রায়পুর উপজেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
রায়পুর
উপজেলা
রায়পুর বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
রায়পুর
রায়পুর
বাংলাদেশে রায়পুর উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৩°২′১২″ উত্তর ৯০°৪৬′১৫″ পূর্ব / ২৩.০৩৬৬৭° উত্তর ৯০.৭৭০৮৩° পূর্ব / 23.03667; 90.77083স্থানাঙ্ক: ২৩°২′১২″ উত্তর ৯০°৪৬′১৫″ পূর্ব / ২৩.০৩৬৬৭° উত্তর ৯০.৭৭০৮৩° পূর্ব / 23.03667; 90.77083 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগচট্টগ্রাম বিভাগ
জেলালক্ষ্মীপুর জেলা
আয়তন
 • মোট২০১.৩২ কিমি (৭৭.৭৩ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট২,৭৫,১৬০[১]
সাক্ষরতার হার
 • মোট৪২.৩%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড৩৭১০ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
২০ ৫১ ৫৮
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট Edit this at Wikidata

রায়পুর উপজেলা বাংলাদেশের লক্ষ্মীপুর জেলার একটি একটি প্রশাসনিক এলাকা।[২]

অবস্থান ও আয়তন[সম্পাদনা]

রায়পুর উপজেলার দক্ষিণে ও দক্ষিণ-পূর্বে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা, উত্তর-পূর্বে রামগঞ্জ উপজেলা, উত্তরে চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জ উপজেলা, উত্তর-পশ্চিমে চাঁদপুর জেলার হাইমচর উপজেলা এবং দক্ষিণ-পশ্চিমে মেঘনা নদীবরিশাল জেলার হিজলা উপজেলামেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা অবস্থিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ব্রিটিশ রাজত্বকালে স্থানীয় জমিদার রায়বাহাদুর মোহন রায় এর নামানসারে রায়পুর নাম করণ করা হয়। ১৮৭৭ সালে রায়পুর থানায় রুপান্তরিত হয়। পরবর্তীতে ১৯৮৩ সালে রায়পুর উপজেলা হিসেবে ঘোষিত হয়।

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

রায়পুর উপজেলায় বর্তমানে ১টি পৌরসভা ও ১০টি ইউনিয়ন রয়েছে। সম্পূর্ণ উপজেলার প্রশাসনিক কার্যক্রম রায়পুর থানার আওতাধীন।

পৌরসভা:
ইউনিয়নসমূহ:

[১]

জনসংখ্যা উপাত্ত[সম্পাদনা]

২০০১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী এখানকার লোকসংখ্যা ২,৩৬,৯৬৫ জন; যার মধ্যে পুরুষ ১,১৮,৫৬২ জন এবং মহিলা ১,১৮,৪০৩ জন। এখানে মুসলিম ২,২৮,৩৬১ জন, হিন্দু ৮,৫৬৬, খ্রিস্টান ২৩ এবং অন্যান্য ধর্মাবলম্বি ১৫ জন।[৩]

স্বাস্থ্য[সম্পাদনা]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

শিক্ষার হার ৪২.৩%; পুরুষদের মধ্যে শিক্ষার হার ৪৪.৪% এবং মহিলাদের মধ্যে শিক্ষার হার ৪০.২%। এখানে রয়েছেঃ

  • কলেজ - ৫টি,
  • মাধ্যমিক বিদ্যালয় - ৪৫
  • প্রাথমিক বিদ্যালয় - ১১৮টি,
  • মাদ্রাসা - ২১টি
  • কওমী মাদ্রাসা ৫টি

কৃষি[সম্পাদনা]

  • কৃষিভূমির মালিকানা - ভূমিমালিক ৫১.৯২%, ভূমিহীন ৪৮.০৮%।
  • শহরে ৫১.৪৫% এবং গ্রামে ৫২.০৬% পরিবারের কৃষিজমি রয়েছে।
  • প্রধান কৃষি ফসল - ধান, পাট, গম, আখ, সরিষা, আলু, সয়াবিন, ভুট্টা।
  • বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় ফসলাদি - কাউন, জোয়ার, তিল, তিসি, খেসারি, কলাই।
  • প্রধান ফল-ফলাদি - নারিকেল, সুপারি, আম, কাঁঠাল, কলা, আমড়া, লেবু।
  • মৎস্য, গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগির খামার - মৎস্য ৮, হাঁস-মুরগি ৭২, হ্যাচারি ৯, দুগ্ধ-খামার ১৪।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

