পাহাড়তলী থানা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
পাহাড়তলী নিবন্ধের সাথে বিভ্রান্ত হবেন না।
পাহাড়তলী
মেট্রোপলিটন থানা
পাহাড়তলী বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
পাহাড়তলী
পাহাড়তলী
বাংলাদেশে পাহাড়তলী থানার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২২°২২′ উত্তর ৯১°৪৬.৫′ পূর্ব / ২২.৩৬৭° উত্তর ৯১.৭৭৫০° পূর্ব / 22.367; 91.7750স্থানাঙ্ক: ২২°২২′ উত্তর ৯১°৪৬.৫′ পূর্ব / ২২.৩৬৭° উত্তর ৯১.৭৭৫০° পূর্ব / 22.367; 91.7750
দেশ  বাংলাদেশ
বিভাগ চট্টগ্রাম
জেলা চট্টগ্রাম
শহর চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন
প্রতিষ্ঠাকাল ৩০ নভেম্বর, ১৯৭৮
আয়তন
 • মোট ৮.৪৪ কিমি (৩.২৬ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট ১,৩২,৩৬৮
 • ঘনত্ব ১৬০০০/কিমি (৪১০০০/বর্গমাইল)
স্বাক্ষরতার হার
 • মোট ৬৭.৯৭%
সময় অঞ্চল বিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড ৪২১৭ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

পাহাড়তলী বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলার একটি মেট্রোপলিটন থানা। এটি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন।

আয়তন[সম্পাদনা]

পাহাড়তলী থানার আয়তন ৮.৪৪ বর্গ কিলোমিটার।[১]

প্রতিষ্ঠাকাল[সম্পাদনা]

১৯৭৮ সালের ৩০ নভেম্বর হাটহাজারী উপজেলার কিছু অংশ এবং আরো ৬টি মেট্রোপলিটন থানা নিয়ে [[চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন গঠিত হয়, তন্মধ্যে অন্যতম পাহাড়তলী থানা।[১]

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

২০১১ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী পাহাড়তলী থানার লোকসংখ্যা ১,৩২,৩৬৮ জন।

  • পুরুষ : ৭২,৩০৫ জন
  • মহিলা : ৬০,০৬৩ জন[১]

অবস্থান ও সীমানা[সম্পাদনা]

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উত্তর-পশ্চিমাংশে পাহাড়তলী থানার অবস্থান। এর দক্ষিণে হালিশহর থানা; পূর্বে ডবলমুরিং থানা, খুলশী থানাআকবর শাহ থানা; উত্তরে সীতাকুণ্ড উপজেলার সলিমপুর ইউনিয়ন এবং পশ্চিমে বঙ্গোপসাগর

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

বর্তমানে পাহাড়তলী থানার আওতাধীন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের এলাকাসমূহ হল:

[১]

সংসদীয় আসন[সম্পাদনা]

সংসদীয় আসন জাতীয় নির্বাচনী এলাকা সংসদ সদস্য রাজনৈতিক দল
২৮১ চট্টগ্রাম-৪ সীতাকুণ্ড উপজেলা এবং চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ৯নং উত্তর পাহাড়তলী১০নং উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ড দিদারুল আলম বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
২৮৭ চট্টগ্রাম-১০ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ৮নং শুলকবহর, ১১নং দক্ষিণ কাট্টলী, ১২নং সরাইপাড়া, ১৩নং পাহাড়তলী, ১৪নং লালখান বাজার, ২৪নং উত্তর আগ্রাবাদ, ২৫নং রামপুরা২৬নং উত্তর হালিশহর ওয়ার্ড ডা. আফসারুল আমীন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ

[২] [৩]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

পাহাড়তলী থানার আওতাধীন এলাকার গড় শিক্ষিতের হার ৬৭.৯৭%।[১]

উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান[সম্পাদনা]

  • প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ
  • কাস্টমস ট্রেনিং একাডেমী
  • সিটি কর্পোরেশন কলেজ
  • নুরুল হক উচ্চ বিদ্যালয়
  • পাহাড়তলী হাই স্কুল

[১]

গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা[সম্পাদনা]

  • বিসিক শিল্প এলাকা
  • জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম (চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্টেডিয়াম)
  • পাহাড়তলী রেল স্টেশন

[১]

হাটবাজার ও শপিং কমপ্লেক্স[সম্পাদনা]

  • পাহাড়তলী বাজার
  • বাংলা বাজার
  • সিটি কর্পোরেশন মার্কেট
  • আবদুল আলী হাট
  • কর্নেল হাট
  • জোলার হাট
  • সিডিএ মার্কেট
  • হানিমুন টাওয়ার

[১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

মাস্টারদা সূর্যসেন ও তাঁর দল পাহাড়তলী থানায় অবস্থিত আসাম-বেঙ্গল রেলওয়ের চট্টগ্রাম কোষাগার লুণ্ঠন করেন। ১৯৩২ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর সূর্যসেনের অন্যতম সহযোগী প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার এ থানার ইউরোপিয়ান ক্লাবে সফল আক্রমণ পরিচালনা করে গ্রেফতার এড়ানোর জন্য পটাসিয়াম সায়ানাইট খেয়ে আত্মাহুতি দেন।[১]

প্রাচীন নিদর্শনাদি ও প্রত্নসম্পদ[সম্পাদনা]

  • আসাম-বেঙ্গল রেলওয়ে ভবন[১]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]