ডবলমুরিং থানা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ডবলমুরিং
মেট্রোপলিটন থানা
ডবলমুরিং বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
ডবলমুরিং
ডবলমুরিং
বাংলাদেশে ডবলমুরিং থানার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২২°২০′১৫″ উত্তর ৯১°৪৮′২৫″ পূর্ব / ২২.৩৩৭৫০° উত্তর ৯১.৮০৬৯৪° পূর্ব / 22.33750; 91.80694স্থানাঙ্ক: ২২°২০′১৫″ উত্তর ৯১°৪৮′২৫″ পূর্ব / ২২.৩৩৭৫০° উত্তর ৯১.৮০৬৯৪° পূর্ব / 22.33750; 91.80694 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগচট্টগ্রাম বিভাগ
জেলাচট্টগ্রাম জেলা
শহরচট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন
প্রতিষ্ঠাকাল৩০ নভেম্বর, ১৯৭৮
আয়তন
 • মোট৮.১২ কিমি (৩.১৪ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট৩,৬১,১৫৪
 • জনঘনত্ব৪৪০০০/কিমি (১২০০০০/বর্গমাইল)
সাক্ষরতার হার
 • মোট৬৮.৮%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড৪২২৪ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
২০ ১৫ ২৮

ডবলমুরিং বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলার একটি মেট্রোপলিটন থানা। এটি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন।

আয়তন[সম্পাদনা]

ডবলমুরিং থানার মোট আয়তন ৮.১২ বর্গ কিলোমিটার (২,০০৬ একর)।[১]

প্রতিষ্ঠাকাল[সম্পাদনা]

১৯৭৮ সালের ৩০ নভেম্বর হাটহাজারী উপজেলার ১টি ওয়ার্ড এবং আরো ৬টি থানার সমন্বয়ে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন গঠিত হয়, তন্মধ্যে ডবলমুরিং থানা অন্যতম।[২]

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী ডবলমুরিং থানার মোট জনসংখ্যা ৩,৬১,১৫৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১,৯৪,২৩৪ জন এবং মহিলা ১,৬৬,৯২০ জন। মোট পরিবার ৭৭,৮১৩টি।[১]

অবস্থান ও সীমানা[সম্পাদনা]

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মধ্যভাগে ডবলমুরিং থানার অবস্থান। এর পূর্বে সদরঘাট থানাকোতোয়ালী থানা; উত্তরে খুলশী থানা; পশ্চিমে পাহাড়তলী থানা, হালিশহর থানাবন্দর থানা এবং দক্ষিণে কর্ণফুলি নদীকর্ণফুলি থানা অবস্থিত।

নামকরণ ও ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৮৬০ সালে ব্রিটিশরা এ এলাকায় দুটি জেটি স্থাপন করে এবং পরবর্তিতে ১৮৮৮ সালে আরো দুটি মুরিং জেটি নির্মাণ করে। সেই থেকে এলাকার লোকজনের মুখে মুখে ডবলমুরিং নামটা চালু হয়ে যায়।[৩] ১৯৭১ সালে ডবলমুরিং থানা ছিল নৌ-কমান্ডোর অধীন। এসময় মুক্তিযোদ্ধারা (নৌ-কমান্ডো) এ থানায় বেশ কিছুৃ সফল অভিযান পরিচালনা করেন। বেপারী পাড়া ও হাজী পাড়ায় পাকসেনারা বেশ কিছু নিরীহ লোককে হত্যা করে।[২]

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

ডবলমুরিং থানার আওতাধীন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের এলাকাসমূহ হল:[২]

সংসদীয় আসন[সম্পাদনা]

সংসদীয় আসন জাতীয় নির্বাচনী এলাকা[৪] সংসদ সদস্য[৫][৬][৭][৮][৯] রাজনৈতিক দল
২৮৬ চট্টগ্রাম-৯ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ১৫নং বাগমনিরাম, ১৬নং চকবাজার, ১৭নং পশ্চিম বাকলিয়া, ১৮নং পূর্ব বাকলিয়া, ১৯নং দক্ষিণ বাকলিয়া, ২০নং দেওয়ান বাজার, ২১নং জামালখান, ২২নং এনায়েত বাজার, ২৩নং উত্তর পাঠানটুলী, ৩১নং আলকরণ, ৩২নং আন্দরকিল্লা, ৩৩নং ফিরিঙ্গি বাজার, ৩৪নং পাথরঘাটা৩৫নং বকশীর হাট ওয়ার্ড মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
২৮৭ চট্টগ্রাম-১০ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ৮নং শুলকবহর, ১১নং দক্ষিণ কাট্টলী, ১২নং সরাইপাড়া, ১৩নং পাহাড়তলী, ১৪নং লালখান বাজার, ২৪নং উত্তর আগ্রাবাদ, ২৫নং রামপুর২৬নং উত্তর হালিশহর ওয়ার্ড ডাঃ আফছারুল আমীন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
২৮৮ চট্টগ্রাম-১১ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ২৭নং দক্ষিণ আগ্রাবাদ, ২৮নং পাঠানটুলী, ২৯নং পশ্চিম মাদারবাড়ী, ৩০নং পূর্ব মাদারবাড়ী, ৩৬নং গোসাইলডাঙ্গা, ৩৭নং উত্তর মধ্য হালিশহর, ৩৮নং দক্ষিণ মধ্য হালিশহর, ৩৯নং দক্ষিণ হালিশহর, ৪০নং উত্তর পতেঙ্গা৪১নং দক্ষিণ পতেঙ্গা ওয়ার্ড এম আবদুল লতিফ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ইউনিয়ন পরিসংখ্যান সংক্রান্ত জাতীয় তথ্য" (PDF)web.archive.org। Wayback Machine। সংগ্রহের তারিখ ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  2. "ডবলমুরিং থানা - বাংলাপিডিয়া"bn.banglapedia.org 
  3. হাজার বছরের চট্টগ্রামদৈনিক আজাদী। নভেম্বর ১৯৯৫। পৃষ্ঠা ৭৭। 
  4. "Election Commission Bangladesh - Home page"www.ecs.org.bd 
  5. "বাংলাদেশ গেজেট, অতিরিক্ত, জানুয়ারি ১, ২০১৯" (PDF)ecs.gov.bdবাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন। ১ জানুয়ারি ২০১৯। ২ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  6. "সংসদ নির্বাচন ২০১৮ ফলাফল"বিবিসি বাংলা। ২৭ ডিসেম্বর ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  7. "একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ফলাফল"প্রথম আলো। ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  8. "জয় পেলেন যারা"দৈনিক আমাদের সময়। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  9. "আওয়ামী লীগের হ্যাটট্রিক জয়"সমকাল। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]