গণ্ডামারা ইউনিয়ন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
গণ্ডামারা
ইউনিয়ন
৯নং গণ্ডামারা ইউনিয়ন পরিষদ
গণ্ডামারা বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
গণ্ডামারা
গণ্ডামারা
বাংলাদেশে গণ্ডামারা ইউনিয়নের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২১°৫৮′৭″ উত্তর ৯১°৫৪′১৫″ পূর্ব / ২১.৯৬৮৬১° উত্তর ৯১.৯০৪১৭° পূর্ব / 21.96861; 91.90417স্থানাঙ্ক: ২১°৫৮′৭″ উত্তর ৯১°৫৪′১৫″ পূর্ব / ২১.৯৬৮৬১° উত্তর ৯১.৯০৪১৭° পূর্ব / 21.96861; 91.90417 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগচট্টগ্রাম বিভাগ
জেলাচট্টগ্রাম জেলা
উপজেলাবাঁশখালী উপজেলা উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
সরকার
 • চেয়ারম্যানলেয়াকত আলী
আয়তন
 • মোট২৯.৭২ কিমি (১১.৪৭ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট৪৫,৭৪৮
 • ঘনত্ব১৫০০/কিমি (৪০০০/বর্গমাইল)
স্বাক্ষরতার হার
 • মোট২১.৩৯%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড৪৩৯০ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট Edit this at Wikidata
মানচিত্র

গণ্ডামারা বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী উপজেলার অন্তর্গত একটি ইউনিয়ন

আয়তন[সম্পাদনা]

গণ্ডামারা ইউনিয়নের আয়তন ৭৩৪৩ একর (২৯.৭২ বর্গ কিলোমিটার)।[১]

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

২০১১ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী গণ্ডামারা ইউনিয়নের লোকসংখ্যা ৪৫,৭৪৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ২৩,৫৮৬ জন এবং মহিলা ২২,১৬২ জন।[২]

অবস্থান ও সীমানা[সম্পাদনা]

বাঁশখালী উপজেলার দক্ষিণ-মধ্যাংশে গণ্ডামারা ইউনিয়নের অবস্থান। উপজেলা সদর থেকে এ ইউনিয়নের দূরত্ব প্রায় ১১ কিলোমিটার। এ ইউনিয়নের উত্তরে সরল ইউনিয়ন; পূর্বে শীলকূপ ইউনিয়ন, চাম্বল ইউনিয়নশেখেরখীল ইউনিয়ন; দক্ষিণে ছনুয়া ইউনিয়ন এবং পশ্চিমে বঙ্গোপসাগর অবস্থিত।

নামকরণ[সম্পাদনা]

জনশ্রুতিতে জানা যায়, ১৮৯৬ সালে সমুদ্র উপকূলীয় এলাকায় মামুন আলী মাতব্বর ছিলেন বেশ প্রতাপশালী মাতব্বর। সে সময় হিংস্র বন্যজন্তু গণ্ডার কৃষি জমিতে ব্যাপক ক্ষতি সাধন করত। গণ্ডারের ক্ষতি থেকে কৃষি ক্ষেত রক্ষা ও গণ্ডার চলাচলের নিয়ন্ত্রণ করতে মামুন আলী মাতব্বরের নির্দেশে এলাকাবাসী একটি পরিখা খনন করেন। একদিন চারটি বা এক গণ্ডা গণ্ডার পরিখায় পড়ে মারা যায়। পরিখায় পড়ে গণ্ডার মরে যাওয়ার ঘটনা থেকে এলাকার নামকরণ হয় গণ্ডামারা[৩]

প্রশাসনিক কাঠামো[সম্পাদনা]

গণ্ডামারা ইউনিয়ন বাঁশখালী উপজেলার আওতাধীন ৯নং ইউনিয়ন পরিষদ। এ ইউনিয়নের প্রশাসনিক কার্যক্রম বাঁশখালী থানার আওতাধীন। এটি জাতীয় সংসদের ২৯৩নং নির্বাচনী এলাকা চট্টগ্রাম-১৬ এর অংশ। এটি গণ্ডামারা, চর বড়ঘোনা, আলোকদিয়া, পশ্চিম বড়ঘোনা এবং পূর্ব বড়ঘোনা এ ৫টি মৌজায় বিভক্ত।

