গারো ভাষা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
Garo
A·chik (আ·চিক)
দেশোদ্ভব ভারত and বাংলাদেশ
অঞ্চল Meghalaya, Assam, বাংলাদেশ
নৃতাত্ত্বিক Garo
স্থানীয় ভাষাভাষী
এক্সপ্রেশন ত্রুটি: অপরিচিত বিরামচিহ্ন অক্ষর "�"।[১]
উপভাষাসমূহ
  • Am·beng
  • A·we
  • Matchi
  • Dual
  • Gara-Ganching
  • Chisak
প্রাতিষ্ঠানিক মর্যাদা
সরকারি ভাষায়
Meghalaya (India)
ভাষা কোডসমূহ
আইএসও ৬৩৯-৩ grt
গ্লোটোলগ garo1247[২]

গারো ভাষা বা মান্দি ভাষা একটি চীনা-তিব্বতি ভাষা। এটি ভারতের মেঘালয় অঙ্গরাজ্যের গারো পাহাড় এলাকার অধিবাসীদের প্রধান ভাষা। এটি পার্শ্ববর্তী বাংলাদেশেও প্রচলিত। মেঘালয়ের প্রতিবেশী অঙ্গরাজ্যে অসমে প্রচলিত বোড়ো ভাষা-র সাথে এর ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক আছে। গারো ভাষা লাতিন লিপিতে লেখা হয়।

উপভাষা[সম্পাদনা]

গোত্র ভেদে গারোদের মধ্যে আলাদা আলাদা উপভাষার প্রচলন রয়েছে। আচিক উপভাষাটি বাংলাদেশের টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, শেরপুর, নেত্রকোণা এবং ভারতের মেঘালয় অঙ্গরাজ্যে বসবাসরত গারোদের মাতৃভাষা। তাদের নিজস্ব ভাষায় 'আচিক' শব্দের অর্থ পাহাড়। অন্যান্য উপভাষার মধ্যে আছে আবেং, আওয়ে, চিসাক, দাক্কা, গাঞ্চিং, কামরূপ, মাতচি। বাংলাদেশে আবেং উপভাষাটিও প্রচলিত; এই উপভাষার সাথে কোচ ভাষার মিল আছে। বাংলাদেশের গারোরা আবেং উপভাষাতে কথা বললেও আচিক উপভাষাতে লিখে থাকে। আওয়ে উপভাষাটি অসমে প্রচলিত, তবে এখন বিলুপ্তির পথে; সেখানকার গারোরা মান্য গারো ভাষাই ব্যবহার করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. জাতিতত্ত্বিকে (১৮ ইডি., ২০১৫) Garo
  2. নোরধোফ, সেবাস্টিয়ান; হামারস্ট্রাম, হারাল্ড; ফোস্কেল, রবার্ট; হাস্পেলম্যার্থ, মার্টিন, সম্পাদকবৃন্দ (২০১৩)। "Garo"গ্লোটোলগ। লিপজিগ: বিবর্তনীয় নৃতত্ত্বে ম্যাক্স প্লাংক ইনস্টিটিউট। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]