মুক্তাগাছার মন্ডা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মুক্তাগাছার মন্ডা
Traditional pearl mound of Muktagacha.jpg
মুক্তাগাছার মন্ডা
অন্যান্য নামমন্ডা
প্রকারমিষ্টি
উৎপত্তিস্থল বাংলাদেশ
অঞ্চল বা রাজ্যময়মনসিংহ
প্রস্তুতকারীরাম গোপাল পাল
প্রধান উপকরণছানা, চিনি, গুড়
ভিন্নতাগুড়ের মন্ডা

মুক্তাগাছার মন্ডা, বাংলাদেশের ময়মনসিংহ জেলার মুক্তাগাছা উপজেলার একটি বিখ্যাত মিষ্টি। রাম গোপাল পাল[১][২] ১৮২৪ সালে এই মিষ্টি প্রথম তৈরি করেন।[৩]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

মুক্তাগাছার সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে মুক্তাগাছার মণ্ডার নাম.jpg

১২৩১ বঙ্গাব্দে (১৮২৪ খ্রিঃ) রাম গোপাল পাল এই মিষ্টি তৈরি করে মুক্তাগাছার বড় জমিদারদের একজন মহারাজা সূর্যকান্ত আচার্য চৌধুরীর নিকট পেশ করেন। বর্তমানে গোপাল পাল পরিবারের পঞ্চম বংশধর শ্রী রামেন্দ্রনাথ পাল ভ্রাতৃদ্বয় এই মিষ্টির ব্যবসা পরিচালনা করেন। রামেন্দ্রনাথ বলেন, জমিদার বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক এবং আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করতেন। সেখানে আগত অতিথিদের মন্ডা দিয়েই আপ্যায়ন করা হতো।

অতিথি আপ্যায়ন[সম্পাদনা]

উপমহাদেশের প্রখ্যাত ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ, পশ্চিমবঙ্গের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ডা. বিধানচন্দ্র রায়, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু প্রমুখ ব্যাক্তিদেরকে মুক্তাগাছার জমিদার বাড়িতে আপ্যায়ন করা হয়েছে এই মণ্ডা দিয়ে। রাশিয়ার জোসেফ স্তালিনকে মণ্ডা পাঠালে তিনি মুগ্ধ হয়ে প্রশংসা করেন এবং পাকিস্তানের আইয়ুব খান একে “পূর্ব পাকিস্তানকা মেওয়া“ বলতেন। আবদুল হামিদ খান ভাসানী মণ্ডার স্বাদে বিমুগ্ধ হয়ে তিনি চীনের মাও ৎসে-তুং এর জন্যও নিয়ে গিয়েছিলেন। মাও ৎসে-তুং এর স্বাদের প্রশংসা করেন।[৪]

সাবেক রাষ্ট্রপতি আবু সাঈদ চৌধুরী এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানও এর ভূয়সী প্রশংসা করেছিলেন। ইন্দিরা গান্ধী, দ্বিতীয় এলিজাবেথ কেও আপ্যায়ন করা হয়েছে মণ্ডা দিয়ে।[৪]

জিয়াউর রহমান, কাদের সিদ্দিকীকামাল হোসেন এর প্রিয় খাবারের তালিকায় ছিল মণ্ডা। [৪]

মূল্য[সম্পাদনা]

ধরণ মূল্য (প্রতিটি) মূল্য (কেজি)
চিনির মন্ডা ২৭/- ৫৬০/-
গুড়ের মন্ডা ৩০/- ৬৬০/-

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Sweetmeat Monda: A rich tradition"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১২-০৭-০৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-১৯ 
  2. "Six sweetmeats which branding Bangladesh"daily-sun.com। দ্য ডেইলি সান। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-১৯ 
  3. "মুক্তাগাছার মণ্ডা: আসল কোনটা?"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মে ২০১৯ 
  4. "ব্যবসা বাণিজ্য"ময়মনসিংহ উপজেলা। ২৯ ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ জানুয়ারি ২০২০