মোহাম্মদ হারিছ আলী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

ডা. মোহাম্মদ হারিছ আলী (৩১ মে, ১৯৪১—২০ আগষ্ট, ২০১৩) ছিলেন একজন বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ, চিকিতসক, ৫ নম্বর সেক্টরে মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, কবি, লেখক, সাংবাদিক এবং শিক্ষানুরাগী সমাজসেবক। ষাটের দশকে সিলেটের ছাত্র রাজনীতির অঙ্গনে তিনি ছিলেন এক ঊজ্জ্বল নক্ষত্র। আইয়ূব খানের সামরিক শাসনবিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে সিলেট অণ্চলের প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামে তিনি ছিলেন সামনের কাতারের সৈনিক। ১৯৬১ সালে তিনি সিলেট মেডিক্যাল কলেজের ছাত্র সংসদের নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ডা. দেওয়ান নুরুল হোসেন চন্চল এবং ডা. হারিছের নেতৃত্বে সিলেট মেডিক্যাল স্কুলকে মেডিক্যাল কলেজে বাস্তবায়নের আন্দোলন হয় ১৯৬০-'৬১ সালে। তাঁদের আন্দোলনের ফলে সিলেট মেডিক্যাল স্কুল ১৯৬২ সালে মেডিক্যাল কলেজে ঊন্নীত হয়। ডা. হারিছ ষাটের দশকে সিলেটে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার আন্দোলনেও প্রথম সারির নেতা ছিলেন। ১৯৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধে তিনি ৫ নং সেক্টরে যুগপত রাজনৈতিক সংগঠক এবং রেজিমেন্টাল মেডিক্যাল অফিসার হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। চেলা এবং ভোলাগন্জ সাব সেক্টরে তিনি আহত মুক্তিযোদ্ধাদের সেবার নিমিত্তে হাসপাতাল গড়ে তুলেন। ১৯৭৮ সালে সালে তিনি যুক্তরাজ্যে আওয়ামী যুবলীগের শাখা গড়ে তোলেন। তিনি একজন জনদরদী চিকিতসক হিসেবে আজীবন সাধারণ মানুষকে বিনে পয়সায় চিকিতসা সেবা দান করেন।

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

এদেশের স্বাধীকার আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধে অসাধারণ অবদানের জন্য ২০১৪ সালে দেশের “সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার”[১][২][৩] হিসাবে পরিচিত “স্বাধীনতা পুরস্কার” প্রদান করা হয় তাকে।[৪]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. সানজিদা খান (জানুয়ারি ২০০৩)। "জাতীয় পুরস্কার: স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার"। সিরাজুল ইসলাম[[বাংলাপিডিয়া]]ঢাকা: এশিয়াটিক সোসাইটি বাংলাদেশআইএসবিএন 984-32-0576-6। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ডিসেম্বর ২০১৭স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় পুরস্কার।  ইউআরএল–উইকিসংযোগ দ্বন্দ্ব (সাহায্য)
  2. "স্বাধীনতা পদকের অর্থমূল্য বাড়ছে"কালেরকন্ঠ অনলাইন। ২ মার্চ ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ডিসেম্বর ২০১৭ 
  3. "এবার স্বাধীনতা পদক পেলেন ১৬ ব্যক্তি ও সংস্থা"এনটিভি অনলাইন। ২৪ মার্চ ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ডিসেম্বর ২০১৭ 
  4. "স্বাধীনতা পুরস্কারপ্রাপ্ত ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠানের তালিকা"মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। ১ ডিসেম্বর ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ডিসেম্বর ২০১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]