ব্রহ্মসূত্র

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

ব্রহ্মসূত্র (সংস্কৃত: ब्रह्म सूत्र) , বা বেদান্তসূত্র (वेदान्त सूत्र) হল ব্রহ্ম প্রামাণ্য মীমাংসা বা সিদ্ধান্ত বিষয়ক সূত্রাদি । এটি হিন্দু দর্শনের বেদান্ত শাখার তিনটি প্রধান শাস্ত্রের অন্যতম । এই তিনটি শাস্ত্রকে বলা হয় প্রস্থানত্রয়ী । এর মধ্যে ব্রহ্মসূত্র হল ন্যায়-প্রস্থান বা যুক্তিভিত্তিক প্রস্থান । এটি সংস্কৃতে রচিত । উল্লেখ্য , প্রস্থানত্রয়ীর অপর দুই শাস্ত্র উপনিষদ-কে শ্রুতিপ্রস্থান এবং ভগবদ্গীতা-কে স্মৃতিপ্রস্থান বলা হয় । ব্রহ্মসূত্রে ভিন্ন ভিন্ন কালের বিভিন্ন ঋষির রচিত উপনিষদাদির বৈপরীত্যাদিকে ব্যাখ্যাপূর্বক সমন্বয়ের চেষ্টা করা হয়েছে । ব্রহ্মসূত্রকে তাই উত্তর মীমাংসাও বলা হয় । মীমাংসা দর্শনে বিভিন্ন বৈদিক শাস্ত্রের শিক্ষার মধ্যে সামঞ্জস্য আনার চেষ্টা করা হয়েছে । মীমাংসা দুইভাগে বিভক্ত । যথা: জৈমিনিপূর্ব মীমাংসা (এতে বৈদিক যাগযজ্ঞের ব্যাখ্যা রয়েছে) এবং বাদরায়ণের উত্তর মীমাংসা বা ব্রহ্মমীমাংসা বা শারিরিক-মীমাংসা । এখানে উপনিষদ-দর্শনের একটি সংক্ষিপ্ত সারও পাওয়া যায় ।[১] [২]

অন্তর্ভুক্ত বিষয়াদি[সম্পাদনা]

রচক বাদরায়ণ কৃষ্ণদ্বৈপায়ন বেদব্যাস তৎকালীন লভ্য ব্রহ্ম তথা স্রষ্টা বিষয়ক যাবতীয় সূত্র বা নীতিদি যুক্তি দিয়ে খণ্ডণপ্রতিস্থাপণ এবং কিছু ক্ষেত্রে গ্রহণ এর মাধ্যমে মোট ৫৫৫ পংক্তিতে সমন্বয় করেছেন তার জীবনসায়াহ্নের ব্রহ্মসূত্র

অধ্যায়বিন্যাস[সম্পাদনা]

ব্রহ্মসূত্র ৫৫৫ পংক্তি বা শ্লোক নিয়ে প্রতিটি ৪ পাদ বা উপাধ্যায়যুক্ত ৪ অধ্যায়ে বিভক্ত ।

  1. সমন্বয় ১৩৪ পংক্তি বা শ্লোক পাদ.(৩১ পংক্তি) স্পষ্ট ব্রহ্মবোধক শ্রুতিবাক্যের সমন্বয় । পাদ.(৩২ পংক্তি) উপাস্য ব্রহ্মবোধক অস্পষ্ট শ্রুতিবাক্যের সমন্বয় । পাদ.(৪৩ পংক্তি) জ্ঞেয় ব্রহ্মপ্রতিপাদক অস্পষ্ট শ্রুতিবাক্যের সমন্বয় । পাদ.(২৮ পংক্তি) 'অব্যক্ত' 'অজা' ইত্যাদি সন্দিগ্ধ পদের ব্রহ্মে সমন্বয় ।
  2. অবিরোধ ১৫৮ পংক্তি পাদ.(৩৭পংক্তি) সাংখ্যাদিসূত্রপ্রযুক্ত যুক্তি-তর্কের সাথে ব্রহ্মকারণবাদের বিরোধপরিহার । পাদ.(৪৫পংক্তি) সাংখ্য , বৈশেষিক , বৌদ্ধ ইত্যাদি মত খণ্ডণ । পাদ.(৫৪পংক্তি) প্রথমে পঞ্চমহাভূতসংক্রান্ত শ্রুতিবাক্যাদির ও পরে জীববিষয়ক শ্রুতিবাক্যাদির বিরোধপরিহার । পাদ.(২২পংক্তি) প্রাণ বা লিঙ্গশরীরসংক্রান্ত শ্রুতিবাক্যাদির বিরোধপরিহার ।
  3. সাধন ১৮৯ পংক্তি পাদ.(২৭)জীবের সংসারগতি বর্ণনার মাধ্যমে বৈরাগ্য উৎপাদন । পাদ.(৪৩)ত্বৎ ও ত্বঙ পদার্থের শোধন । পাদ.(৬৭)সগুণবিদ্যাদির গুণোপসংহার ও নির্গুণ-ব্রহ্মে অপুনরুক্ত পদের উপসংহার । পাদ.(৫২)নির্গুণ ব্রহ্মজ্ঞানের বহিরঙ্গ ও অন্তরঙ্গ সাধন ।
  4. মোক্ষ ৭৮ পংক্তি পাদ.(১৯)ইন্দ্রিয়াদি দ্বারা নির্গুণ ব্রহ্মের বা উপাসনা দ্বারা সগুণ ব্রহ্মের সাক্ষাৎপূর্বক জীবন্মুক্তি নির্ণয় । পাদ.(২১)মুমূর্ষ ব্যক্তির উৎক্রমণের প্রকারভেদ নির্ণয় । পাদ.(১৬)মৃত সগুণব্রহ্মবিদের উত্তরমার্গে গমন নিরূপণ । পাদ.(২২)মুক্ত আত্মার স্বরূপ ও অবস্থান ।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]