শ্রীমঙ্গল উপজেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
শ্রীমঙ্গল
উপজেলা
শ্রীমঙ্গলের চা বাগান
শ্রীমঙ্গলের চা বাগান
শ্রীমঙ্গল বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
শ্রীমঙ্গল
শ্রীমঙ্গল
বাংলাদেশে শ্রীমঙ্গল উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°১১′উত্তর ৯১°২৫′পূর্ব / ২৪.১৮° উত্তর ৯১.৪২° পূর্ব / 24.18; 91.42স্থানাঙ্ক: ২৪°১১′উত্তর ৯১°২৫′পূর্ব / ২৪.১৮° উত্তর ৯১.৪২° পূর্ব / 24.18; 91.42
দেশ  বাংলাদেশ
বিভাগ সিলেট বিভাগ
জেলা মৌলভীবাজার জেলা
আয়তন
 • মোট ৪২৫.১৫ কিমি (১৬৪.১৫ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • মোট ৩,১৮,০২৫
 • ঘনত্ব ৭৫০/কিমি (১৯০০/বর্গমাইল)
স্বাক্ষরতার হার
 • মোট %
সময় অঞ্চল বিএসটি (ইউটিসি+৬)
ওয়েবসাইট http://sreemangal.moulvibazar.gov.bd/


শ্রীমঙ্গল উপজেলা বাংলাদেশের মৌলভীবাজার জেলার একটি প্রশাসনিক এলাকা।

অবস্থান ও আয়তন[সম্পাদনা]

দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় সিলেট বিভাগের মৌলভীবাজার জেলা সদর থেকে ২০ কিলোমিটার দক্ষিণে শ্রীমঙ্গলের অবস্থান। উপজেলাটির উত্তরে মৌলভীবাজার সদর উপজেলা, দক্ষিণে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য, পূর্বে কমলগঞ্জ উপজেলা এবং পশ্চিমে হবিগঞ্জের চুনারুঘাটবাহুবল উপজেলা অবস্থিত।

মৌলভীবাজার জেলায় অবস্থিত চা-কন্যা স্থাপত্য

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

শ্রীমঙ্গল সদর রেলওয়ে ষ্টেশন

৪২৫ দশমিক ১৫ বর্গকিলোমিটার। এই উপজেলার ইউনিয়নসমুহঃ-

  1. মির্জাপুর ইউনিয়ন
  2. ভূনবীর ইউনিয়ন
  3. শ্রীমঙ্গল ইউনিয়ন
  4. সিন্দুরখান ইউনিয়ন
  5. কালাপুর ইউনিয়ন
  6. আশিদ্রোন ইউনিয়ন
  7. রাজঘাট ইউনিয়ন
  8. কালিঘাট ইউনিয়ন এবং
  9. সাতগাঁও ইউনিয়ন

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯২৯ সালে শ্রীমঙ্গল বাজার এলাকাকে আরবান এলাকা হিসেবে ঘোষণা করা হয়। ১৯৩৫ সালের ১ অক্টোবর ঘোষিত আরবান এলাকা নিয়ে ‘শ্রীমঙ্গল স্মল টাউন কমিটি’ গঠিত হয়। ১৯৬০ সালে এটি ‘মিউনিসিপ্যালিটিতে’ রূপান্তরিত হয়। ১৯৭২ সালের ৫ মে তদানীন্তন রাষ্ট্রপতির ঘোষণা বলে শ্রীমঙ্গল পৌরসভা গঠিত হয়। ১৯৯৪ সালের ১ জুলাই পৌরসভাটি দ্বিতীয় শ্রেণীতে এবং ২০০২ সালের ১ জুলাই প্রথম শ্রেণীতে উন্নীত হয়।[২]

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

শ্রীমঙ্গল উপজেলার মোট জনসংখ্যা ২৭৮৩২৩ জন। যার মধ্যে ১৪৩০৩৩ জন পুরুষ ও ১৩৫১৯৯ জন নারী।[৩]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

বতর্মান শিক্ষার হার ৩৯.৬%।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

দেশের পাহাড়ী ও ঘন বনাঞ্চল এলাকায় বৃষ্টিপাত বেশি হয় আর শ্রীমঙ্গলে পাহাড় ও ঘন বনাঞ্চল থাকায় এখানে বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত ও শীত পড়ে। আর চা চাষ উপযোগী অন্যান্য উপাদানের সাথে প্রধান এ উপাদান গুলোর জন্য দেশের সবচেয়ে বেশি চা বাগান গড়ে উঠেছে মৌলভীবাজার জেলায়। দেশের ১৬৩টি চা বাগানের মধ্যে এ জেলায় পড়েছে ৯১ টি চা বাগান।এবং শুধু শ্রীমঙ্গলে আছে ৩৮ টি চা বাগান. [৪]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাদেশ পরিসখ্যান ব্যুরো (জুন, ২০১৪)। "Population Census 2011, Sylhet"http://bbs.gov.bd/। বাংলাদেশ পরিসখ্যান ব্যুরো। সংগৃহীত ২৯ জুন, ২০১৬ 
  2. প্রথম আলো:মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল পৌরসভার সম্প্রসারণ প্রস্তাব গত ২৮ বছরও বাস্তবায়ন হয়নি
  3. Bangladesh Bureau of Statistics, 2001
  4. প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে চা শিল্প

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]