রায়তা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
রায়তা
Raita with cucumber and mint.jpg
শসা ও পুদিনা রায়তা
অন্যান্য নামরাইতা, रायता
পচড়ি
প্রকারচাটনি
উৎপত্তিস্থলভারতীয় উপমহাদেশ
অঞ্চল বা রাজ্যভারতীয় উপমহাদেশ আঞ্চলিক বৈচিত্র্য
সংশ্লিষ্ট জাতীয় রন্ধনশৈলীভারত, বাংলাদেশ, পাকিস্তান, নেপাল
পরিবেশনঠাণ্ডা
প্রধান উপকরণদই , ঘোল, শসা, পুদিনা
ভিন্নতাদহি চাটনি, পাচাদি
খাদ্য শক্তি
(প্রতি পরিবেশনায়)
৪৬ kcal (১৯৩ কেজি)
রন্ধনপ্রণালী: রায়তা  মিডিয়া: রায়তা

রায়তা ভারতীয় উপমহাদেশে উদ্ভব একটি চাটনীর সাধারণ নাম, এটি দইয়ের সঙ্গে কাঁচা বা রান্না করা শাকসবজি, কখনো কখনো ফল বা (বুন্দী রায়তার ক্ষেত্রে) বেসন (সাধারণত ছোলা ময়দা হিসাবে পরিচিত) দিয়ে তৈরি ভাজা পিটালির ফোঁটা দিয়ে তৈরি করা হয়।

পশ্চিমা খাবারে এর সবচেয়ে কাছাকাছি পদ হল সাইড ডিশ বা ডিপ কিংবা রান্না করা সালাদ। এটি প্রায়শই একটি মশলা হিসাবে উল্লেখ করা হয়, তবে লবণ, মরিচ, সরিষা এবং ঘোড়ার বাদামের মতো ঐতিহ্যবাহী পশ্চিমা মশালাগুলো খাবারকে আরও মশলাদার করে তোলে কিন্তু দাহী বা রায়তা মশলাদার তরকারি এবং কাবাবে শীতল আমেজ প্রদান করে। ভারতীয় খাবারে রায়তা, চাটনি এবং আচারের সাথে এক ধরনের চ্যাপ্টারুটি খাওয়া হয়।

এই দই ধনে, ভুনা জিরা, পুদিনা, লাল মরিচ, চাট মশলা এবং অন্যান্য ভেষজ ও মশলা দিয়ে পাকানো যেতে পারে।

ব্যাকরণ[সম্পাদনা]

রায়তা শব্দটি প্রথম ১৯শ শতকের দিকে প্রকাশিত হয়েছিল; এটি হিন্দি ভাষা থেকে এসেছে।[১] রায়তা শব্দটি বাংলা ভাষা এবং হিন্দুস্থানী একটি তৎসম শব্দ। মূল সংস্কৃত শব্দ রাজিকা, যার অর্থ কালো সরিষা, এবং তিক্তক, অ তীব্র কটু[২] দক্ষিণ ভারতে বিশেষ করেকেরালা এবং তামিল নাড়ুতে প্রথাগত রায়তাকে বলা হয় পচড়

রায়তাকে এছাড়াও বিশেষ করে কখনো কখনো কেবল দই, বা "সৌর্মিক" নামে ডাকা হয় (দক্ষিণ আফ্রিকার ভারতীয় রন্ধনপ্রণালীতে)।

প্রস্তুতি[সম্পাদনা]

পুলাও বোঁদি রায়তা দিয়ে পরিবেশন করেছেন

জিরা (zīrā  এবং কালো সরিষা (rāī ) ভাজা হয়। এই ফোঁড়ন পরে কিমা করা, কাঁচা শাকসবজি বা ফল (যেমন: শসা, পেঁয়াজ, গাজর, আনারস, পেঁপে) এবং দইয়ের সঙ্গে মিশ্রিত করা হয়।[৩]

কাঁচা আদা এবং রসুনের ভর্তা , কাঁচা মরিচের ভর্তা এবং কখনও কখনও সরিষার ভর্তা এর স্বাদকে সমৃদ্ধ করতে ব্যবহৃত হয়।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

ভারতের বিভিন্ন রায়তা অঞ্চলভেদে পরিবর্তিত হয়, বেশিরভাগ উল্লেখযোগ্য রায়তা হল ভাঁটি রাইঠা — ভাজা বেসনের ক্ষুদ্র বল (ছোলা ময়দা) এতে নোনা বা কটু (মশলাদার) স্বাদ পাওয়া যায় এবং পেঁয়াজ রায়তা, সবজি রায়তা। মিশ্রণটি ঠাণ্ডা পরিবেশন করা হয়। মশলাদার ভারতীয় খাবার খাওয়ার সময় রায়তা তালু ঠান্ডা করতে পারে।[৪]

