শম্ভুগঞ্জ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
শম্ভুগঞ্জ
শহরাঞ্চল
Sombhugongh Monument.JPG
Inauguration board in Shambuganga bridge Mymensingh.JPG
Mymensingh-Shombhugunj bridge.JPG
উপর থেকে ঘড়ির কাঁটার দিক অনুসারে
মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধ, শম্ভুগঞ্জ সড়ক সেতুর দৃশ্য এবং সেতুর উদ্বোধনী ফলক
বাংলাদেশের মানচিত্রে অবস্থান
বাংলাদেশের মানচিত্রে অবস্থান
শম্ভুগঞ্জ
বাংলাদেশের মানচিত্রে অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°৪৫′৪৫″ উত্তর ৯০°২৭′০৩″ পূর্ব / ২৪.৭৬২৬৩৬° উত্তর ৯০.৪৫০৮৭১° পূর্ব / 24.762636; 90.450871স্থানাঙ্ক: ২৪°৪৫′৪৫″ উত্তর ৯০°২৭′০৩″ পূর্ব / ২৪.৭৬২৬৩৬° উত্তর ৯০.৪৫০৮৭১° পূর্ব / 24.762636; 90.450871
দেশবাংলাদেশ
বিভাগময়মনসিংহ
জেলাময়মনসিংহ
সিটি কর্পোরেশনময়মনসিংহ
ওয়ার্ড২০ নং ওয়ার্ড[১]
শম্ভুগঞ্জ রেলওয়ে সেতু উদ্বোধন১৯১৫
সময় অঞ্চলবাংলাদেশ সময় (ইউটিসি+০৬:০০)
পোস্ট কোড২২০৩

শম্ভুগঞ্জ বাংলাদেশের উত্তর-মধ্যাঞ্চলের ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের অন্তর্ভুক্ত একটি শহরাঞ্চল। এটি ব্রহ্মপুত্র নদের অপর পাড়ে অবস্থিত। শম্ভুগঞ্জ সেতুর মাধ্যমে এটি ময়মনসিংহ শহরের বাকি অংশের সাথে যুক্ত। শম্ভুগঞ্জ ময়মনসিংহ থেকে কিশোরগঞ্জ ও নেত্রকোণা যাতায়াতের প্রধান সড়কের সংযোগস্থলে অবস্থিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯১৫ সালে শম্ভুগঞ্জ এলাকায় ব্রহ্মপুত্র নদের ওপর রেলওয়ে সেতু নির্মিত হয়, যা ময়মনসিংহকে ভৈরবের সাথে যুক্ত করে।[২] ১৯৩৩ সালে শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন শম্ভুগঞ্জ সেতুকে কেন্দ্র করে “শম্ভুগঞ্জ ব্রিজ” শিরোনামে দুইটি চিত্র আঁকেন, যা জয়নুল আবেদিন সংগ্রহশালায় সংরক্ষিত আছে।[৩] ১৯৯২ সালের ১ জানুয়ারি শম্ভুগঞ্জ এলাকায় সড়ক সেতু চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয়।[৪]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ময়মনসিংহ সিটির ২০ নং ওর্য়াড শম্ভূগঞ্জ"। ভিওয়াইম্যাপস। সংগ্রহের তারিখ ৪ আগস্ট ২০২০ 
  2. "শতবর্ষী রেলসেতুটি ঝুঁকিপূর্ণ"। প্রথম আলো। ২২ জানুয়ারি ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ৪ আগস্ট ২০২০ 
  3. আল মামুন খান, এম.আব্দুল্লাহ আল (২৮ মে ২০১৩)। "বেহাল দশায় জয়নুল সংগ্রহশালা: হদিস নেই ৭ চিত্রকর্মের"। বাংলানিউজ২৪। সংগ্রহের তারিখ ৪ আগস্ট ২০২০ 
  4. "২৭ বছরেও বন্ধ হয়নি শম্ভুগঞ্জ সেতুর টোল আদায়"। বৈশাখী অনলাইন। ৩১ জানুয়ারি ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ৪ আগস্ট ২০২০