কেনান

স্থানাঙ্ক: ৩২° উত্তর ৩৫° পূর্ব / ৩২° উত্তর ৩৫° পূর্ব / 32; 35
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(কনান থেকে পুনর্নির্দেশিত)
কনান
𐤊𐤍𐤏𐤍  (Phoenician)
כְּנַעַן  (হিব্রু)
Χανααν  (Biblical Greek)
كَنْعَانُ  (আরবি)
অঞ্চল
ব্রোঞ্জ যুগে প্রধান কনানীয় নগররাষ্ট্রসমূহ
ব্রোঞ্জ যুগে প্রধান কনানীয় নগররাষ্ট্রসমূহ
শাসনতন্ত্র ও জনগণ
কনানীয় ভাষাসমূহ
১৬৯২ সালে ফিলিপ লেয়ার আঁকা কনান দেশের একটি মানচিত্র

কেনান (উত্তরপশ্চিম সেমিটীয়: knaʿn; ফৈনীকী: 𐤊𐤍𐤏𐤍Kenāʿan; হিব্রু ভাষায়: כְּנַעַן‎ – Kənáʿan, বা כְּנָעַןKənā́ʿan; টেমপ্লেট:Lang-grc-bibKhanaan;[১] আরবি: كَنْعَانُ‎‎ – Kanʿān) ছিল খ্রিষ্টপূর্ব ২য় সহস্রাব্দে প্রাচীন নিকট প্রাচ্যের একটি সেমিটিকভাষী সভ্যতা ও অঞ্চল। কনান নামটি পুরো বাইবেলে বহুবার আবির্ভূত হয়, যেখানে এটি লেভান্তের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ, বিশেষত দক্ষিণ লেভান্তের সেই অঞ্চলগুলির সাথে যা বাইবেলীয় বর্ণনার মূল বিন্যাস প্রদান করে: ফৈনীকিয়া, পলেষ্টিয়া, ইস্রায়েল দেশ এবং অন্যান্য।

"কনানীয়" শব্দটি দক্ষিণাঞ্চলীয় লেভান্ত বা কনান অঞ্চল জুড়ে বিভিন্ন আদিবাসী জনগোষ্ঠীকে—স্থায়ী এবং যাযাবর-মেষপালক উভয়ই—ধারণকারী একটি পাকড়শব্দ হিসাবে ব্যবহৃত হয়।[২] এটি বাইবেলে এখন পর্যন্ত সর্বাধিক ব্যবহৃত জাতিগত শব্দ।[৩] যিহোশূয়ের পুস্তকে কনানীয়দের নির্মূল করার জন্য বিভিন্ন জাতির তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে[৪] এবং পরবর্তীতে ইস্রায়েলীয়দের দ্বারা ধ্বংসপ্রাপ্ত একটি দল হিসাবে বর্ণনা করা হয়েছে।[৫] বাইবেলীয় পণ্ডিত মার্ক স্মিথ বলেন যে প্রত্নতাত্ত্বিক তথ্য থেকে জানা যায় যে, “ইস্রায়েলীয় সংস্কৃতি প্রচুর পরিমাণে কনানীয় সংস্কৃতির উপর সমাপতিত হয়েছিল এবং আহরণ করেছিল… সংক্ষেপে বলতে গেলে ইস্রায়েলীয় সংস্কৃতি স্বভাবগতভাবে মূলত কনানীয় ছিল।”[৬]:১৩–১৪[৭][৮] “কনানীয়” নামটি বহু শতাব্দী পর প্রাচীন গ্রীকদের কাছে পরবর্তীকালে আনু. ৫০০ খ্রীষ্টপূর্বাব্দ থেকে ফৈনীকীয় হিসাবে পরিচিত জনগোষ্ঠীর আন্তঃনাম হিসাবে সত্যায়িত হয়[৫] এবং কনানীয়ভাষীদের কার্থেজে (খ্রিস্টপূর্ব ৯ম শতাব্দীতে প্রতিষ্ঠিত) অভিবাসিত হওয়ার পর উত্তর আফ্রিকার বিলম্বিত প্রাচীনকালীন পুণিকদের দ্বারা স্ব-পদবি এটি হিসাবেও ব্যবহৃত হয়েছিল।