রায়তা রেসিপিগুলোর জনপ্রিয় কয়েকটি জাতের মধ্যে রয়েছে ওকড়া রায়তা, টমেটো - পেঁয়াজ- সবুজ মরিচ রায়তা, বিটরুট রায়তা এবং পেয়ারা রায়তা। কিছু রায়তার উপরে কাটা ধনিয়া পাতা দেয়া হয়। আনারসের মতো ফল থেকে তৈরি রায়তা সাধারণত মিষ্টি হয়।[৫] রায়তা মশলাদার আলু পরোটার সাথেও পরিবেশন করা হয়।[৬]

পচড়ি[সম্পাদনা]

পচড়ি রায়তার দক্ষিণ ভারতীয় প্রকরণ।

প্রকার[সম্পাদনা]

বাসন্তী পেঁয়াজ রায়তা
বোঁদে রায়তা
ডালিম রায়তা

রায়তা তিনটি প্রধান উপাদান দিয়ে প্রস্তুত করা যেতে পারে: শাকসবজি, ডাল এবং ফল। এগুলো দই মিশিয়ে এবং বিভিন্ন মৌসুমী ফল দিয়ে বিভিন্ন ধরনের স্্বাদ দেয়াা হয়।[৭]

শাকসবজি রায়তা[সম্পাদনা]

  1. পেঁয়াজ ধনিয়া বাসন্তী পেঁয়াজ রায়তা
  2. টমেটো পিঁয়াজ রায়তা
  3. শসা রায়তা
  4. গাজর রায়তা
  5. কুমড়ো রায়তা
  6. আলু রায়তা
  7. পুদিনা ও চিনাবাদাম রায়তা
  8. পালং রাইত
  9. শিং লাগানো তরমুজ রায়তা
  10. বিটরুট রায়তা
  11. লাউ রায়তা
  12. বেগুন রায়তা

প্রয়ানী রায়তা[সম্পাদনা]

  1. প্রানী রায়তা (বিভিন্ন স্বাদ) (এটি একটি বাণিজ্যিক পণ্য, এবং উদ্ভিজ্জ রায়তার সংস্করণ নয়)

ডালজাতীয় রায়তা[সম্পাদনা]

  1. অঙ্কুরিত সবুজ মুুগ রায়তা
  2. বোঁদে রায়তা
  3. ভুজিয়া সেভ রায়তা

ফলের রায়তা[সম্পাদনা]

  1. কলা রায়তা
  2. আমের রায়তা
  3. পেয়ারা রায়তা
  4. আঙুর রায়তা
  5. আনারস রায়তা
  6. ডালিম রায়তা
  7. নাশপাতি রায়তা

পরিবেশন পদ্ধতি[সম্পাদনা]

সহপদ হিসাবে[সম্পাদনা]

রায়তাকে মূল পাশের খাবারের সাথে খাওয়ার জন্য সহপদ হিসাবে পরিবেশন করা হয়। [৭]

সস হিসাবে (গতানুগতিক নয়)[সম্পাদনা]

ড্রেসিং হিসাবে (প্রচলিত নয়)[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Sedgwick, Fred (২০০৯)। Where words come from: A dictionary of word origins। Continuum International Publishing group। আইএসবিএন 9781847062741 
  2. "Raita"। Merriam Webster। 
  3. Mehta Gambhir, Aloka (২৫ মে ২০১১)। "Tandoori chicken with Tomato Raita"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জানুয়ারি ২০১২ 
  4. American Dietetic Association (২০০৯)। Cultural Food Practices। American Dietetic Associat। পৃষ্ঠা 244। আইএসবিএন 9780880914338 
  5. Basic Food Preparation (Third Edition)। Department Of Food And Nutrition, Usha Raina Orient Longman। পৃষ্ঠা 248। আইএসবিএন 81-250-2300-3 
  6. Shraddha Varma। "Raita Recipes with Biryanis and Parathas"। Livingfoodz.com। 
  7. Basic Food Preparation (Third Edition)। Orient Longman Private limited। ১৯৮৬। আইএসবিএন 81-250-2300-3 

বাহ্যিক লিঙ্কগুলো[সম্পাদনা]

প্রবেশদ্বার আইকনখাদ্য প্রবেশদ্বার

পুদিনা (পুদিনা) রায়তা