মিহিদানা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
মিহিদানা
ভৌগোলিক স্বীকৃতি
Mihidana - Saktigarh 2014-06-29 5578.JPG
বর্ধমানের মিহিদানা
ভাগ পশ্চিমবঙ্গের মিষ্টান্ন
অঞ্চল বর্ধমান, পশ্চিমবঙ্গ
দেশ ভারত
প্রস্তুতকারী ভৈরবচন্দ্র নাগ
উদ্ভাবন ১৯০৪
নথিবদ্ধ ২৯ এপ্রিল, ২০১৭
উপাদান চাল, বেসন, জাফরান, ঘি, চিনি
প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট http://ipindiaservices.gov.in/GirPublic/Application/Details/526


মিহিদানা বাংলার এক সুপ্রসিদ্ধ মিষ্টান্ন।[১] বর্ধমানের মিহিদানা অতি বিখ্যাত।[১] মিহিদানা ভারতের ঐতিহ্যবাহী মিষ্টান্ন হিসেবে স্বীকৃত।[২] মিহিদানার পেটেন্ট আইনিভাবে পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে প্রদান করা হয়েছে।[২] কলকাতার নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের বিশ্ব বাংলা শোরুমে পশ্চিমবঙ্গের সংস্কৃতির অঙ্গ হিসেবে মিহিদানাকে তুলে ধরা হয়েছে।[৩]

উৎপত্তি[সম্পাদনা]

সীতাভোগ-মিহিদানার সমাবেশ

১৯০৪ সালে বড়লাট জর্জ ন্যাথানিয়েল কার্জন বর্ধমানের জমিদার বিজয়চাঁদ মহতাবকে মহারাজা খেতাব দিতে বর্ধমান ভ্রমণ করেন।[৪] কার্জনের বর্ধমান আগমনকে স্মরণীয় করে রাখতে বিজয়চাঁদ মহতাব বর্ধমানের জনৈক মিষ্টি প্রস্তুতকারক ভৈরবচন্দ্র নাগকে একটি বিশেষ মিষ্টি প্রস্তুত করতে বলেন।[৫] ভৈরবচন্দ্র নাগ মিহিদানা ও বর্ধমানের অপর বিখ্যাত মিষ্টান্ন সীতাভোগ তৈরী করেন।

প্রণালী[সম্পাদনা]

মিহিদানার প্রধান উপাদান চাল। মিহিদানা প্রস্তুতিতে সাধারণত গোবিন্দভোগ, কামিনীভোগ অথবা বাসমতী চাল ব্যবহার করা হয়।[৪] চাল গুঁড়ো করে তার সাথে বেসন এবং জাফরান মেশানো হয়। তারপর জল মিশিয়ে ঈষৎ পীতাভ একটি থকথকে মিশ্রণ তৈরী করা হয়। একটি ছিদ্রযুক্ত পেতলের পাত্র থেকে উক্ত মিশ্রণ কড়াইতে ফুটন্ত গাওয়া ঘিতে ফেলা হয়। তারপর দানাগুলি কড়া করে ভেজে ছাঁকনি দিয়ে ছেঁকে তুলে চিনির রসে রাখা হয়।[৪]

জনপ্রিয়তা[সম্পাদনা]

সুকুমার রায়ের কিশোর সাহিত্যে পাগলা দাশুর গল্পে মিহিদানার উল্লেখ আছে। বিখ্যাত কৌতুকাভিনেতা নবদ্বীপ হালদারের কৌতুকগীতি শরীরটা আজ বেজায় খারাপ-এ তিনি গেয়েছেন[৬]-

বাগবাজারের রসগোল্লা, ভীম নাগের সন্দেশ
বর্ধমানের সীতাভোগ মিহিদানা দরবেশ

রজনীকান্ত সেন ১৯০৫ খ্রিস্টাব্দে প্রকাশিত কল্যাণী কাব্যগ্রন্থের ঔদারিক গানে বাংলার বিভিন্ন প্রকার মিষ্টান্নের উল্লেখ করেছেন। ঔদারিক গানে মিহিদানার উল্লেখ পাওয়া যায়[৭]-

যদি, কুমড়োর মত, চালে ধ’রে র’ত,

পান্‌‌তোয়া শত শত;
আর, সরষের মত, হ’ত মিহিদানা
বুঁদিয়া বুটের মতো!

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. চক্রবর্তী, সুজয় (১৮ এপ্রিল ২০১৪)। "মিহিদানা, সীতাভোগের দেশে"সকালের বার্তা। কলকাতা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ আগষ্ট ২০১৪ 
  2. ক্ষেত্রী, রায়না (১১ এপ্রিল ২০১৪)। "Mishti Mookh: The Unknown Bengali Sweets"timescity.com। সংগ্রহের তারিখ ৩০ আগষ্ট ২০১৪ 
  3. চক্রবর্তী, সুপ্রকাশ (২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৪)। "চাখার আগে চোখে পড়ুক মোয়া-মিহিদানা, চান মমতা"আনন্দবাজার পত্রিকা। কলকাতা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ আগষ্ট ২০১৪ 
  4. সরকার, ইন্দ্রনীল (২৮ ডিসেম্বর ২০১৩)। "Sweets of Burdwan set for global plate"দ্য টেলিগ্রাফ (ইংরাজি ভাষায়)। কলকাতা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ আগষ্ট ২০১৪ 
  5. মজুমদার, জয়দীপ (১৫ জানুয়ারি ২০০৭)। "Sita's Sweet Tooth"আউটলুক (ইংরাজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৩০ আগষ্ট ২০১৪ 
  6. দাস, অশোক। "ফ্যাণ্ডা ফ্যাচাং তরকারি"গণশক্তি। কলকাতা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগষ্ট ২০১৪ 
  7. India., Milan Sengupta; srimilansengupta@yahoo.co.in; 20 Lake East 2nd Road, Kolkata 700075,। "জনীকান্ত সেন গান ও কবিতা মিলনসাগর Rajanikanta Sen songs Poetry MILANSAGAR"www.milansagar.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৭-২৯