এ. বি. এম. খায়রুল হক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মাননীয় প্রধান বিচারপতি
এ. বি. এম. খায়রুল হক
১৯তম বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি
কাজের মেয়াদ
৩০ সেপ্টেম্বর ২০১০ – ১৭ মে ২০১১
পূর্বসূরীবিচারপতি মোহাম্মদ ফজলুল করীম
উত্তরসূরীবিচারপতি মোঃ মোজাম্মেল হোসেন
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১৮ মে ১৯৪৪[১]
নাগরিকত্ব বাংলাদেশ
জাতীয়তাবাংলাদেশী
বাসস্থানঢাকা
প্রাক্তন শিক্ষার্থীঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
লিংকনস্‌-ইন
পেশাআইন
জীবিকাআইনবিদ
ধর্মইসলাম

বিচারপতি এ. বি. এম. খায়রুল হক (জন্ম: ১৮ মে ১৯৪৪) বাংলাদেশের একজন প্রখ্যাত আইনবিদ এবং ১৯-তম প্রধান বিচারপতি[২] তিনি বাংলা ভাষায় রায় প্রদান করে উচ্চ আদালতে বাংলা প্রচলনে ভূমিকা রাখার জন্য প্রশংসিত হয়েছেন।[৩]

জন্ম ও পারিবারিক পরিচিতি[সম্পাদনা]

খায়রুল হক ১৯৪৪ সালের ১৮ মে তারিখে মাদারীপুর জেলার রাজৈরে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা রফিকুল হক।

শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

খায়রুল হক আইনবিদ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি ডিগ্রি এবং যুক্তরাজ্যের লিংকনস্‌-ইন থেকে বার আ্যট ল' ডিগ্রি লাভ করেন।[১]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৭০ সালে জেলা জজ আদালতে আইন পেশায় যুক্ত হওয়া খায়রুল হক হাইকোর্টে আইনজীবি হিসাবে কাজ শুরু করেন ১৯৭৬ সালে এবং ১৯৯৮ সালের এপ্রিলে হাইকোর্ট বিভাগের বিচারক হিসেবে নিয়োগ পান, যার পরবর্তীকালে তিনি ২০১০ সালে আপিল বিভাগে নিযুক্তি লাভ করেন।[১]

২০১০ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর তারিখে বিচারপতি মোহাম্মদ ফজলুল করীমের অবসর গ্রহণের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশের ১৯-তম প্রধান বিচারপতি হিসাবে এ. বি. এম. খায়রুল হককে নিয়োগ প্রদান করেন এবং তিনি ২০১০ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর তারিখে প্রধান বিচারপতি হিসাবে শপথ গ্রহণ করেন[১]২০১১ সালের ১৭ মে তারিখে ৬৭ বছর পূর্ণ হওয়ায় অবসর গ্রহণ করেন।[৪]

রচনাবলী[সম্পাদনা]

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহি:সংযোগ[সম্পাদনা]