শিক্ষা ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

গণ্ডামারা ইউনিয়নের স্বাক্ষরতার হার ৩১.৩৯%।[১] এ ইউনিয়নে ১টি ফাজিল মাদ্রাসা, ২টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ২টি দাখিল মাদ্রাসা ও ১২টি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান[সম্পাদনা]

মাদ্রাসা
মাধ্যমিক বিদ্যালয়

[৪]

প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • উত্তর বড়ঘোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • গণ্ডামারা চরপাড়া আজিজিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • গণ্ডামারা তোরাব অালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • দক্ষিণ বড়ঘোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
৭৪নং দক্ষিণ বড়ঘোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • পশ্চিম গণ্ডামারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • পশ্চিম গণ্ডামারা (২) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • পূর্ব গণ্ডামারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • পূর্ব বড়ঘোনা এমদাদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • পূর্ব বড়ঘোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • বড়ঘোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • মধ্যম বড়ঘোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • মায়মুনা খাতুন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

[৫]

যোগাযোগ ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

গণ্ডামারা ইউনিয়নে যোগাযোগের প্রধান সড়ক জলদী-গণ্ডামারা সড়ক এবং চাম্বল-বড়ঘোনা সড়ক। প্রধান যোগাযোগ মাধ্যম সিএনজি চালিত অটোরিক্সা। জলকদর খালের উপর একটি বেলী সেতু (পশ্চিম চাম্বল-গণ্ডামারা) এবং একটি টোল সেতু (গণ্ডামারা-শীলকূপ) অবস্থিত। এছাড়া খাটখালী ঘাট থেকে নৌ-পথে কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম শহরে যাতায়াত করা যায়।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

গণ্ডামারা ইউনিয়নে ধান, তরমুজ, খিরা, গোল আলু, বেগুন, মরিচ, টমেটোসহ বিভিন্ন দেশীয় সবজি, ফল, মাছ ও লবণ উৎপাদিত হয়। এছাড়াও খাটখালী বাজার দিয়ে বিভিন্ন নৌপণ্য আদান-প্রদান হয়ে থাকে। মৌসুমে অনেক গলদা চিংড়ি, জাতীয় ইলিশ সহ অসংখ্য সামুদ্রিক মাছ এই এলাকার অর্থনীতির হাল ধরে রাখে। তাছাড়া খাটখালী বাজার হতে গণ্ডামারা বাজার পর্যন্ত বঙ্গোপোসাগরের তীরে অসংখ্য পর্যটকদের দেখা মিলে।

খাল ও নদী[সম্পাদনা]

গণ্ডামারা ইউনিয়নের পূর্ব সীমান্ত দিয়ে বয়ে চলেছে জলকদর খাল এবং পশ্চিম দিকে রয়েছে বঙ্গোপসাগর

হাট-বাজার[সম্পাদনা]

গণ্ডামারা ইউনিয়নের প্রধান প্রধান হাট/বাজারগুলো হল খাটখালি বাজার, নতুন মার্কেট (রাহমানিয়া রাস্তার মাথা), বড়ঘোনা সকাল বাজার, গণ্ডামারা বাজার এবং পূর্ব বড়ঘোনা হাব্বানিয়া বাজার।[৬]

দর্শনীয় স্থান[সম্পাদনা]

বড়ঘোনা সী-বিচ
  • বড়ঘোনা সী-বিচ (গণ্ডামারা ইউনিয়নের পশ্চিমে বঙ্গোপসাগরের পাড়ে বিস্তৃত এলাকা জুড়ে গঠিত।
  • ঝাউ বাগান
  • আলক দিয়া (লবন উৎপাদন মাঠ)
  • এস এস পাওয়ার প্ল্যান্ট (কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্প)
  • হযরত কালাই শাহ (রহ.) এর মাজার
  • শ্রী শ্রী সংযোগানন্দ গিরি স্মৃতি মন্দির ও পঞ্চবটী মহাশ্মশান

[৭]

জনপ্রতিনিধি[সম্পাদনা]

  • বর্তমান চেয়ারম্যান: মোহাম্মদ লেয়াকত আলী[২]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]