বিলম্বিত ব্রোঞ্জ যুগের আমর্না সময়কালে (খ্রীষ্টপূর্ব ১৪শ শতাব্দী) কনান দেশের তাৎপর্যপূর্ণ ভূ-রাজনৈতিক গুরুত্ব ছিল কেননা মিসরীয়, হিত্তীয়, মিতান্নি এবং অশূরীয় সাম্রাজ্যের আগ্রহক্ষেত্র এই একই বিন্দুতে এসে মিলিত হয়েছিল। কনান সম্পর্কে অনেক আধুনিক জ্ঞান এই অঞ্চলের তেল হাৎসোর, তেল মগিদ্দো, ঐন অসূর এবং গেষরের মতো স্থানগুলিতে প্রত্নতাত্ত্বিক খনন থেকে প্রাপ্ত।

ব্যুৎপত্তি[সম্পাদনা]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

কনানের শাসকদের তালিকা[সম্পাদনা]

যিহূদী ও খ্রীষ্টান ধর্মগ্রন্থ[সম্পাদনা]

গ্রীক-রোমীয় ঐতিহাসিক রচনা[সম্পাদনা]

প্রত্নতত্ত্ব[সম্পাদনা]

উত্তরাধিকার[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. The current scholarly edition of the Greek Old Testament spells the word without any accents, cf. Septuaginta : id est Vetus Testamentum graece iuxta LXX interpretes. 2. ed. / recogn. et emendavit Robert Hanhart. Stuttgart : Dt. Bibelges., 2006 আইএসবিএন ৯৭৮-৩-৪৩৮-০৫১১৯-৬. However, in modern Greek the accentuation is Xαναάν, while the current (28th) scholarly edition of the New Testament has Xανάαν.
  2. Brody, Aaron J.; King, Roy J. (১ ডিসেম্বর ২০১৩)। "Genetics and the Archaeology of Ancient Israel"Wayne State University। সংগ্রহের তারিখ ৯ অক্টোবর ২০১৮ 
  3. Dever, William G. (২০০৬)। Who Were the Early Israelites and Where Did They Come From?। Wm. B. Eerdmans Publishing। পৃষ্ঠা 219। আইএসবিএন 9780802844163Canaanite is by far the most common ethnic term in the Hebrew Bible. The pattern of polemics suggests that most Israelites knew that they had a shared common remote ancestry and once common culture. 
  4. Dozeman, Thomas B. (২০১৫)। Joshua 1–12: A New Translation with Introduction and Commentary। Yale University Press। পৃষ্ঠা 259। আইএসবিএন 9780300172737। সংগ্রহের তারিখ ৯ অক্টোবর ২০১৮In the ideology of the book of Joshua, the Canaanites are included in the list of nations requiring extermination (3:10; 9:1; 24:11). 
  5. Drews 1998, পৃ. 48–49: "The name 'Canaan' did not entirely drop out of usage in the Iron Age. Throughout the area that we—with the Greek speakers—prefer to call 'Phoenicia', the inhabitants in the first millennium BC called themselves 'Canaanites'. For the area south of Mt. Carmel, however, after the Bronze Age ended references to 'Canaan' as a present phenomenon dwindle almost to nothing (the Hebrew Bible of course makes frequent mention of 'Canaan' and 'Canaanites', but regularly as a land that had become something else, and as a people who had been annihilated)."
  6. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; JonTubb নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  7. Smith, Mark S. (২০০২)। The Early History of God: Yahweh and Other Deities of Ancient Israel। Wm. B. Eerdmans Publishing। পৃষ্ঠা 6–7। আইএসবিএন 9780802839725। সংগ্রহের তারিখ ৯ অক্টোবর ২০১৮Despite the long regnant model that the Canaanites and Israelites were people of fundamentally different culture, archaeological data now casts doubt on this view. The material culture of the region exhibits numerous common points between Israelites and Canaanites in the Iron I period (আনু. 1200–1000 BC). The record would suggest that the Israelite culture largely overlapped with and derived from Canaanite culture... In short, Israelite culture was largely Canaanite in nature. Given the information available, one cannot maintain a radical cultural separation between Canaanites and Israelites for the Iron I period. 
  8. Rendsberg, Gary (২০০৮)। "Israel without the Bible"। Greenspahn, Frederick E.। The Hebrew Bible: New Insights and Scholarship। NYU Press। পৃষ্ঠা 3–5। আইএসবিএন 9780814731871। সংগ্রহের তারিখ ৯ অক্টোবর ২০১৮ 

গ্রন্থতালিকা[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]


টেমপ্লেট:Ancient states and regions of the Levant