জাহান্নাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান

জাহান্নাম (আরবি: جهنم‎‎ (শাব্দিকভাবে হিব্রু גיהנום গেহেন্নমএর সাথে সম্পর্কিত), হল ইসলামিক দৃষ্টিতে নরকের ধারণা। কুরআনে বর্ণিত নরকের অপর নামগুলো হল (অথবা নরকের দরজার নাম[১]): জাহীম ("জ্বলন্ত আগুন"[২]), হুতামাহ ("চূর্ণবিচূর্ণকারী"[৩]), হাবিয়াহ ("অতল গহ্বর"[৪]), লাযা, সা’ঈর ("উজ্জ্বল অগ্নিকাণ্ড"[৫]), সাকার,[৬][৭] আন-নার[৮] ইসলামিক নবী মুহাম্মাদের হাদিসে এবং পরবর্তী সময়ের ইসলামী পণ্ডিতদের লেখাতেও জাহান্নামের বর্ণনা উল্লেখ করা হয়েছে।

কোরানের বর্ণনা মতে জাহান্নামের স্তর সাতটি এবং দরজাও সাতটি।[৯]

জাহান্নামের গভীরতা[সম্পাদনা]

আবু হুরায়রা রাযিয়াল্লাহু তা'আলা আনহু থেকে বর্ণিত। তিনি বলেনঃ

আমরা একদা রাসূল (ﷺ) এর সাথে ছিলাম। এমন সময় একটি বিকট শব্দ শোনা গেল। রাসূল (ﷺ) বললেন, "তোমরা কি জান এটা কিসের শব্দ?" আমরা বললাম, "আল্লাহ্‌ ও তাঁর রাসূলই এ ব্যাপারে ভাল জানেন।" তিনি বললেন, "এটি একটি পাথর, যা আজ থেকে সত্তর বছর পূর্বে জাহান্নামে নিক্ষেপ করা হয়েছিল, আর তা তার তলদেশে যেতে ছিল এবং এত দিনে সেখানে গিয়ে পৌঁছেছে।"

(সহীহ মুসলিম)[১০] আবু হুরায়রা রাযিয়াল্লাহু তা'আলা আনহু থেকে বর্ণিত।

তিনি রাসূল (ﷺ) কে বলতে শুনেছেন, তিনি বলেন, "বান্দা মুখ দিয়ে এমন কথা বলে ফেলে, যার ফলে সে জাহান্নামে আকাশ ও যমিনের দূরত্বের চেয়েও গভীরে চলে যায়।"

(সহীহ মুসলিম-কিতাবুয যুহদ)[১১]

জাহান্নামের খাদ্য[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Rustomji, Nerina (২০০৯)। The Garden and the Fire: Heaven and Hell in Islamic Cultur। Columbia University Press। পৃষ্ঠা 118–9। সংগ্রহের তারিখ ২৫ ডিসেম্বর ২০১৪ 
  2. কুরআন 2:119
  3. কুরআন 104:4
  4. কুরআন 101:9
  5. কুরআন 67:5
  6. "A Description of Hellfire (part 1 of 5): An Introduction"Religion of Islam। সংগ্রহের তারিখ ২৩ ডিসেম্বর ২০১৪ 
  7. "The Names of Hell-Fire"IslamCan.com। সংগ্রহের তারিখ ২৩ ডিসেম্বর ২০১৪ 
  8. "Islamic Terminology"http://islamic-dictionary.tumblr.com/। সংগ্রহের তারিখ ২৩ ডিসেম্বর ২০১৪  |website= এ বহিঃসংযোগ দেয়া (সাহায্য)
  9. কুরআন 15:43–44
  10. সহীহ মুসলিম, জাহান্নামে নিক্ষিপ্ত পাথর
  11. সহীহ মুসলিম, কিতাবুয যুহদ
  12. বাংলা কুরআন
  13. তিরমিজী, যাক্কুমের বিষাক্ততা