সুনামগঞ্জ জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সুনামগঞ্জ
জেলা
বাংলাদেশে সুনামগঞ্জ জেলার অবস্থান
বাংলাদেশে সুনামগঞ্জ জেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৫°০৪′১১″উত্তর ৯১°২৪′১৪″পূর্ব / ২৫.০৬৯৮° উত্তর ৯১.৪০৩৯° পূর্ব / 25.0698; 91.4039স্থানাঙ্ক: ২৫°০৪′১১″উত্তর ৯১°২৪′১৪″পূর্ব / ২৫.০৬৯৮° উত্তর ৯১.৪০৩৯° পূর্ব / 25.0698; 91.4039
দেশ  বাংলাদেশ
বিভাগ সিলেট বিভাগ
আয়তন
 • মোট ৩৬৯৯.৫৮ কিমি (১৪২৮.৪২ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • মোট ২০,১৩,৭৩৮
 • ঘনত্ব ৫৪০/কিমি (১৪০০/বর্গমাইল)
স্বাক্ষরতার হার
 • মোট ৪৯.৭৫%
সময় অঞ্চল বিএসটি (ইউটিসি+৬)
ওয়েবসাইট জেলা প্রশাসনের ওয়েবসাইট


সুনামগঞ্জ জেলা বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের সিলেট বিভাগের একটি প্রশাসনিক অঞ্চল।

ভৌগোলিক সীমানা[সম্পাদনা]

উত্তরে খাসিয়া ও জৈন্তিয়া পাহাড়, পৃর্বে সিলেট জেলা, দক্ষিণে হবিগঞ্জ জেলা, পশ্চিমে নেত্রকোনা জেলাকিশোরগঞ্জ জেলা

প্রশাসনিক এলাকাসমূহ[সম্পাদনা]

সুনামগঞ্জ জেলার উপজেলাগুলি হল -

ইতিহাস[সম্পাদনা]

সুনাম উদ্দিন নামে জনৈক সিপাহী একটি গঞ্জ বা বাজার প্রতিষ্ঠা করেন। পরে উপজেলা, মহকুমা ও জেলা শহরে রুপান্তরিত হয়। বর্তমান সুনামগঞ্জ জেলার নাম ছিল বনগাঁও। ১৮৭৭ সালে সুনামগঞ্জ মহকুমা প্রতিষ্ঠত হয়। ১৯৮৪ সালে জেলায় রুপান্তরিত হয়। জেলায় মোট ৮১টি ইউনিয়ন এবং ২৭৭৩টি গ্রাম আছে। জেলার প্রথম প্রতিষ্ঠিত সরকারি জুবিলি উচ্চ বিদ্যালয় ১৮৮৭ সালে, দ্বিতীয় স্কুল হচ্ছে দিরাই উচ্চ বিদ্যালয় দিরাই উপজেলার চান্দপুর ১৯১৫ সাল, তৃতীয় উচ্চ বিদ্যালয় হচ্ছে ব্রজন্নাথ উচ্চ বিদ্যালয় পাইলগাও জগন্নাথপুর ১৯১৯ সাল।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

সুনামগঞ্জ জেলায় জেলেদের জীবন

মুলতঃ পাথর শিল্প,মতস্য, ধান, সিমেন্ট শিল্প।

চিত্তাকর্ষক স্থান[সম্পাদনা]

  • টাঙ্গুয়ার হাওর।
  • হাছন রাজার বাড়ি।
  • সৈয়দপুর গ্রাম।
  • নারায়ণতলা মিশন।
  • পনাতীর্থ ধাম।
  • লাউড়েরগর।
  • ডলুরা স্মৃতি সৌধ।
  • টেকেরঘাট চুনাপাথর খনি প্রকল্প।

বিশেষ ব্যাক্তি[সম্পাদনা]

আলোকচিত্রে হাসন রাজা যাদুঘর।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন, ২০১৪)। "এক নজরে সুনামগঞ্জ"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগৃহীত ২৪ জুন, ২০১৪ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]