তালতলী উপজেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
তালতলী
উপজেলা
তালতলী বরিশাল বিভাগ-এ অবস্থিত
তালতলী
তালতলী
তালতলী বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
তালতলী
তালতলী
বাংলাদেশে তালতলী উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২২°০′৫.২৫৬″ উত্তর ৯০°০′১০.৬২০″ পূর্ব / ২২.০০১৪৬০০০° উত্তর ৯০.০০২৯৫০০০° পূর্ব / 22.00146000; 90.00295000স্থানাঙ্ক: ২২°০′৫.২৫৬″ উত্তর ৯০°০′১০.৬২০″ পূর্ব / ২২.০০১৪৬০০০° উত্তর ৯০.০০২৯৫০০০° পূর্ব / 22.00146000; 90.00295000 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ  বাংলাদেশ
বিভাগ বরিশাল বিভাগ
জেলা বরগুনা জেলা
আয়তন
 • মোট ২৫৮.৯৪ কিমি (৯৯.৯৮ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট ৮৮,০০৪
স্বাক্ষরতার হার
 • মোট %
সময় অঞ্চল বিএসটি (ইউটিসি+৬)
ওয়েবসাইট প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

তালতলী উপজেলা বাংলাদেশের বরগুনা জেলার একটি প্রশাসনিক এলাকা। এটি এই জেলার সর্বশেষ উপজেলা। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুসারে ০৬/০৫/২০১০ তারিখে আমতলী উপজেলা ভেঙ্গে তালতলীকে উপজেলা হিসাবে ঘোষনা করা হয়।[১]

অবস্থান ও আয়তন[সম্পাদনা]

২৫৮.৯৪ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের এই উপজেলার পশ্চিমে বুড়িশ্বর নদীবরগুনা সদর উপজেলা, পূর্বে আন্ধারমানিক নদীপটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলা, দক্ষিণে টেংরাগিরি বনবঙ্গোপসাগর এবং উত্তরে কচুপাত্রাপচাঁকোড়ালিয়া নদীআমতলী উপজেলা[১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

জনসংখ্যা উপাত্ত[সম্পাদনা]

২০১১ সালের আদমশুমারী অনুযায়ী এখানকার লোকসংখ্যা ৮৮,০০৪ জন; যাদের ৪৩,৭০৭ জন পুরুষ ও ৪৪,২৯৭ জন মহিলা। এখানকার জনঘনত্ব ঘনত্ব প্রতি বর্গ কিলোমিটারে ৫৪১ জন। এখানে মোট ভোটার সংখ্যা ৫৭,৭৮২ জন; যার মধ্যে পুরুষ ভোটার ২৮,৫৩৮ জন ও মহিলা ভোটার ২৯,২৪৪ জন।

প্রশাসনিক বিন্যাস[সম্পাদনা]

  • থানা - ১ টি;
  • ইউনিয়ন - ৭ টি; এগুলো হলোঃ * পঁচাকোড়ালিয়া, * ছোটবগী, * কড়ইবাড়ীয়া, * শারিকখালী, * বড়বগী, * নিশানবাড়ীয়া এবং * সোনাকাটা।[২]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

  • কলেজ - ২ টি;
  • মাধ্যমিক বিদ্যালয় - ০৯ টি;
  • প্রাথমিক বিদ্যালয় - ৭০ টি;
  • মাদরাসা - ১২টি।

স্বাস্থ্য[সম্পাদনা]

এখানে ২০ শয্যা বিশিষ্ট একটি সরকারী হাসপাতাল রয়েছে। এছাড়াও ১ টি বেসরকারী ক্লিনিকও আছে।

কৃষি[সম্পাদনা]

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

  • হাট-বাজার - ১৩ টি।

দর্শনীয় স্থানসমূহ[সম্পাদনা]

সমুদ্রের তীরবতী হওয়ায় তলতলী প্রকৃতিকভাবেই সমৃদ্ধ। এখানে রয়েছেঃ সৃজিত বন, আশার চর, ফাতরার বন, সোনাকাটা সমুদ্র সৈকত, রাখাইন পল্লী ইকোপার্ক প্রভৃতি।

যোগাযোগ ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

প্রধানতঃ সড়ক পথ এবং নদী পথে যোগাযোগ ব্যবস্থা আছে।

কৃতী ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

বিবিধ[সম্পাদনা]

  • আশ্রয়ণ প্রকল্প - ৫ টি;
  • ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় - কেন্দ্র ৪৮ টি।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন, ২০১৪)। "তালতলী উপজেলার পটভূমি"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুন ২০১৪  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  2. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন, ২০১৪)। "ইউনিয়ন সমূহ"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুন ২০১৪  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

  • {{বাংলাপিডিয়া}} টেমপ্লেটে আইডি অনুপস্থিত ও উইকিউপাত্তেও তা উপস্থিত নেই।