খানখানাবাদ ইউনিয়ন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
খানখানাবাদ
ইউনিয়ন
৩নং খানখানাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ
খানখানাবাদ বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
খানখানাবাদ
খানখানাবাদ
বাংলাদেশে খানখানাবাদ ইউনিয়নের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২২°০৭′ উত্তর ৯১°৫৩′ পূর্ব / ২২.১১৭° উত্তর ৯১.৮৮৩° পূর্ব / 22.117; 91.883স্থানাঙ্ক: ২২°০৭′ উত্তর ৯১°৫৩′ পূর্ব / ২২.১১৭° উত্তর ৯১.৮৮৩° পূর্ব / 22.117; 91.883
দেশ  বাংলাদেশ
বিভাগ চট্টগ্রাম বিভাগ
জেলা চট্টগ্রাম জেলা
উপজেলা বাঁশখালী উপজেলা উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
সরকার
 • চেয়ারম্যান মোহাম্মদ বদরুদ্দীন চৌধুরী
আয়তন
 • মোট ২৬.৫৫ কিমি (১০.২৫ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট ৪২,৩৩২
 • ঘনত্ব ১৬০০/কিমি (৪১০০/বর্গমাইল)
স্বাক্ষরতার হার
 • মোট ৩০.১৭%
সময় অঞ্চল বিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড ৪৩৯৩
ওয়েবসাইট অফিসিয়াল ওয়েবসাইট

খানখানাবাদ বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী উপজেলার অন্তর্গত একটি ইউনিয়ন

আয়তন[সম্পাদনা]

খানখানাবাদ ইউনিয়নের আয়তন ৬৫৬০ একর (২৬.৫৫ বর্গ কিলোমিটার)।[১]

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

২০১১ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী খানখানাবাদ ইউনিয়নের লোকসংখ্যা ৪২,৩৩২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ২২,৮১৫ জন এবং মহিলা ১৯,৫১৭ জন।[২]

অবস্থান ও সীমানা[সম্পাদনা]

বাঁশখালী উপজেলার উত্তর-পশ্চিমাংশে খানখানাবাদ ইউনিয়নের অবস্থান। উপজেলা সদর থেকে এ ইউনিয়নের দূরত্ব প্রায় ১৭ কিলোমিটার। এ ইউনিয়নের দক্ষিণে বাহারছড়া ইউনিয়ন; পূর্বে সাধনপুর ইউনিয়ন; উত্তরে সাঙ্গু নদীআনোয়ারা উপজেলার জুঁইদণ্ডী ইউনিয়ন এবং পশ্চিমে সাঙ্গু নদী, আনোয়ারা উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নবঙ্গোপসাগর অবস্থিত।

নামকরণ[সম্পাদনা]

লোকমুখে জানা যায়, খানখানাবাদ গ্রামের পশ্চিমে আঙরখালী নামে একটি সামুদ্রিক প্রোতাশ্রয় ছিল আরব বনিকরা ঐ স্থানে তাদের জাহাজ নোঙর করে চট্টগ্রাম এলাকায় ব্যবসা করত। এদের মধ্য থেকে খান পদবীধারী এক ব্যবসায়ী বসতি স্থাপন করে। খান বংশ কর্তৃক এই এলাকা আবাদ হওয়ার ফলে গ্রামের নাম খানখানাবাদ হিসাবে পরিচিতি লাভ করে। এখনো এই গ্রামে খান বংশরা বসবাসরত আছেন।

প্রশাসনিক কাঠামো[সম্পাদনা]

খানখানাবাদ ইউনিয়ন বাঁশখালী উপজেলার আওতাধীন ৩নং ইউনিয়ন পরিষদ। এ ইউনিয়নের প্রশাসনিক কার্যক্রম বাঁশখালী থানার আওতাধীন। এ ইউনিয়ন জাতীয় সংসদের ২৯৩নং নির্বাচনী এলাকা চট্টগ্রাম-১৬ এর অংশ। এ ইউনিয়নের গ্রামগুলো হল:

  • কদমরসুল
  • খানখানাবাদ
  • ডোংরা
  • প্রেমাশিয়া
  • রায়ছটা

শিক্ষা ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

খানখানাবাদ ইউনিয়নের স্বাক্ষরতার হার ৩০.১৭%।[১] এ ইউনিয়নে ১টি ফাজিল মাদ্রাসা, ৩টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ২টি দাখিল মাদ্রাসা ও ১৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান[সম্পাদনা]

