মধ্যনগর উপজেলা

স্থানাঙ্ক: ২৪°৫৪′০.০″ উত্তর ৯১°১′০.১″ পূর্ব / ২৪.৯০০০০০° উত্তর ৯১.০১৬৬৯৪° পূর্ব / 24.900000; 91.016694
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মধ্যনগর
উপজেলা
মধ্যনগর উপজেলা
ডাকনাম: মধ্যনগর উপজেলা
মধ্যনগর সিলেট বিভাগ-এ অবস্থিত
মধ্যনগর
মধ্যনগর
মধ্যনগর বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
মধ্যনগর
মধ্যনগর
বাংলাদেশে মধ্যনগর উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°৫৪′০.০″ উত্তর ৯১°১′০.১″ পূর্ব / ২৪.৯০০০০০° উত্তর ৯১.০১৬৬৯৪° পূর্ব / 24.900000; 91.016694 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশবাংলাদেশ
বিভাগসিলেট বিভাগ
জেলাসুনামগঞ্জ জেলা
প্রতিষ্ঠাকাল২৬ জুলাই ২০২১
সংসদীয় আসন২২৪
আয়তন
 • মোট২২২ বর্গকিমি (৮৬ বর্গমাইল)
সাক্ষরতার হার
 • মোট৫০%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড২৪৫৬ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
ওয়েবসাইটdharmapasha.sunamganj.gov.bd

মধ্যনগর উপজেলা বাংলাদেশের সুনামগঞ্জ জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা[১] সোমেশ্বরী নদীর তীরে গড়ে ওঠা মধ্যনগর উপজেলার আয়তন ২২২ বর্গকিলোমিটার। উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে প্রায় দেড় লাখ মানুষ বসবাস করে। বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম হাওর, তৃতীয় রামসার এলাকা টাঙ্গুয়ার হাওর মধ্যনগর উপজেলা বৃহত্তর বংশীকুন্ডায় অবস্থিত।[২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৭৪ সালে মধ্যনগর ইউনিয়ন, চামরদানী ইউনিয়ন, বংশীকুন্ডা উত্তর ইউনিয়নবংশীকুন্ডা দক্ষিণ ইউনিয়ন নিয়ে মধ্যনগর থানা গঠিত হয়। থানার বংশীকুন্ডা উত্তর ইউনিয়ন থেকে উপজেলা সদরের দূরত্ব ৪০ কিলোমিটারের বেশি, অপরদিকে উপজেলা সদর থেকে মধ্যনগরের দূরত্ব ২০ কিলোমিটার।[৩] যার ফলে শিক্ষা, চিকিৎসা, প্রশাসনিক সেবা নিতে মানুষের দুর্ভোগ হচ্ছিলো। ১৯৮৭ সালের মাঝামাঝি সময় থেকে মধ্যনগর থানাকে উপজেলায় উন্নীত করার জন্য প্রাথমিকভাবে কার্যক্রম শুরু হয়। এরপর এই দাবিতে বিভিন্ন সময়ে মধ্যনগর বাজারে অনশন, মানববন্ধন ও হরতালের মতো কর্মসূচিও পালন করা হয়।[৪] ২০০১ সালে প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির (নিকার) ৮৬তম বৈঠকে মধ্যনগর থানা এলাকার ৪টি ইউনিয়ন নিয়ে মধ্যনগর উপজেলা স্থাপনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। পরবর্তীতে নিকারের ৮৮তম সভায় এ সিদ্ধান্তটি বাতিল করা হয়েছিল।[২] সর্বশেষ ২০২১ সালের ২৬ জুলাই নিকারের ১১৭তম সভায় মধ্যনগরকে পরিপূর্ণ উপজেলা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।[৫][৬]

সীমানা[সম্পাদনা]

উত্তরে ভারতের মেঘালয়, দক্ষিণে ধরমপাশা উপজেলা, পূর্বে তাহিরপুর উপজেলা ও পশ্চিমে কলমাকান্দা উপজেলা।

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

৪টি ইউনিয়নের প্রশাসনিক কার্যক্রম মধ্যনগর উপজেলার আওতাধীন হতে যাচ্ছে, যা আগে ধর্মপাশা উপজেলাধীন ছিল।[৭]

ইউনিয়নসমূহ

শিক্ষা[সম্পাদনা]

এই উপজেলায় শিক্ষার হার শতকরা ২৩.০২%। এখানে ৮৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১০টি মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ২টি কলেজ রয়েছে।

  • বংশীকুন্ডা কলেজ। (২০১৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়)
  • বংশীকুন্ডা মমিন উচ্চ বিদালয়। (১৯৬৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় )[৪]
  • গড়াকাটা আবদুল খালেক মডেল উচ্চ বিদ্যালয়। ( ২০১৮ সালে প্রতিষ্টিত হয়)

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

এই উপজেলায় কৃষি জমির পরিমান ১৫ হাজার ৬০০ হেক্টর।[৪]

এক নজরে মধ্যনগর[সম্পাদনা]

কালের স্বাক্ষী বহনকারী সুমেশ্বরী নদীর তীরে গড়ে  উঠা সুনামগঞ্জ জেলার, ধর্মপাশা উপজেলার, মধ্যনগর থানার, হাওর বেষ্ঠিত, মৎস্য ও ধানে ভরপুর,  একটিঐতিহ্যবাহী অঞ্চল হলো মধ্যনগর ইউনিয়ন । কাল পরিক্রমায় আজ মধ্যনগর ইউনিয়ন শিক্ষা, সংস্কৃতি, ধর্মীয় অনুষ্ঠান,খেলাধুলা সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে তার নিজস্ব স্বকীয়তা আজও সমুজ্জ্বল।

