-সমন্বয়কারী ছিলেন।[২]

চলচ্চিত্রের তালিকা[সম্পাদনা]

মেড ইন বাংলাদেশ (১০১৯, কাহিনীচিত্র - পরিচালক/প্রযোজক) বাংলাদেশ-ফ্রান্স-ডেনমার্ক-পর্তুগাল এর যুগ্ম উদ্যোগে নির্মিত এই চলচ্চিত্রটি অনেকগুলো গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক অনুদান অর্জন করে যার মধ্যে রয়েছে ফ্রান্সের সিএনসি ফান্ড, ইউরোপীয় ইউনিয়নের ইউরিমাজেস ফান্ড, ড্যানিশ ফিল্ম ইনস্টিটিউট ফান্ড, সোর্ফন্ড প্লাস এবং টোরিনো অডিয়্যান্স ডিজাইন ফান্ড। এছাড়াও লোকার্নো ওপেন ডোরস্ এ আর্টে ক্যাশ পুরস্কার জিতেছিল। সম্প্রতি টরন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হওয়ার পর ছবিটি লন্ডন চলচ্চিত্র উৎসবসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হচ্ছে। মেড ইন বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক বিক্রয় প্রতিনিধি পিরামিড ফিল্মস এবং ফ্রান্স, ডেনমার্ক, পর্তুগাল, কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র সহ বিভিন্ন দেশে বছরের শেষে ছবিটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে।

আন্ডার কন্সট্রাকশন (২০১৫, ফিচার - লেখক/পরিচালক/প্রযোজক)

  • সিয়াটল আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব
  • মন্ট্রিয়েল বিশ্ব চলচ্চিত্র উৎসব[৩]
  • সাও পাওলো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব[৪]
  • স্টকহোম চলচ্চিত্র উৎসব[৫]
  • লোকার্নো চলচ্চিত্র উৎসব[৬]

মেহেরজান (২০১১, ফিচার - লেখক/পরিচালক/প্রযোজক)

নির্বাচিত পুরস্কার / সম্মাননা[সম্পাদনা]

  • এমিলি গিমে পুরস্কার - প্যারিসের গিমে মিউজিয়াম কর্তৃক প্রদত্ত, ফ্রান্স
  • আন্তর্জাতিক এশিয়ান চলচ্চিত্র উৎসবে সমালোচকদের বিশেষ মনোনয়ন এবং আন্তর্জাতিক জুরি পুরস্কার, ফ্রান্স
  • মহিলা পরিষদ পুরস্কার - চলচ্চিত্রে অসামান্য অবদানের জন্য বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সম্মাননা
  • বাংলাদেশ মহিলা নেতৃত্বায়ন পুরস্কার - বিশ্ব নারী নেতৃত্ব কংগ্রেস, ভারত
  • শ্রেষ্ঠ উদীয়মান পরিচালক পদক, এশিয়ান আমেরিকান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব ২০১৬, নিউইয়র্ক, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
  • শ্রেষ্ঠ দর্শক পুরস্কার, ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব, বাংলাদেশ
  • অরসন ওয়েলস পদক, টিবুরন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
  • সমালোচক পুরস্কার, জয়পুর আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব, ভারত

খনা টকিজ[সম্পাদনা]

রুবাইয়াত হোসেন এবং তার সহযোগী আশিক মোস্তফা ২০০৮ সালে বাংলাদেশ ভিত্তিক চলচ্চিত্র নির্মান সংস্থা খনা টকিজ (পূর্বে ইরা মোশন পিকচার্স নামে পরিচিত) প্রতিষ্ঠা করেন। খনা টকিজ দেশে ও আন্তর্জাতিকভাবে সমাদৃত বেশ কিছু চলচ্চিত্র নির্মানের পাশাপাশি বাংলাদেশের তরুণ চলচ্চিত্র নির্মাতাদের আন্তর্জাতিক অঙনে তুলে ধরার পেছনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Bangladeshi war film Meherjaan rekindles old enmities"BBC News। সংগ্রহের তারিখ ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ 
  2. "About"Rubaiyat Hossain। সংগ্রহের তারিখ ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ 
  3. "movie-UNDER CONSTRUCTION"www.ffm-montreal.org। ২ অক্টোবর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জুলাই ২০১৯ 
  4. "São Paulo International Film Festival (2015)" 
  5. "Under Construction"। ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জুলাই ২০১৯ 
  6. "Under Construction"www.pardolive.ch 
  7. "Schedule | Kolkata Film Festival"Kolkata Film Festival। ২০১২-০৮-১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৮-১৬ 
  8. "Meherjaan"Fribourg International Film Festival। ২০১২-০৫-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  9. "30 Festival de Cine de Bogotá 2012 – Pagina Oficial | 30 Festival de Cine de Bogotá 2012 – Pagina Oficial"। Xxix.bogocine.com। ২০১৩-১০-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৮-১৬ 
  10. "Cinemateca Uruguaya"। Cinemateca.org.uy। ২০১৩-০৮-১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৮-১৬ 
  11. "Meherjaan"Osian's Cinefan। ২০১২-০৮-০১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা।