তারকেশ্বর সেনগুপ্ত

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
তারকেশ্বর সেনগুপ্ত
Shaheed Tarakeswar Sengupta (421070924).jpg
শহীদ তারকেশ্বর সেনগুপ্তের আবক্ষ মূর্তি
জন্ম১৫ই এর্পিল ১৯০৫
গ্রামঃ গৈলা,উপজিলাঃ আগৈলঝাড়া,জিলাঃ বরিশাল,ব্রিটিশ ভারত
(এখন বাংলাদেশ)
মৃত্যু১৬ই সেপ্টেম্বর ১৯৩১
জাতীয়তাভারতীয়
পরিচিতির কারণভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামী

তারকেশ্বর সেনগুপ্ত (১৫ এপ্রিল ১৯০৫ - ১৬ সেপ্টেম্বর ১৯৩১) ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনকারীচট্টগ্রাম অস্ত্রাগার লুন্ঠনের অন্যতম কর্মী। তিনি সূর্য সেন এর বিপ্লবী দলের সদস্য ছিলেন।[১]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

তারকেশ্বর সেনগুপ্ত ১৯০৫ খ্রিষ্টাব্দের ১৫ এপ্রিল ব্রিটিশ ভারতের, বরিশাল জেলার গাইলা গ্রামে মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম হরিচরণ সেনগুপ্ত। তার পারিবারিক পরিবেশে দেশপ্রেমের ধারণা নিয়ে তিনি অনুপ্রাণিত হয়ে ছিলেন। ১৯২৪ সালে গৈলা স্কুল থেকে ম্যাট্রিক পরীক্ষায় উত্তীর্ন হন ও ১৯২৬ খ্রি. বরিশাল ব্রজমোহন কলেজ থেকে আই.এ. পরীক্ষা দেন কিন্তু অকৃতকার্য হন।[২]

বিপ্লবী কর্মকান্ড[সম্পাদনা]

তারকেশ্বর সেনগুপ্ত ছিলেন একজন বিপ্লবী সমাজকর্মী। তিনি গাইলা শাখার যুগান্তর গ্রুপের সাথে যুক্ত ছিলেন। ১৯২৫ সালে তিনি শঙ্কর মঠ এবং গাইলা সেবাশ্রমের সাথে যুক্ত হন। ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনে যোগ দিয়ে গ্রেফতার হন এবং কয়েক মাসের জন্য কারাবাস ভোগ করেন। তিনি লবণ সত্যাগ্রহ আন্দোলনে যোগ দেন এবং আবার ডি.আই শাসনে গ্রেফতার হন। তাকে হিজলি কারাগারে পাঠান হয়।[৩]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

১৯৩১ খ্রিষ্টাব্দের ১৬ই সেপ্টেম্বর হিজলি ডিটেনশন ক্যাম্পে তারকেশ্বর সেনগুপ্ত ও তার অন্য সাথী সন্তোষ কুমার মিত্রকে পুলিস গুলি করে হত্যা করেন।[২][৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "IIT revival pill for historic Hijli Jail"। সংগ্রহের তারিখ ১১ ডিসেম্বর ২০১৭ 
  2. "তারকেশ্বর সেনগুপ্ত"barisalpedia.net.bd। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭ 
  3. Vol - I, Subodh S. Sengupta & Anjali Basu (2002). Sansad Bangali Charitavidhan (Bengali). Kolkata: Sahitya Sansad. p. 559. 
  4. "Historical site"। সংগ্রহের তারিখ ১১ ডিসেম্বর ২০১৭