লামা উপজেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
লামা
উপজেলা
লামা বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
লামা
লামা
বাংলাদেশে লামা উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২১°৪৬′৩০″ উত্তর ৯২°১২′০″ পূর্ব / ২১.৭৭৫০০° উত্তর ৯২.২০০০০° পূর্ব / 21.77500; 92.20000স্থানাঙ্ক: ২১°৪৬′৩০″ উত্তর ৯২°১২′০″ পূর্ব / ২১.৭৭৫০০° উত্তর ৯২.২০০০০° পূর্ব / 21.77500; 92.20000 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগচট্টগ্রাম বিভাগ
জেলাবান্দরবান জেলা
প্রতিষ্ঠাকাল১৯২৩
সংসদীয় আসন৩০০ পার্বত্য বান্দরবান
সরকার
 • সংসদ সদস্যবীর বাহাদুর উশৈ সিং (বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ)
আয়তন
 • মোট৬৭১.৮৪ কিমি (২৫৯.৪০ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট১,০৮,৯৯৫
 • জনঘনত্ব১৬০/কিমি (৪২০/বর্গমাইল)
সাক্ষরতার হার
 • মোট৩৪%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড৪৬৪১ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
২০ ০৩ ৫১
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট Edit this at Wikidata

লামা বাংলাদেশের বান্দরবান জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা

আয়তন[সম্পাদনা]

লামা উপজেলার আয়তন ৬৭১.৮৪ বর্গ কিলোমিটার (১,৬৬,০১৫ একর)।[১][২]

অবস্থান ও সীমানা[সম্পাদনা]

বান্দরবান জেলার পশ্চিম-মধ্যাংশে ২১°৩৬´ থেকে ২১°৫৯´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৯২°০৪´ থেকে ৯২°২৩´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ জুড়ে লামা উপজেলার অবস্থান।[২] বান্দরবান জেলা সদর থেকে এ উপজেলার দূরত্ব প্রায় ৯২ কিলোমিটার। এ উপজেলার দক্ষিণে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা, দক্ষিণ-পূর্বে আলীকদম উপজেলা, পূর্বে থানচি উপজেলারুমা উপজেলা, উত্তরে বান্দরবান সদর উপজেলাচট্টগ্রাম জেলার লোহাগাড়া উপজেলা এবং পশ্চিমে কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলা অবস্থিত।

নামকরণ[সম্পাদনা]

মূলত আহলামা রোয়া বা পাড়া থেকে লামা নামের উৎপত্তি। মাতামুহুরী নদী বিধৌত অঞ্চলে অবস্থিত লামা এর নামকরণ নিয়ে মতভেদ রয়েছে। কারো কারো মতে লামা শব্দটির অর্থ নিচের দিক বা ভাটি এলাকা। এটি চট্টগ্রামের আঞ্চলিক শব্দ। পার্বত্য অঞ্চলে মাতামুহুরী নদীর ভাটি এলাকায় অবস্থিত বলেই এ অঞ্চলের নাম লামা। আবার উপজাতীদের কিংবদন্তী অনুসারে জানা যায়, বর্তমানে লামামুখ এলাকায় আহলামা নামক (যার অর্থ পরমা সুন্দরী) এক সভ্রান্ত মার্মা উপজাতি বসবাস করত। ঐ সময়ে তার আর্থিক স্বচ্ছলতার ও প্রভাব প্রতিপত্তির কারণে আহলামা রোয়া বা পাড়া নামকরণ করা হয়। পরবর্তীকালে লামা খাল, লামা বাজার, মৌজা ইত্যাদি তার নামে নামকরণ করা হয়। লামায় অবস্থানরত সকল উপজাতি ও অউপজাতির বয়োজ্যেষ্ঠ লোকেরা শেষোক্ত মতটি গ্রহণযোগ্য বলে মনে করেন।[৩]

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

১৯২৩ সালে লামা থানা গঠিত হয় এবং ১৯৮৫ সালে থানাকে উপজেলায় রূপান্তর করা হয়।[২] লামা উপজেলায় ১টি পৌরসভা ও ৭টি ইউনিয়ন রয়েছে। সম্পূর্ণ লামা উপজেলার প্রশাসনিক কার্যক্রম লামা থানার আওতাধীন।

পৌরসভা:
ইউনিয়নসমূহ:[৪]

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী লামা উপজেলার মোট জনসংখ্যা ১,০৮,৯৯৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৫৬,৬১০ জন এবং মহিলা ৫২,৩৮৫ জন। মোট পরিবার ২২,৪৪৭টি।[১] মোট জনসংখ্যার ৭০.৫২% মুসলিম, ০.৩১% হিন্দু, ১৯.৬৬% বৌদ্ধ এবং ৯.৫১% খ্রিস্টান ও অন্যান্য ধর্মাবলম্বী।[২] এ উপজেলায় মার্মা, ত্রিপুরা, মুরং, চাকমা, তঞ্চঙ্গ্যা ও খেয়াং উপজাতির বসবাস রয়েছে।[৫]

শিক্ষা ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী লামা উপজেলার সাক্ষরতার হার ৩৪%।[১] এ উপজেলায় ১টি ডিগ্রী কলেজ, ১টি ফাজিল মাদ্রাসা, ১টি স্কুল এন্ড কলেজ, ৮টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ৩টি দাখিল মাদ্রাসা, ৩টি নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ৭৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে।[৬]

