নাসিরনগর উপজেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
নাসিরনগর
উপজেলা
নাসিরনগর বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
নাসিরনগর
নাসিরনগর
বাংলাদেশে নাসিরনগর উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°১২′৩৪″ উত্তর ৯১°১২′৪৮″ পূর্ব / ২৪.২০৯৪৪° উত্তর ৯১.২১৩৩৩° পূর্ব / 24.20944; 91.21333স্থানাঙ্ক: ২৪°১২′৩৪″ উত্তর ৯১°১২′৪৮″ পূর্ব / ২৪.২০৯৪৪° উত্তর ৯১.২১৩৩৩° পূর্ব / 24.20944; 91.21333 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ  বাংলাদেশ
বিভাগ চট্টগ্রাম বিভাগ
জেলা ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলা
আয়তন
 • মোট ৩৩১.৬৬ কিমি (১২৮.০৫ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • মোট ৩,০৯,০১১
 • ঘনত্ব ৯৩০/কিমি (২৪০০/বর্গমাইল)
স্বাক্ষরতার হার
 • মোট %
সময় অঞ্চল বিএসটি (ইউটিসি+৬)
ওয়েবসাইট অফিসিয়াল ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
নাসিরনগরের নদীর পারের দৃশ্য

নাসিরনগর উপজেলা বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার একটি প্রশাসনিক এলাকা।

অবস্থান ও আয়তন[সম্পাদনা]

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার সর্ব উত্তরে অবস্থিত হাওরবেস্টিত একটি উপজেলা নাসিরনগর। এর উত্তরে হবিগঞ্জ জেলার লাখাই উপজেলা ও কিশোরগঞ্জ জেলার অষ্টগ্রাম উপজেলা। উত্তর-পূর্ব দিকে হবিগঞ্জ সদর উপজেলা। পূর্বে মাধবপুর উপজেলা। দক্ষিণ-পূর্বে মাধবপুর ও ব্রাহ্মণবাড়ীয়া সদর উপজেলা। দক্ষিণে সরাইল উপজেলা। পশ্চিমে মেঘনা নদী। জেলা সদর থেকে এর দুরত্ব প্রায় ২৮ কিলোমিটার। এর আয়তন ৩১১.৬৬ বর্গ কিলোমিটার।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

নাসিরনগরের নামকরণঃ নাসিরনগর নামের উৎপত্তি সম্পর্কে লোকমুখে বহুধরণের কথন প্রচলিত রয়েছে। কেউ কেউ বলেন, হযরত শাহজালাল(রহ.) সাথে একজন যোদ্ধা ছিলেন, যার নাম নাসির উদ্দিন। কথিত আছে তিনিই নাসিরনগরে ইসলাম ধর্মের বাতিকে শক্তিশালী ভাবে প্রজ্জ্বলন করতে সক্ষম হন। এই নাসিরউদ্দিনের নামানুসারে নাসিরনগরের নামকরণ হয় নাসিরনগর। উল্লেখ্য নাসিরনগর পুরোটাই একসময় হিন্দু অধ্যুষিত অঞ্চল ছিল।

জেলা সদরের সাথে যোগাযোগের মাধ্যম হলো সড়ক পথ। আভ্যন্তরীন যোগাযোগ খুবই পশ্চাদগামী। আভ্যন্তরীন যোগাযোগের মাধ্যম হলো সড়ক পথ ও নৌপথ। এ উপজেলার অনেক জায়গাতে আজও পায়ে হেটে যাতায়াত করতে হয়। এ উপজেলার প্রায় ৭১% লোক কৃষিজীবি। উপজেলার প্রধান প্রধান ফসলের মধ্যে ধান, গম, পাট, সরিষা, আলু ও ডাল। এ উপজেলার লোকজন নদী, পুকুর ও নলকূপ এর পানি গৃহস্থালীর কাজে ব্যবহার করেন।এ উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের অনেক ছেলেমেয়ে শিক্ষার আলো হতে বঞ্চিত। হাওড় বেষ্টিত উপজেলা হওয়ায় সারা বছর কাজ করার সুযোগ থাকে না। কেবল রবি/ইরি মৌসুমে কাজের সুযোগ থাকে। তাছাড়া এ উপজেলার বেশীর ভাগ জমি এক ফসলী। এ উপজেলার বেশীর ভাগ মানুষের অর্থনীতির সার্বিক অবস্থা ভাল নয়। এ উপজেলার অনেক লোক দারিদ্রসীমার নিচে বাস করেন। তবে এ উপজেলার মানুষ খুবই পরিশ্রমী ও কর্মঠ হিসেবে পরিচিত লাভ করেছে।

