মা তারা চণ্ডী মন্দির

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মা তারা চণ্ডী মন্দির
তারাপীঠ / শক্তিপীঠ
ধর্ম
অন্তর্ভুক্তিহিন্দুধর্ম
জেলারোহতাস
শ্বরদূর্গা মা সতী, কালী, তারা
উৎসবসমূহনবরাত্রী, মহা শিবরাত্রী
পরিচালনা সংস্থামা তারা চণ্ডী মন্দির কমিটি, সাসারাম
অবস্থান
অবস্থানসাসারাম
রাজ্যবিহার
দেশ ভারত
ভৌগোলিক স্থানাঙ্ক২৪°৫৭′ উত্তর ৮৪°০২′ পূর্ব / ২৪.৯৫° উত্তর ৮৪.০৩° পূর্ব / 24.95; 84.03স্থানাঙ্ক: ২৪°৫৭′ উত্তর ৮৪°০২′ পূর্ব / ২৪.৯৫° উত্তর ৮৪.০৩° পূর্ব / 24.95; 84.03
স্থাপত্য
ধরনগুহা মন্দির, পাহাড়ী মন্দির
সম্পূর্ণ হয়দ্বাপর যুগ
উচ্চতা১১০ মি (৩৬১ ফু)
ওয়েবসাইট
http://m.sasaramonline.in/city-guide/maa-tara-chandi-temple-in-sasaram

মা তারা চণ্ডী মন্দির হল একটি হিন্দু মন্দির যা ভারতের বিহার রাজ্যের সাসারামে অবস্থিত।[১][২][৩] এই মন্দিরটি হিন্দু দেবী, মা শক্তি বা মা দুর্গাকে নিবেদিত এবং এখানে দেবী দুর্গার সাথে মহাদেবও পূজিত হন।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

মা তারাচণ্ডী শক্তিপীঠ, যাকে মা তারাচণ্ডীও বলা হয়, হল সাসারামের প্রাচীনতম এবং অন্যতম পবিত্র মন্দির। এটি ভারতের ৫২ সিদ্ধশক্তিপীঠের একটি হিসাবে বিবেচিত। পুরাণে কথিত কাহিনী অনুসারে, ভগবান বিষ্ণু যখন তাঁর সুদর্শন চক্র দিয়ে সতী দেবীর দেহটিকে খণ্ড-বিখণ্ড করেন তখন সেই শবদেহ থেকে "ডান চোখ" (নেত্র) এখানে পড়ে। মা তারাচন্ডী মন্দির নামে পরিচিত প্রাচীন মন্দিরটিকে দেবী দুর্গা মা তারাচণ্ডীর আবাসস্থল বলে বিশ্বাস করা হয়।

সাসারাম এলাকায় আরও অসংখ্য পর্যটক আকর্ষণকেন্দ্র এই কাইমুর পাহাড়ী অঞ্চলে রয়েছে; যেমনঃ গুপ্ত মহাদেব মন্দির, পার্বতী মন্দির, প্রাচীন গুহাসমূহ। এই শহরের দুটি জলপ্রপাত - মঞ্জহারকুন্ড এবং ধোঁয়াকুন্ড যাদের বিপুল পরিমাণে বিদ্যুৎ উৎপাদন করার সক্ষমতা রয়েছে।

শক্তিপীঠ[সম্পাদনা]

শক্তিপীঠ (সংস্কৃত: शक्ति पीठ,[৪] শক্তির আসন) হলো হিন্দু ধর্মের প্রধান নারী এবং শাক্ত সম্প্রদায়ের প্রধান দেবী শক্তি বা সতীর পবিত্র দেহাবশেষের পূজার স্থান। কন্যা সতী দেবী তাঁর ইচ্ছার বিরুদ্ধে 'যোগী' মহাদেবকে বিবাহ করায় ক্ষুব্ধ, দক্ষ রাজা এক যজ্ঞের আয়োজন করেন যেখানে মহাদেব ও সতী দেবী ছাড়া প্রায় সকল দেব-দেবীকে নিমন্ত্রণ করা হয়। সেখানে মহাদেবের অনিচ্ছা সত্ত্বেও সতী দেবী মহাদেবের অনুচরদের সাথে নিয়ে উপস্থিত হলে আমন্ত্রিত অতিথি না-হওয়ায় তাঁকে যথাযোগ্য সম্মান দেওয়া হয়নি ও তাঁর স্বামী মহাদেবকে অপমান করা হলে সতী দেবী তাঁর স্বামীর প্রতি পিতার এ অপমান সহ্য করতে না পেরে যোগবলে আত্মাহূতি দেন। শোকাহত মহাদেব রাগান্বিত হয়ে দক্ষের যজ্ঞ ভণ্ডুল করেন এবং সতী দেবীর শব কাঁধে নিয়ে বিশ্ব ধ্বংসের উদ্দেশ্যে প্রলয় নৃত্য শুরু করলে অন্যান্য দেবতার অনুরোধে বিষ্ণু তাঁর সুদর্শন চক্র দ্বারা সতী দেবীর শব ছেদন করলে সেই দেহখণ্ডসমূহ বিভিন্ন জায়গায় পড়ে এবং পবিত্র পীঠস্থান (শক্তিপীঠ) হিসেবে পরিচিতি পায়।[৫] এগুলি পুরো ভারতীয় উপমহাদেশে বিভিন্ন স্থানে রয়েছে; যারমধ্যে দক্ষিণ নেত্রটি এখানে পতিত হয় বলে হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা বিশ্বাস করেন।

অবস্থান[সম্পাদনা]

এই মন্দিরটির অবস্থান ভারতের বিহার রাজ্যের রোহতাস জেলার সাসারাম এলাকায়। সাসারাম থেকে দক্ষিণে প্রায় ৫ কিলোমিটার (দু'মাইল) দূরে তারাচণ্ডী দেবীর এই মন্দিরটি এবং চণ্ডী দেবীর মন্দিরের সন্নিকটের পাথরে প্রতাপধ্বালের একটি শিলালিপি রয়েছে। বিভিন্ন স্থান থেকে বিপুল সংখ্যক হিন্দু এখানে দেবীর উপাসনা করতে জড়ো হয়ে থাকে। এই শহরটির প্রায় ৩৬ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত ধোঁয়াকুন্ড নিকটবর্তী পর্যটক আকর্ষণকেন্দ্র।[৬]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://ww.itimes.com/places/tara-chandi-temple
  2. http://m.holidayiq.com/Maa-Tara-Chandi-Temple-Sasaram-Sightseeing-759-15459.html
  3. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ১০ মে ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মার্চ ২০২০ 
  4. name="Fuller2004">Fuller, Christopher John (২০০৪)। The Camphor Flame: Popular Hinduism and Society in India। Princeton: Princeton University Press। পৃষ্ঠা 44। আইএসবিএন 978-0-691-12048-5 
  5. http://www.sacred-texts.com/tantra/maha/maha00.htm
  6. https://www.tripadvisor.in/Attraction_Review-g1985450-d3727489-Reviews-Maa_Tara_Chandi_Temple-Sasaram_Bihar.html