মাদ্রাসা

[৩]

মাধ্যমিক বিদ্যালয়

[৪]

প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • উত্তর কদমরসুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • উত্তর খানখানাবাদ আবদুস ছালাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • উত্তর প্রেমাশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • উত্তর রায়ছটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • কদমরসুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • খানখানাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • ডোংরা খুপিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • ডোংরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • দক্ষিণ প্রেমাশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • পশ্চিম রায়ছটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • পূর্ব ডোংরা আলতাফ আলী চৌধুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • পূর্ব রায়ছটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • মধ্য কদমরসুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • মধ্য ডোংরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • রায়ছটা সন্দ্বীপপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

[৫]

যোগাযোগ ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

খানখানাবাদ ইউনিয়নে যোগাযোগের প্রধান সড়ক সাধনপুর-খানখানাবাদ সড়ক। প্রধান যোগাযোগ মাধ্যম সিএনজি চালিত অটোরিক্সা।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

খানখানাবাদ ইউনিয়নের অর্থনীতি কৃষি নির্ভর। ধান, বিভিন্ন ধরনের শাকসবজি উৎপন্ন হয় এ অঞ্চলের প্রধান কৃষিজাত ফসল। সিংহভাগ মানুষ বঙ্গোপসাগর থেকে মাছ ধরার কাজে নিয়োজিত এবং প্রবাসী।

খাল ও নদী[সম্পাদনা]

খানখানাবাদ ইউনিয়নের উত্তর-পশ্চিম পাশ দিয়ে সাঙ্গু নদী প্রবাহিত হয়ে বঙ্গোপসাগরে পতিত হয়েছে। এছাড়া পূর্ব সীমান্ত জলকদর খাল।

দর্শনীয় স্থান[সম্পাদনা]

  • খানখানাবাদ সমূদ্র সৈকত
  • কদমরসূল সমূদ্র সৈকত

[৬]

কৃতী ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

  • মৌলভী নজীর আহামদ চৌধুরী; তৎকালীন লিখিল ভারতের কংগ্রেসের প্রভাবশালী সদস্য ও কলকাতা থেকে প্রকাশিত একটি দৈনিক পত্রিকার সম্পাদক ছিলেন। কবি কাজী নজরুল ইসলাম চট্টগ্রামের রাউজান থানায় আসাকালে তিনি সফর সঙ্গী ছিলেন। তিনি জনহিতৈষী একজন জমিদার এবং শিক্ষানুরাগী ছিলেন।
  • আবদুল লতিফ সাহেব; খানখানাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের প্রথম বোর্ড প্রেসিডেন্ট।
  • আবদুল হাকিম মিয়া; প্রাক্তন জমিদার ও ইউনিয়ন বোর্ড প্রেসিডেন্ট।
  • শাহ্ ই জাহান চৌধুরী; বাংলাদেশের প্রথম জাতীয় সংসদের সর্বকনিষ্ঠ সংসদ সদস্য।
  • মাস্টার ফজলুল হক; প্রাক্তন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও কৃতি শিক্ষক।
  • এয়ার মোহাম্মদ; প্রাক্তন জেলা প্রশাসক, খাগড়াছড়ি জেলা ও প্রাক্তন চেয়ারম্যান, চট্টগ্রাম ওয়াসা এবং পশ্চিম বাঁশখালী উপকূলীয় ডিগ্রী কলেজের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা।
  • ডাঃ আবু ইউচুপ চৌধুরী; মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন আনোয়ারা,বাঁশখালী ও কুতুবদিয়া এলাকার বি এল এফ, কমান্ডার ছিলেন এবং পশ্চিম বাঁশখালী উপকূলীয় ডিগ্রী কলেজের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা।
  • মেম্বার হাফেজ আহমদ চৌধুরী; জনহিতৈষী জমিদার
  • মৌলভী আশরাফ আলী (রহ.); আধ্যাত্মিক সাধক ও সমাজ সংস্কারক।
  • হাফেজ নুর আহমদ; সুফী ও যাতা নুরাইন ফাজিল মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা।

জনপ্রতিনিধি[সম্পাদনা]

  • বর্তমান চেয়ারম্যান: মোহাম্মদ বদরুদ্দীন চৌধুরী[৭]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]