  • জনগোষ্ঠীর আয়ের প্রধান উৎস কৃষি ৪৭.১৬%, অকৃষি শ্রমিক ২.৮৫%, শিল্প ০.৭০% ব্যবসা ১৪.০১%, পরিবহন ও যোগাযোগ ৪.১৪%, চাকরি ৯.৬৯%, নির্মাণ ২.২৮%, ধর্মীয় সেবা ০.৪৭%, রেন্ট এন্ড রেমিটেন্স ৮.৭১% এবং অন্যান্য ৯.৯৯%।
  • শিল্প ও কলকারখানা টেক্সটাইল মিল ১, রাইস মিল ৬২, ফাওয়ার মিল ২৫, বিস্কুট ফ্যাক্টরি ১৪, আইস ফ্যাক্টরি ৭, বিড়ি ফ্যাক্টরি ২, স’মিল ৩০, অয়েল মিল ৫, ওয়েল্ডিং কারখানা ২৫, অ্যালুমিনিয়ম কারখানা ১, ইটভাটা ৪।
  • কুটিরশিল্প স্বর্ণশিল্প, বাঁশ ও বেতের কাজ।
  • প্রধান রপ্তানিদ্রব্য নারিকেল, সুপারি, সয়াবিন, ধান,ভুট্টা।

যোগাযোগ ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

  • যোগাযোগ বিশেষত্ব - পাকারাস্তা ৬৪ কিমি, আধা-পাকারাস্তা ৫৯ কিমি, কাঁচারাস্তা ৮২৭ কিমি। বেড়ীবাধ ৯৬.৫ কিমি।
  • বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় সনাতন বাহন - পাল্কি, গরুর গাড়ি।

কৃতী ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

  • মোহাম্মদউল্লাহ - বাংলাদেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ও স্পিকার;
  • হারুনুর রশিদ - রাজনীতিবিদ, বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক।
  • হাফেজ্জী হুজুর - রাজনীতিবিদ,ইসলামি ব্যক্তিত্ব

দর্শনীয় স্থান[সম্পাদনা]

জনপ্রতিনিধি[সম্পাদনা]

সংসদীয় আসন জাতীয় নির্বাচনী এলাকা[৪] সংসদ সদস্য[৫][৬][৭][৮][৯] রাজনৈতিক দল
২৭৫ লক্ষ্মীপুর-২ রায়পুর উপজেলা এবং লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার উত্তর হামছাদী, দক্ষিণ হামছাদী, দালালবাজার, চর রুহিতা, পার্বতীনগর, বশিকপুর, শাকচর, চর রমণীমোহনটুমচর ইউনিয়ন মোহাম্মদ শহিদ ইসলাম স্বতন্ত্র

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন, ২০১৪)। "এক নজরে রায়পুর"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুলাই ২০১৫  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. Nazmul Ahsan Raju (২০১২)। "Raipur Upazila"। Sirajul Islam। Banglapedia: National Encyclopedia of Bangladesh (Second সংস্করণ)। Asiatic Society of Bangladesh। ২৪ জুন ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জানুয়ারি ২০১৫ 
  3. আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১ - বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।
  4. "Election Commission Bangladesh - Home page"www.ecs.org.bd 
  5. "বাংলাদেশ গেজেট, অতিরিক্ত, জানুয়ারি ১, ২০১৯" (PDF)ecs.gov.bdবাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন। ১ জানুয়ারি ২০১৯। ২ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  6. "সংসদ নির্বাচন ২০১৮ ফলাফল"বিবিসি বাংলা। ২৭ ডিসেম্বর ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  7. "একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ফলাফল"প্রথম আলো। ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  8. "জয় পেলেন যারা"দৈনিক আমাদের সময়। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  9. "আওয়ামী লীগের হ্যাটট্রিক জয়"সমকাল। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]