বরিশাল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বরিশাল
বাকলা, চন্দ্রদ্বীপ, বাকেরগঞ্জ
মহানগরী
বরিশাল
বরিশালের স্কাইলাইন
ডাকনাম: বাংলার ভেনিস
বরিশাল বরিশাল বিভাগ-এ অবস্থিত
বরিশাল
বরিশাল
বরিশাল বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
বরিশাল
বরিশাল
বরিশাল এশিয়া-এ অবস্থিত
বরিশাল
বরিশাল
বরিশাল পৃথিবী-এ অবস্থিত
বরিশাল
বরিশাল
বাংলাদেশের বরিশালের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২২°৪৮′০″ উত্তর ৯০°৩০′০″ পূর্ব / ২২.৮০০০০° উত্তর ৯০.৫০০০০° পূর্ব / 22.80000; 90.50000
দেশবাংলাদেশ
বিভাগবরিশাল বিভাগ
জেলাবরিশাল জেলা
পৌরসভা প্রতিষ্ঠা১৮৭৬
সিটি কর্পোরেশন প্রতিষ্ঠা২০০২
শহর বা সিটি হিসাবে মর্যাদা প্রাপ্তি২০০৩
সরকার
 • ধরনবরিশাল সিটি কর্পোরেশন
 • মেয়রসেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ
আয়তন
 • পৌর এলাকা৫৮ বর্গকিমি (২২ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)সালের আদমশুমারি অনুযায়ী
 • মহানগরী২৩ লক্ষ ৭৭১ জন (পুরুষ ১১ লক্ষ ২৮ হাজার ৫৭ জন মহিলা ১১ লক্ষ ৭২ হাজার ৭১৪ জন)
 • জনঘনত্ব১,০৫৭/বর্গকিমি (২,৭৪০/বর্গমাইল)
 • মহানগর২,১০,৩৭৪
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড৮২০০
কলিং কোড০৪৩১
ওয়েবসাইটঅফিসিয়াল ওয়েবসাইট

বরিশাল বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের একটি প্রধান শহর। এটি বরিশাল বিভাগের অন্তর্গত ও একই সাথে জেলা ও বিভাগীয় সদর দপ্তর। কীর্তনখোলা নদীর তীরে মোগল আমলে স্থাপিত লবণচৌকি গিরদে বন্দর কে কেন্দ্র করে এ শহর গড়ে ওঠে ও ১৮০১ সালে বরিশালে তৎকালীন বাকেরগঞ্জ জেলার সদর দপ্তর স্থাপিত হলে, শহর হিসেবে এর ব্যাপক গুরুত্ব বাড়ে। দেশের খাদ্যশস্য উৎপাদনের একটি মূল উৎস এই বৃহত্তর বরিশাল। বরিশালে একটি নদীবন্দর রয়েছে যেটি দেশের অন্যতম প্রাচীন, দ্বিতীয় বৃহত্তম ও গুরুত্বপূর্ণ একটি নদীবন্দর।

নামকরণ[সম্পাদনা]

বরিশাল নামকরণ সম্পর্কে বিভিন্ন মতভেদ রয়েছে। এক কিংবদন্তি থেকে জানা যায় যে, পূর্বে এখানে খুব বড় বড় শাল গাছ জন্মাতো, আর এই বড় শাল গাছের কারণে (বড়+শাল) বরিশাল নামের উৎপত্তি। খাল বিল জলাভূমিতে ভরা বরিশালে যাতায়াতের অসুবিধাকে মাথায় রেখে চালু হয়েছে কথা আইতে শাল যাইতে শাল, তার নাম বরিশাল[১] কেউ কেউ দাবি করেন, পর্তুগীজ বেরি ও শেলির প্রেমকাহিনীর জন্য বরিশাল নামকরণ করা হয়েছে। অন্য এক কিংবদন্তি থেকে জানা যায় যে, গিরদে বন্দরে (গ্রেট বন্দর) ঢাকার নবাবদের বড় বড় লবণের গোলা ও চৌকি ছিল। ইংরেজ ও পর্তুগীজ বণিকরা বড় বড় লবণের চৌকিকে 'বরিসল্ট' বলতো। অথাৎ বরি (বড়)+ সল্ট(লবণ)= বরিসল্ট। আবার অনেকের ধারণা এখানকার লবণের দানাগুলো বড় বড় ছিল বলে 'বরিসল্ট' বলা হতো । পরবর্তিতে বরিসল্ট শব্দটি পরিবর্তিত হয়ে বরিশাল নামে পরিচিতি লাভ করে।

ভৌগোলিক সীমারেখা[সম্পাদনা]

বরিশাল জেলা ২১ ডিগ্রি থেকে ২৩ ডিগ্রি উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৯ ডিগ্রি থেকে ৯১ ডিগ্রি পূর্ব দ্রাঘিমায় অবস্থিত। বরিশাল শহর এর আয়তন ৯৩.৬৩ বর্গ কিমি।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

বরিশাল মেট্রোপলিটন শহরে বসবাসরত জনসংখ্যা ২১০,৩৭৪ জন। মহানগরীয় অঞ্চলে বসবাসরত জনসংখ্যা ৩,৮৫৩,০৯৩ জন। মোট জনসংখ্যার ৫৩.২৮% পুরুষ এবং নারী ৪৬.৭২%। বরিশালের মোট জনসংখ্যার ৯০.৬৪% মুসলিম, ৮.৩৮% হিন্দু, খ্রিষ্টান ০.৯৮%। মসজিদ এর সংখ্যা ১৫০, চার্চ এর সংখ্যা ৫, মন্দিরের সংখ্যা ২০-র উপর।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

প্রকাশনা[সম্পাদনা]

দৈনিক দক্ষিণাঞ্চল, দৈনিক পল্লী অঞ্চল, দৈনিক শাহনামা, দৈনিক বাংলার বনে, দৈনিক আজকের বার্তা, দৈনিক আজকের পরিবর্তন, দৈনিক মতবাদ, দৈনিক সত্য সংবাদ, দৈনিক বরিশাল বার্তা, দৈনিক ভোরের অঙ্গিকার, দৈনিক বরিশাল প্রতিদিন, দৈনিক বিপ্লবী বাংলাদেশ, দৈনিক আজকের বরিশাল, দৈনিক বরিশালের ভোরের আলো, দৈনিক বরিশালের আজকাল, দৈনিক কলমের কণ্ঠ, বরিশাল ক্রাইম নিউজ, দৈনিক সময়ের বার্তা।

সাপ্তাহিকীর / সাময়িকী

বাকেরগঞ্জ পরিক্রমা, চিরন্তন বাংলা, উপকূল।

উল্লেখযোগ্য স্থান ও স্থাপনা[সম্পাদনা]

উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. পবিত্র কুমার গুপ্ত (২০০০)। পূণ্যক্ষেত্র হরিহর ক্ষেত্রে। কলকাতা: স্বদেশ চর্চা কেন্দ্র। পৃষ্ঠা ১৯। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]