বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়
Barishal-university-logo.jpg
লাতিন: University of Barisal
ধরন সরকারী বিশ্ববিদ্যালয়
স্থাপিত ২০১১
আচার্য রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ
উপাচার্য প্রফেসর ডঃ এস এম ইমামুল হক
শিক্ষার্থী ৪৯২৫
অবস্থান বরিশাল, বাংলাদেশ
শিক্ষাঙ্গন উপশহর
সংক্ষিপ্ত নাম ববি / BU
অধিভুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন
ওয়েবসাইট www.barisaluniv.edu.bd

[[File:Barisal University Campus, Bangladesh.jpg|thumb|450px| বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের বরিশাল বিভাগে অবস্থিত অন্যতম একটি উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং দেশের ৩৩ তম সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়।[১] বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ২০১২ সালের ২৫ জানুয়ারি থেকে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয়।

অবস্থান[সম্পাদনা]

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় মুল ক্যাম্পাস বরিশাল বিভাগের কীর্তনখোলা নদীর পূর্ব তীরে কর্ণকাঠিতে অবস্থিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

BU Campus
বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রবেশদ্বার
একাডেমিক ভবন থেকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণ
একাডেমিক ভবন
মহাসড়ক থেকে বিশ্ববিদ্যালয়
বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের রাতের দৃশ্য
বিশ্ববিদ্যালয় বাসসমূহ
শিক্ষার্থীদের দোতলা বাস
বঙ্গবন্ধু হল
শেখ হাসিনা হল

১৯৬০ সালে প্রথম বাংলাদেশ স্বাধীনতার আগে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের চাহিদা তৈরি হয়। ১৯৭৩ সালে একটি শহর সমাবেশ অনুষ্ঠিত হওয়ার সময় তত্কালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ মুজিবুর রহমান ঘোষনা করেন, বরিশালে একটি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন যা আকাঙ্ক্ষিত ছিল তার। রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ১৯৭৮ সালে বরিশাল সার্কিট হাউস মধ্যে একটি সমাবেশে একটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার আকাঙ্ক্ষা প্রকাশ করেন। তিন দশক পরে বরিশাল মানুষের শক্তিশালী চাহিদা থেকে নভেম্বর ২৯, ২০০৮ ECNEC (Executive Committee of National Economic Council) এই প্রস্তাব পাশ করে, তারপর তত্ত্বাবধায়ক সরকার দ্বারা। ২২ নভেম্বর, ২০১১, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভবনের নির্মাণ শুরু করেন। বরিশাল জিলা স্কুল অস্থায়ী ক্যাম্পাসে ২৫ জানুয়ারী, ২০১২ সালে বেলা পৌনে ১১টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে শিক্ষা মন্ত্রী নুরুল ইসলাম এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাগত কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। মুল ক্যাম্পাস ২০১৩ সালে কীর্তনখোলা নদীর পূর্ব তীরে সদর উপজেলার কর্ণকাঠিতে নির্ধারিত হয়। কীর্তনখোলা নদীর তীরে কর্ণকাঠি এলাকায় রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টির পূর্ণাঙ্গ ক্যাম্পাস যেখানে সকল বিভাগের শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

অনুষদ ও বিভাগ সমূহ[সম্পাদনা]

২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের জন্য ক্লাস শুরু হয় ২০১২ সালের ২৫ জানুয়ারী; ছয়টি বিষয় নিয়েঃ

  1. ব্যবস্থাপনা
  2. বিপনন
  3. ইংরেজি
  4. অর্থনীতি
  5. সমাজবিজ্ঞান
  6. গণিত

বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ৬টি অনুষদের অধীনে ১৮টি বিভাগ রয়েছে।

জীববিজ্ঞান ও কৃষি অনুষদ[সম্পাদনা]

  • সয়েল এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৮০ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.এসসি. সম্মান),
  • বোটানি এন্ড ক্রপ সায়েন্স বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৮০ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.এসসি. সম্মান)।

বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদ[সম্পাদনা]

  • গণিত বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৮০ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.এসসি. সম্মান),
  • কম্পিউটার সায়েন্স এবং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৫০ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.এসসি. সম্মান)।
  • রসায়ন বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৮০ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.এসসি. সম্মান),
  • পদার্থবিজ্ঞান বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৮০ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.এসসি. সম্মান)।
  • জিওলজি এন্ড মাইনিং বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৬০ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.এসসি. সম্মান)।

