কটিয়াদি উপজেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

স্থানাঙ্ক: ২৪°২৭′৩০″উত্তর ৯০°৫৩′০০″পূর্ব / ২৪.৪৫৮৩° উত্তর ৯০.৮৮৩৩° পূর্ব / 24.4583; 90.8833

কটিয়াদি উপজেলা
BD Districts LOC bn.svg
Red pog.svg
কটিয়াদী
বিভাগ
 - জেলা
ঢাকা বিভাগ
 - কিশোরগঞ্জ জেলা
স্থানাঙ্ক ২৪°২৭′৩০″উত্তর ৯০°৫৩′০০″পূর্ব / ২৪.৪৫৮৩° উত্তর ৯০.৮৮৩৩° পূর্ব / 24.4583; 90.8833
আয়তন ২১৯.৩৯ বর্গকিমি
সময় স্থান বিএসটি (ইউটিসি+৬)
জনসংখ্যা (২০১১)
 - ঘনত্ব
 - শিক্ষার হার
৩,১৪,৫২৯জন[১]
 - ১৪৩৫ বর্গকিমি
 - %
ওয়েবসাইট: উপজেলা প্রশাসনের ওয়েবসাইট

কটিয়াদী উপজেলা বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জ জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা।

অবস্থান ও আয়তন[সম্পাদনা]

কটিয়াদী উপজেলার আয়তন প্রায় ২১৯.২২ স্কয়ার কিলোমিটার। শহরটির উত্তরে কিশোরগঞ্জ সদরকরিমগঞ্জ, দক্ষিণে বেলাবোমনোহরদী, পূর্বে নিকলীবাজিতপুর এবং পশ্চিমে পাকুন্দিয়া অবস্থিত।[২]

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

কটিয়াদী থানা ১৯৮৩ সনে উপজেলায় পরিনত হয়। ১০ টি ইউনিয়ন, ৯৫ টি মৌজা আর ১৫১ টি গ্রাম নিয়ে কটিয়াদী উপজেলা গঠিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

কথিত আছে কটিয়াদীতে একজন পাগল বেশে দরবেশ ছিলেন। সবাই তাকে কটি পাগল বলে ডাকতো। তার নাম কটি থেকেই কটিয়াদী হয়েছে।

প্রত্নতাত্ত্বিক ঐতিহ্য ও ভগ্নাবশেষ[সম্পাদনা]

এখানে কুরিগাই গ্রামে হযরত শামশুদ্দীন (র) এর মাযার অবস্থিত। যিনি ছিলেন হযরত শাহজালাল (র) এর সংগী। গোপীনাথ ও লক্ষীনারায়ন মন্দির এখানে অবস্থিত।

সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান[সম্পাদনা]

সিনেমা হল ৪টি, নাট্য মঞ্চ ১টি।

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

জনসংখ্যার শতকরা ৫১% পুরুষ ও ৪৯% মহিলা। জনসংখ্যার ৯৪% মুসলিম ৪% হিন্দু ও অন্যান্য ধর্মের ২% । জনসংখ্যার প্রায় ৪৫% লোক ই কৃষি কাজ করে থাকে।

শিক্ষা[সম্পাদনা]

কলেজ ৩টি, উচ্চ বিদ্যালয় ১৯টি, কারিগরী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ১টি, মাদ্রাসা ৩৬টি, সরকারী প্রাথমিক স্কুল ৮১ টি, বেসরকারি প্রাথমিক স্কুল ৩২ টি।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

পেশা সমুহ[সম্পাদনা]

কৃষি ৪৬,৯১%, কৃষি শ্রমিক ২২,১৭%, সাধারণ শ্রমিক ৩,৬৪%, ব্যাবসা ১১,০৫%, সেবা ৩,৫৫%, পরিবহন ১.২২%, মাছধরা ১.০৩%, অন্যান্য ১০,৪৩%.

ভূমি ব্যবহার[সম্পাদনা]

আবাদি জমি ১৬২৪৮,৪৮ হেক্টর, পতিত জমি ৪৩০,৫৯ হেক্টর; একক ফসল ১১,৬৮%, ডবল ফসল ৫৫,৩৫% এবং ত্রিগুণ ফসলের জমি ৩২,৯৭% সেচের আওতায় জমি ২৩,২%.

প্রধান শস্য[সম্পাদনা]

ধান, পাট, গম, সরিষা, চিনাবাদাম, রসুন, টমেটো, পেঁয়াজ, মরিচ, আলু, আখ, সবজি. বিলুপ্ত বা প্রায় বিলুপ্ত শস্য তিল, তিসি, তুলো, কৌন, বার্লি এবং কালোজিরা.

ধর্ম ও প্রতিষ্ঠান[সম্পাদনা]

মসজিদ ৩৫৯টি, মাজার ২টি, মন্দির ৫ট। মুসলিম ৯৪,২৬%, হিন্দু ৪,৬০%, বৌদ্দ ০,২৫%, খ্রিষ্টান ০,৩২% ও অন্যান্য ০,৫৭%। উপজাতি ২৭ টি।

হাট, বাজার এবং মেলা[সম্পাদনা]

হাট বাজার আছে ২০টি। উল্লেখযোগ্য বাজার হলো, কটিয়াদী বাজার, ধুলদিয়া বাজার ও করগাও বাজার। মেলা আছে ৮টি। উল্লেখযোগ্য মেলা হলো, কুরিগাই মেলা, গোপিনাথ রথ মেলা ও হাইছা পাগলার মেলা।

এনজিও কার্যক্রম[সম্পাদনা]

ব্রাক,আশা, প্রত্যাশা, মসজিদ মিশন, গ্রামীন ব্যাংক, আহসানিয়া মিশন, পল্লি বিকাশ, প্রশিকা, বিজ ও গ্লোবাল ভিলেজ।

স্বাস্থ্য কেন্দ্র[সম্পাদনা]

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ১টি, গ্রামীণ স্বাস্থ্য কেন্দ্র ২টি, পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্র ৪টি

কুটির শিল্প[সম্পাদনা]

বুনন - শিল্প ২৮১টি, বাঁশের কাজ ৩৪৮টি, কামার ৬২টি, কুমার ৫৭টি, কাঠের কাজ ২৭৬টি, পাট এবং তুলো কাজ ৫৪টি, পিতলের কাজ টি এবং অন্যদের ১৫০৪ টি।

প্রস্তুত কারক[সম্পাদনা]

স মিল ২০টি, চাল কল ৫টি, তৈল মিল ৪৩টি।

ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

রাজনৈতিক ব্যাক্তি

বিবিধ[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন, ২০১৪)। "এক নজরে কটিয়াদী"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগৃহীত ১০ জুলাই, ২০১৫ 
  2. http://www.banglapedia.org/httpdocs/HT/K_0123.HTM
  3. http://www.lcgbangladesh.org/parliament/mplist.php?d=dhaka#Kishoreganj

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]



কিশোরগঞ্জ জেলা Flag of Bangladesh
উপজেলা/থানাঃ কিশোরগঞ্জ সদর | করিমগঞ্জ | পাকুন্দিয়া | হোসেনপুর | ইটনা | মিঠামইন | তাড়াইল | কটিয়াদি | বাজিতপুর | কুলিয়ারচর | ভৈরব | নিকলী | অষ্টগ্রাম