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

যোগাযোগ ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

লামা উপজেলায় যোগাযোগের প্রধান প্রধান সড়কগুলো হল বান্দরবান-লামা এবং চকরিয়া-লামা সড়ক। প্রধান যোগাযোগ মাধ্যম পূর্বাণী চেয়ারকোচ এবং জীপগাড়ি।

ধর্মীয় উপাসনালয়[সম্পাদনা]

লামা উপজেলায় ৩৫টি মসজিদ, ৫টি মন্দির ও ১৮টি বিহার ও ১৫টি গীর্জা রয়েছে।[২]

নদ-নদী[সম্পাদনা]

লামা উপজেলার মধ্যাঞ্চল দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে মাতামুহুরী নদী। এছাড়া রয়েছে লামা খাল এবং ইয়াংছা খাল।[৭]

হাট-বাজার[সম্পাদনা]

লামা উপজেলায় মোট ১৭টি হাট-বাজার রয়েছে। এর মধ্যে লামা সদর বাজার, লামামুখ বাজার, লাইনঝিরি বাজার, গজালিয়া বাজার, রূপসীপাড়া বাজার, ইয়াংছা বাজার, আজিজনগর বাজার উল্লেখযোগ্য।[৮]

দর্শনীয় স্থান[সম্পাদনা]

লামা উপজেলার দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে রয়েছে:[৯]

  • কোয়ান্টাম শিশু কানন, সরই
  • নুনার বিলপাড়া পালিটুল বৌদ্ধ বিহার
  • ফাঁসিয়াখালী রাবার বাগান
  • ভিউ পয়েন্ট অফ লামা উপজেলা
  • মাতামুহুরী নদী ও সেতু
  • মিরিঞ্জা পর্যটন কমপ্লেক্স
  • শীলের তুয়া স্থিত চংবট ম্রো পাড়া ও পাহাড়
  • সাবেক বিলছড়ি বৌদ্ধ বিহার

মুক্তিযুদ্ধের ঘটনাবলী[সম্পাদনা]

মুক্তিযুদ্ধের সময় লামা উপজেলা ১নং সেক্টরের অধীনে ছিল। এ সময় এ এলাকায় পাকবাহিনী ব্যাপক গণহত্যা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করে।[২]

জনপ্রতিনিধি[সম্পাদনা]

সংসদীয় আসন
সংসদীয় আসন জাতীয় নির্বাচনী এলাকা[১০] সংসদ সদস্য[১১][১২][১৩][১৪][১৫] রাজনৈতিক দল
৩০০ পার্বত্য বান্দরবান বান্দরবান জেলা বীর বাহাদুর উশৈ সিং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
উপজেলা পরিষদ ও প্রশাসন
ক্রম নং পদবী নাম
০১ উপজেলা চেয়ারম্যান[১৬] থোয়াইনু অং চৌধুরী
০২ ভাইস চেয়ারম্যান[১৬] মোহাম্মদ আবু তাহের মিয়া
০৩ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান[১৬] শারাবান তাহুরা
০৪ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা[১৭] নুর ই জান্নাত রুমি

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ইউনিয়ন পরিসংখ্যান সংক্রান্ত জাতীয় তথ্য" (PDF)web.archive.org। Wayback Machine। সংগ্রহের তারিখ ২২ নভেম্বর ২০১৯ 
  2. "লামা উপজেলা - বাংলাপিডিয়া"bn.banglapedia.org 
  3. "নামকরণ - লামা উপজেলা - লামা উপজেলা"lama.bandarban.gov.bd 
  4. "ইউনিয়ন সমূহ - লামা উপজেলা - লামা উপজেলা"lama.bandarban.gov.bd 
  5. "জনসংখ্যা - লামা উপজেলা - লামা উপজেলা"lama.bandarban.gov.bd 
  6. "Schools/Colleges in LAMA - Bangladesh School, College Directory"edu.review.net.bd 
  7. "নদ নদী - লামা উপজেলা - লামা উপজেলা"lama.bandarban.gov.bd 
  8. "হাটবাজার - লামা উপজেলা - লামা উপজেলা"lama.bandarban.gov.bd 
  9. "দর্শনীয় স্থান - লামা উপজেলা - লামা উপজেলা"lama.bandarban.gov.bd 
  10. "Election Commission Bangladesh - Home page"www.ecs.org.bd 
  11. "বাংলাদেশ গেজেট, অতিরিক্ত, জানুয়ারি ১, ২০১৯" (PDF)ecs.gov.bdবাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন। ১ জানুয়ারি ২০১৯। ২ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  12. "সংসদ নির্বাচন ২০১৮ ফলাফল"বিবিসি বাংলা। ২৭ ডিসেম্বর ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  13. "একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ফলাফল"প্রথম আলো। ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  14. "জয় পেলেন যারা"দৈনিক আমাদের সময়। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  15. "আওয়ামী লীগের হ্যাটট্রিক জয়"সমকাল। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  16. "জন প্রতিনিধি - লামা উপজেলা - লামা উপজেলা"lama.bandarban.gov.bd 
  17. "খিন ওয়ান নু - লামা উপজেলা - লামা উপজেলা"lama.bandarban.gov.bd 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]