কলা এবং মানবিক অনুষদ[সম্পাদনা]

  • বাংলা বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৭০ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.এসসি. সম্মান),
  • ইংরেজি বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৭০ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.এসসি. সম্মান)।

সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ[সম্পাদনা]

  • অর্থনীতি বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৭০ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.এ. সম্মান),
  • লোক প্রশাসন বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৭০ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.এ. সম্মান),
  • রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৭০ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.এ. সম্মান),
  • সমাজ বিজ্ঞান বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৭০ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.এ. সম্মান)।

ব্যবসা শিক্ষা অনুষদ[সম্পাদনা]

  • ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৭৫ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.বি.এ. সম্মান),
  • মার্কেটিং বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৭৫ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.বি.এ. সম্মান),
  • ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৭৫ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.বি.এ. সম্মান),
  • একাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৭৫ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ বি.বি.এ. সম্মান)।

আইন অনুষদ[সম্পাদনা]

  • আইন বিভাগ (আসন সংখ্যাঃ ৭০ এবং প্রদত্ত ডিগ্রীঃ এল.এল.বি. সম্মান),


শহরের পাশে কীর্তনখোলা নদীর তীরে রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টির ক্যাম্পাস অবস্থিত। বর্তমানে ক্যাম্পাসটির আয়তন ৫০ একর। ভবিষ্যতে এ আয়তন আরো বর্ধিত হবে। এখানে সকল বিভাগের শিক্ষা কার্যক্রম চলে। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসটি দপদপিয়া ব্রীজ নামের দুটি দীর্ঘ ধনুকের মত বাঁকা ব্রীজের অভ্যন্তরে অবস্থিত। দুটি ব্রীজেরই প্রান্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে মিশেছে যা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসকে দিয়েছে ভিন্ন মাত্রা। এই ক্যাম্পাসটিতে দুইটি ছাত্র হল, একটি ছাত্রী হল, একটি ক্যাফেটেরিয়া ভবন, একটি লাইব্রেরি ভবন, দুইটি ডরমিটরি, দুইটি একাডেমিক ভবন এবং দুইটি প্রশাসনিক ভবন রয়েছে। এছাড়াও ভিসির বাসভবনসহ রয়েছে কয়েকটি লেক।

আবাসিক হল[সম্পাদনা]

ছাত্র হল[সম্পাদনা]

  1. বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল।
  2. শেরে বাংলা হল

ছাত্রী হল[সম্পাদনা]

  1. শেখ হাসিনা হল।

পরিবহন[সম্পাদনা]

  • বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের যাতায়াতের জন্য রয়েছে ২টি মাইক্রোবাস এবং একটি এয়ার কন্ডিশন্ড বাস।
  • শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের সুবিধার জন্য রয়েছে ৪টি দোতলা বাসসহ রয়েছে মোট ১০টি বাস।

সংগঠন[সম্পাদনা]

রাজনৈতিক[সম্পাদনা]

স্বেচ্ছাসেবী[সম্পাদনা]

  • ৭১ এর চেতনা
  • বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধুসভা
  • বাঁধন
  • হিউম্যান শেড
  • বরিশাল ইউনিভার্সিটি ক্যারিয়ার ক্লাব

বিজ্ঞান[সম্পাদনা]

  • বরিশাল ইউনিভার্সিটি ন্যাচারাল স্টাডি ক্লাব
  • স্পার্কল সায়েন্স ক্লাব
  • বরিশাল ইউনিভার্সিটি আইটি ক্লাব
  • জেমস হাটন সায়েন্স ক্লাব

সাংস্কৃতিক[সম্পাদনা]

  • বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় মুভি ক্লাব
  • বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় টুরিস্ট ক্লাব
  • বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ডিবেটিং সোসাইটি

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

স্থানাঙ্ক: ২২°৩৯′৩৫″উত্তর ৯০°২১′৪৫″পূর্ব / ২২.৬৫৯৬৯১° উত্তর ৯০.৩৬২৩৭১° পূর্ব / 22.659691; 90.362371

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]