মধুপুর উপজেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
মধুপুর
উপজেলা
মধুপুর বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
মধুপুর
মধুপুর
বাংলাদেশে মধুপুর উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°৩৭′০″ উত্তর ৯০°১′৫″ পূর্ব / ২৪.৬১৬৬৭° উত্তর ৯০.০১৮০৬° পূর্ব / 24.61667; 90.01806স্থানাঙ্ক: ২৪°৩৭′০″ উত্তর ৯০°১′৫″ পূর্ব / ২৪.৬১৬৬৭° উত্তর ৯০.০১৮০৬° পূর্ব / 24.61667; 90.01806 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ  বাংলাদেশ
বিভাগ ঢাকা বিভাগ
জেলা টাঙ্গাইল জেলা
আয়তন
 • মোট ৩৭০.৪৭ কিমি (১৪৩.০৪ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০০১)[১]
 • মোট ২,৫৯,৮৮৪
 • ঘনত্ব ৭০০/কিমি (১৮০০/বর্গমাইল)
স্বাক্ষরতার হার
 • মোট ৩৭.৬৯%
সময় অঞ্চল বিএসটি (ইউটিসি+৬)
ওয়েবসাইট অফিসিয়াল ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
মধুপুরের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

মধুপুর বাংলাদেশের টাঙ্গাইল জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা

অবস্থান[সম্পাদনা]

এই উপজেলার ভৌগোলিক অবস্থান ২৪°৩৭′০০″ উত্তর ৯০°০১′৩০″ পূর্ব / ২৪.৬১৬৭° উত্তর ৯০.০২৫০° পূর্ব / 24.6167; 90.0250। উত্তরে জামালপুর জেলা, দক্ষিণে ঘাটাইল উপজেলা, পূর্বে ময়মনসিংহ জেলা ও পশ্চিমে গোপালপুর উপজেলাধনবাড়ী উপজেলা

প্রশাসনিক অঞ্চল[সম্পাদনা]

ইউনিয়নের তালিকাঃ আলোকদিয়া, আরণখোলা, আউশনাড়া, গোলাবাড়ী, মির্জাবাড়ী, শোলাকুড়ি[২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

কয়েকশ বছরের পুরানো বন মধুপুর। কখনও এটি ছিল রাজাদের আয়ত্বে, কখনও বা জমিদারদের দখলে। তবে এটি বন বিভাগের অধীনে আসে ১৯৬২ সালে। এরপরে ১৯৭৪ সালের বন্যপ্রাণী আইনের আওতায় মধুপুর বনকে জাতীয় উদ্যান হিসেবে ঘোষণা দেওয়া হয় ১৯৮২ সালে।

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

মধুপুর শহরের গড় স্বাক্ষরতার হার শতকরা ৫৬.৭ ভাগ (পুরুষ ৫৮.৭%, মহিলা-৫৪.৫%)।[৩]

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

মধুপুরের গরম বাজার এলাকায় বিক্রির জন্য গাছ থেকে পাড়া তিনটি কাঁঠাল

শুধু উপজেলার নয়, জাতীয় অর্থনীতি খাতেও প্রভূত অবদান রাখে মধুপুরের আনারস, কলা ও কাঁঁঠাল উৎপাদন। প্রচুর শাল, সেগুন, মেহেগনি, আকাশমণি কাঠের পাশাপাশি বিভিন্ন বনজ উপাদান গতিশীল রাখে স্থানীয় বাজার।

কৃতী ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

উল্লেখযোগ্য স্থান[সম্পাদনা]

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

বিবিধ[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন, ২০১৪)। "এক নজরে"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগৃহীত ১০ জুলাই, ২০১৫ 
  2. ইউনিয়নের তালিকা
  3. "Tangail Table C-06 : Distribution of Population aged 7 years and above by Literacy, Sex, Residence and Community" (PDF)। bbs.gov.bd (ইংরেজি ভাষায়)। সংগৃহীত ২০১৬-০২-২৫ 
  4. পাভেল পার্থ। "মধুপুর শালবনে রক্তের দাগ শুকোবে না?" (ওয়েব)। দৈনিক সমকাল (বাংলা ভাষায়) (ঢাকা)। সংগৃহীত এপ্রিল ১৩, ২০১০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]