১) নাম -  ৪নং মধ্যনগর ইউনিয়ন পরিষদ।

২) আয়তন - ৪৪.০০ বর্গ কিলোমিটার ।

৩) মৌজার সংখ্যা –২০টি ।

সীমানা- পুর্বে পাইকুরাটি ও চামরদানী ইউনিয়ন, ধর্মপাশা উপজেলা, পশ্চিমে কলমাকান্দা উপজেল,উত্তরে চামরদানী ইউনিয়ন,ধর্মপাশা উপজেলা, দক্ষিনে পাইকুরয়াটি ইউনিয়ন,ধর্মপাশা উপজেলা।

৪) লোকসংখ্যা –  ২০২৬২জন (প্রায়)। (উপজেলা পরিসংখ্যান অফিসের তথ্য অনুসারে)

(ক) পুরুষ-১০৭৩৭,

(খ) মহিলা-৯৫৩২,

৫) পরিবার  সংখ্যা –৪২৯০ টি।

৬) গ্রামের সংখ্যা –  ৩৩ টি।

৭) মোট জমির পরিমান –৬৫৬৭.২৫ একর।

(ক) ২৫ বিঘার উর্ধ্বে মোট জোত সংখ্যা –৮৯।

(খ) ২৫ বিঘার উর্ধ্বে মোট জোত সংখ্যা –২২৪২।              

৮) আবাদী কৃষি জমির পরিমান –৬৫২১.৬২ একর,

৯) খাস জমির পরিমান -৯৪৪.৬৩ একর ।

১০) জলমহাল - ১২ টি।

১১) হাটবাজার ।

(ক) বড় –০১টি।

(খ) ছোট –০১টি।

১২) প্রধান নদ নদী –০২টি।

১৩) হাওর –০৫টি।

১৪) খাল –০৬টি ।

১৫) খেলার মাঠ –১০টি।

১৬) নলকুপ –২৯৩টি।

১৭) অটো রাইছ মিল –০২টি।

১৮) করাত মিল –০৪টি ।

১৯) সরকারী পুকুর –০৫টি।

২০) খেয়াঘাট –০৪টি।

২১) খোয়ার –০৩টি।

২২) ঔষধের দোকান –২৫টি।

২৩) ব্যাংক –০২টি।

২৪) প্রধান রাস্তা - ০১টি।

২৫) প্রধান ডাকঘর - ০১টি ।

২৬) শিক্ষার হার –  ৪৭%।

২৭) শিক্ষাপ্রতিষ্টান সমুহ।

(ক) সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় - ১২ টি,

(খ) বে-সরকারী রেজিঃ প্রাঃ বিদ্যালয় - ০৮ টি।

       (গ) উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ - ০১টি।

(ঘ) উচ্চ বিদ্যালয় - ০২টি।

২৮)ধর্মীয় প্রতিষ্টানসমুহ।

(ক) মাদ্রাসা - ০২ টি

(খ) মসজিদ - ২২ টি

(গ) মক্তব -  ২০ টি

(ঘ) মন্দির -  ৫১টি

(ঙ) ঈদগাহ - ১২টি

(চ) কবর স্থান - ১৮টি

(ছ) শ্বশান - ১৩টি

২৯)খেলার মাঠ - ০৫টি

৩০) সরকারী প্রতিষ্টান –১০টি।

৩১) কমিউনিটি ক্লিনিক - ০২টি।

৩২) সামাজিক প্রতিস্টান সমুহ ।

(ক)ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সংগঠন –০৪।

(খ) পেশাজীবি সংগঠন –০৭টি

৩৩) এন জি ও অর্থিক প্রতিষ্টান –২১টি।

৩৪) সুবিধাভোগীদের সংখ্যা।

(ক) ভি জি ডি র্কাডধারী সংখ্যা –১৫৪।

(খ) বয়স্ক ভাতাভোগীর সংখ্যা –৪১৮।

(গ) বিধবা ভাতাভোগীর সংখ্যা –১৬১।

(ঘ) প্রতিবন্ধী ভাতাভোগীর সংখ্যা –৪২।

(ঙ) মুক্তিযোদ্ধ্যা ভাতাভোগীর সংখ্যা –০৫।

(চ) মাতৃ কালীন ভাতাভোগীর সংখ্যা –২১।

(ছ) ভিজি এফ ভাতাভোগীর সংখ্যা –১১০০। [১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "দেশে আরও তিনটি উপজেলা"। bdnews24। ২৭ জুলাই ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুলাই ২০২১ 
  2. "মধ্যনগর থানা যে কারণে উপজেলা হতে পারে"kalerkantho.com। কালের কণ্ঠ। ১৮ জানুয়ারি ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১৩ অক্টোবর ২০২০ 
  3. "মধ্যনগর উপজেলা হওয়ায় আনন্দ মিছিল, মিষ্টি বিতরণ"sylhetvoice.com। ২৬ জুলাই ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুলাই ২০২১ 
  4. "নতুন উপজেলা পেল সুনামগঞ্জ, নতুন নাম পেল দক্ষিণ সুনামগঞ্জ"প্রথম আলো। ২৬ জুলাই ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০২১ 
  5. "উপজেলা ঘোষণায় মধ্যনগরে মিষ্টি বিতরণ"জাগোনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুলাই ২০২১ 
  6. উপজেলা হলো ঈদগাঁও-ডাসার-মধ্যনগর। কালের কন্ঠ, ২৬ জুলাই, ২০২১।
  7. "ইউনিয়নসমূহ - ধর্মপাশা উপজেলা"dharmapasha.sunamganj.gov.bd। জাতীয় তথ্য বাতায়ন। ২৫ অক্টোবর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ অক্টোবর ২০২০