প্রশাসনিক বিন্যাস[সম্পাদনা]

এই উপজেলাটি ১৩টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত।

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী এখানকার মোট লোকসংখ্যা ৩,০৯,০১১ জন।

শিক্ষা[সম্পাদনা]

২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী এখানকার শিক্ষার হার ৩৬%। এখানে রয়েছেঃ

  • প্রাথমিক বিদ্যালয় ৫০ - টি;
  • মহাবিদ্যালয় ৪ - টি;
  • উচ্চ বিদ্যালয় ১৯- টি;
  • জুনিয়র বিদ্যালয় ২ - টি;
  • মাদ্রাসা ২০- টি

★কেজি ৯- টি।

স্বাস্হ্য[সম্পাদনা]

স্বাস্হ্য সেবাদানের জন্য রয়েছেঃ

  • উপজেলা স্থাস্থ্য কেন্দ্র - ১টি;
  • জন্ম নিয়ন্ত্রন কেন্দ্র - টি;
  • ক্লিনিক - টি;
  • স্যাটেলাইট ক্লিনিক - টি;
  • পশু চিকিৎসা কেন্দ্র - ১টি;
  • দাতব্য চিকিৎসা কেন্দ্র - টি;
  • কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্র - ১টি।

কৃষি[সম্পাদনা]

এখানকার প্রায় দুই-তৃতীয়াংশ মানুষ কৃষক।

  • প্রধান ফসলঃ ধান, গম, বিভিন্ন ধরনের সব্জী।
  • লুপ্ত বা লুপ্ত প্রায় শষ্যাদিঃ কাউন, আউস ও আমন ধান, পাট ও আড়হর ডাল।
  • প্রধান ফলঃ কলা, কাঁঠাল, আম, জাম।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

  • কুটির শিল্প - মৃৎ শিল্প, সূচী-শিল্প।
  • রপ্তানী পণ্য - শাক-সব্জী।

যোগাযোগ ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

  • সড়ক পথঃ ;
  • নৌ- পথঃ নটিক্যাল মাইল;
  • রেল পথঃ কিলোমিটার।

কৃতী ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

  • ফখরে বাঙ্গাল হযরত মাও:তাজুল ইসলাম সাহেব
  • ব্যারিষ্টার এ রসুল; স* স্যার সৈয়দ শামসুল হুদা
  • সুধীর চন্দ্র বর্মণ।
  • জ্ঞানমোহন দত্ত (মছলন্দপুর)
  • অমূল্য দত্ত (কুন্ডা)
  • কানু দত্ত (নাসিরনগর সদর)
  • কৃষ্ণকিশোর বিদ্যাসাগর(বুড়িশ্বর)

উল্লেখযোগ্য স্থান ও স্থাপনা[সম্পাদনা]

নাসিরনগর নদী ঘাট

বিবিধ[সম্পাদনা]

এনজিও

ব্রাক, আশা, গ্রামীন ব্যাংক,প্রশিকা,সেভ দ্য চিলড্রেন, সক্রিয় এনজিওদের মধ্যে অন্যতম।

হাট-বাজার ও মেলা
নদ-নদী

মেঘনা, লঙ্গন, ধলেশ্বরী, খয়রাতি, খাস্তিচিকনদিয়া,বলভদ্র,

  • কুন্ডার দক্ষিণ-পশ্চিম দিক হয়ে মহিষবেড়-এর উত্তর দিক দিয়ে পশ্চিম দিকে প্রবহমান তিতাসের শাখা নদি - বেমালিয়া।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "এক নজরে নাসিরনগর উপজেলা"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। জুন, ২০১৪। সংগৃহীত : ১ জুন ২০১৫ 
  2. এস এম আশরাফ আলী আলকাদিরী (সম্পাদনা পরিষদ) কর্তৃক সম্পাদিত গ্রন্থঃ ‘কাছীদায়ে শায়খুল বাঙ্গাল’ ১ম খন্ড ,প্রকাশকালঃ ৩ অক্টোবর, ১৯৯৪ ইং ।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]