চমচম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
চম চম
BD Porabarir Chamcham.JPG
প্রসিদ্ধ টাঙ্গাইলের পোড়াবাড়ির চমচম।
প্রকারমিষ্টিজাতীয় খাবার
উৎপত্তিস্থলপোড়াবাড়ী, টাঙ্গাইল, বাংলাদেশ
অঞ্চল বা রাজ্যবাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান
প্রধান উপকরণদুধ, ময়দা, ছানা, চিনি
রন্ধনপ্রণালী: চম চম  মিডিয়া: চম চম

চমচম বাংলাদেশের জনপ্রিয় একটি ঐতিহ্যবাহী মিষ্টি। ছানার তৈরি একপ্রকার মিষ্টি খাবার বিশেষ। টাঙ্গাইলের চমচম খুবই বিখ্যাত। মিষ্টির রাজা বলে খ্যাত পোড়াবাড়ির চমচমের স্বাদ আর স্বাতন্ত্রের জুড়ি মেলাভার। [১]

উপকরণ[সম্পাদনা]

টাঙ্গাইল পোড়াবাড়ির চমচম

এটি তৈরির উপকরণসমূহ হল ময়দা, ননী, চিনি, জাফরান, লেবুর রস, এবং নারকেল।

Cherry Chamcham

প্রস্তুত প্রনালীঃ

টাঙ্গাইল শহরের পাঁচআনি বাজারের মিষ্টান্নের বিভিন্ন দোকান, শোভা পাচ্ছে লালচে চমচম। দেশ ছাড়িয়ে সারা বিশ্বেই সুনাম রয়েছে এই মিষ্টির। নেই কোনো ভেজাল, গরুর একবারে খাঁটি দুধ আর নির্ভেজাল সব উপাদান দিয়ে তৈরি হয় টাঙ্গাইলের ঐতিহ্যবাহী এই মিষ্টান্ন।

চুলোয় গরুর খাঁটি দুধ জ্বাল দিয়ে প্রথমে তৈরি করা হয় ছানা। পাঁচ কেজির মতো ছানার সঙ্গে মেশানো হয় ২৫০ গ্রাম ময়দা। এবার খুব ভালো করে মেখে মিষ্টির আকার দিয়ে চিনির শিরায় জ্বাল দিতে হয় কমপক্ষে আধাঘণ্টা। ক্রমশ পোড়া ইটের মতো রং ধারণ করে লম্বা মিষ্টিগুলো। এভাবেই তৈরি হয় রসালো মজাদার পোড়াবাড়ির চমচম।

পোড়াবাড়ীর চমটম[সম্পাদনা]

পোড়াবাড়ির চমচমের রয়েছে প্রায় দু'শো বছরের ইতিহাস। [২] এক সময় এ চমচমের ‘রাজধানী’ হিসেবে পরিচিত ছিল পোড়াবাড়ি গ্রাম। খাঁটি চমচম তৈরির জন্য সুনাম ছিল টাঙ্গাইল শহর থেকে ৭ কিলোমিটার দূরের এ গ্রাম। [৩] প্রায় দু'শো বছর আগে যশোরথ হাল নামে এক কারিগর প্রথম এ মিষ্টি তৈরি করেন। [৪]

সময়ের ঘূর্ণায়মান স্রোতে এ মিষ্টির বৈশিষ্ট্য স্বতন্ত্র রয়েছে। মুখে দিলেই মিলিয়ে যাওয়া এ চমচম খেতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসেন ভোজনরসিকরা। পোড়াবাড়ি গ্রামের বাইরে শুধু টাঙ্গাইল শহরের পাঁচআনিসহ কয়েকটি এলাকার কারিগররা এ বিশেষ মিষ্টান্ন তৈরি করতে পারেন।

পোড়াবাড়ির চমচম তৈরির প্রধান উপকরণ দুধের ছানা, ময়দা আর চিনি। এসব উপকরণে তৈরি চমচমে নরম ভাব যেমন, তেমন ঘ্রাণেও অনন্য।

লালচে রঙের পোড়াবাড়ির চমচমের ওপর দুধ জ্বাল দিয়ে শুকিয়ে তৈরি গুঁড়া মাওয়া ছিটিয়ে দেওয়া হয়। স্বাদে-গন্ধে অতুলনীয় এ বিশেষ মিষ্টি আজও ধরে রেখেছে জনপ্রিয়তা। কেউ টাঙ্গাইল গেলে পোড়াবাড়ির চমচমের স্বাদ নিতে ভোলেন না।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "টাঙ্গাইলের পোড়াবাড়ির চমচম | বাংলাদেশ প্রতিদিন"Bangladesh Pratidin (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০৭ 
  2. "পোড়াবাড়ির চমচম | কালের কণ্ঠ"Kalerkantho। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০৭ 
  3. "আসল পোড়াবাড়ির মিষ্টি খেতে টাঙ্গাইল শহরে"banglanews24.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০৭ 
  4. "জগৎ বিখ্যাত টাঙ্গাইলের পোড়াবাড়ির চমচম"bbarta24.net। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]