শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
শায়েস্তাগঞ্জ
উপজেলা
শায়েস্তাগঞ্জ সিলেট বিভাগ-এ অবস্থিত
শায়েস্তাগঞ্জ
শায়েস্তাগঞ্জ
শায়েস্তাগঞ্জ বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
শায়েস্তাগঞ্জ
শায়েস্তাগঞ্জ
বাংলাদেশে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°১৬′২৪″ উত্তর ৯১°২৬′৪৭″ পূর্ব / ২৪.২৭৩৩৩° উত্তর ৯১.৪৪৬৩৯° পূর্ব / 24.27333; 91.44639স্থানাঙ্ক: ২৪°১৬′২৪″ উত্তর ৯১°২৬′৪৭″ পূর্ব / ২৪.২৭৩৩৩° উত্তর ৯১.৪৪৬৩৯° পূর্ব / 24.27333; 91.44639 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগসিলেট বিভাগ
জেলাহবিগঞ্জ জেলা
প্রতিষ্ঠাকাল২০ নভেম্বর ২০১৭; ৩ বছর আগে (2017-11-20)
সরকার
 • চেয়ারম্যানআব্দুর রশিদ তালুকদার ইকবাল (বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ)
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা বাংলাদেশের হবিগঞ্জ জেলার একটি প্রশাসনিক এলাকা।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

সিপাহসালার সৈয়দ নাসির উদ্দীন শ্রীহট্ট বিজেতা হযরত শাহ জালালের অন্যতম সঙ্গী ও অনুসারী ছিলেন। তিনি সিলেট অভিযানে প্রেরিত মুসলিম বাহিনীর প্রধান সেনাপতি ছিলেন। ১৩০৪ খ্রিষ্টাব্দে সিলেটের ইতিহাসে বহুল আলোচিত তরফ রাজ্য তার মাধ্যমে বিজিত হয়। সিলেট বিভাগের হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘট উপজেলার মুড়ারবন্দ নামক স্থানে সিপাহসালার সৈয়দ নাসির উদ্দীনের পবিত্র মাজার অবস্থিত। দেশের দূরদূরান্ত থেকে প্রতিদিন হাজার হাজার দর্শনার্থীর আগমন ঘটে এ মাজারে। তার জন্ম ও মৃত্যুর তারিখ সম্পর্কে জীবনী গ্রন্থে আনুমানের ভিত্তিতে ১২৫০ সালে জন্ম হয়েছে এবং শাহ জালালের মৃত্যুর পূর্বে (১৩৪৬ খ্রিষ্টাব্দের পূর্বে) তিনি মৃত্যুবরণ করেন। এ পর্যন্ত তার বংশের ১৩০টি পরিবারের সন্ধান পাওয়া গেছে।

১৯১০ খ্রিষ্টাব্দে প্রকাশিত অচ্যুতচরণ চৌধুরী তত্ত্বনিধি কর্তৃক লিখিত "শ্রীহট্টের ইতিবৃত্ত" গ্রন্থ পূর্বাংশ। বইয়ের তথ্যমতে, সিপাহসালার সৈয়দ নাসির উদ্দীনের অধস্তন নবম বংশধর লস্করপুর হাবেলী নিবাসী সৈয়দ হামিদ রাজার পুত্র ছিলেন সৈয়দ শায়েস্তা মিয়া। প্রায় তিনশত বছর পূর্বে খোয়াই নদীর পশ্চিম তীরে সৈয়দ শায়েস্তা মিয়ার নামে একটি হাট বা বাজার স্থাপন করা হয়। প্রথমে এ বাজারটি শায়েস্তা মিয়ার বাজার নামে পরিচিতি পেলেও কালক্রমে বাজার থেকে গঞ্জে পরিণত হয়। বর্তমান শায়েস্তাগঞ্জ পুরান বাজারই হচ্ছে মূল শায়েস্তা মিয়ার বাজার। তৎকালীন ব্রিটিশ সরকার কর্তৃক আসাম-বেঙ্গল রেলওয়ের মাধ্যমে শায়েস্তাগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন স্থাপন করা হয়। এর ফলে শায়েস্তাগঞ্জ বাজারটি সম্প্রসারিত হয়ে রেলওয়ে স্টেশন সংলগ্ন দাউদনগরে (দাউদনগরের জমিদার সৈয়দা ধন বিবি ওয়াকফ এস্টেটের অন্তর্ভুক্ত) আরেকটি বাজারের গোড়াপত্তন হয়। পরবর্তীতে ১৯৯৮ সালে শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভা গঠিত হয়, যা দেশের একটি প্রথম শ্রেণির পৌরসভা।

২০ নভেম্বর ২০১৭ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস-সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির বৈঠকে ৪৯২তম উপজেলা হিসেবে শায়েস্তাগঞ্জকে অনুমোদন দেওয়া হয়।[১]

অবস্থান ও আয়তন[সম্পাদনা]

শায়েস্তাগঞ্জ  উপজেলার আয়তন ৩৯.৫৫ বর্গকিলোমিটার।

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় বর্তমানে ১টি পৌরসভা ও ৩টি ইউনিয়ন রয়েছে। সম্পূর্ণ উপজেলার প্রশাসনিক কার্যক্রম শায়েস্তাগঞ্জ থানার আওতাধীন।[২][৩]

পৌরসভা:
ইউনিয়নসমূহ:

উপজেলা চেয়ারম্যান[সম্পাদনা]

১৯ জুন, ২০১৯ তারিখে অনুষ্ঠিত পঞ্চম ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী আব্দুর রশিদ তালুকদার ইকবাল ১৬,৯৩৬ ভোট পেয়ে প্রথম উপজেলা চেয়ারম্যান হিসাবে নির্বাচিত হন।[৪][৫] ১১ জুলাই ২০১৯, সিলেট বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে শপথ গ্রহণের মাধ্যমে উক্ত উপজেলার দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। [৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "৪৯২তম উপজেলা শায়েস্তাগঞ্জ"দৈনিক প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৭ 
  2. "ইউনিয়নসমূহ - শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা"shayestaganj.habiganj.gov.bd। জাতীয় তথ্য বাতায়ন। সংগ্রহের তারিখ ১২ আগস্ট ২০২০ 
  3. "শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা সম্পর্কিত অতিরিক্ত গেজেট" (PDF)www.dpp.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জুন ২০১৯ 
  4. ডেস্ক, অভ্যন্তরীণ। "উপজেলা নির্বাচনে শেষ ধাপের ভোটে যারা জয়ী"DailyInqilabOnline। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-২৭ 
  5. "শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন : ইকবাল চেয়ারম্যান, ইমরান ও মুক্তা ভাইস-চেয়ারম্যান"www.janomot.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-২৭ 
  6. "আজ শপথ নিচ্ছেন হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মিজান, শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ইকবাল ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান মুক্তা"। www.habiganj-samachar.com। ১১ জুন ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জুন ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]