ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশের লোগো.jpg
ধরনসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়
স্থাপিত১৯৭৯
আচার্যরাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ
উপাচার্যপ্রফেসর ড. মো. হারুন-উর-রাশিদ আসকারী
শিক্ষার্থী১৮,০০০ (প্রায়)
স্নাতক১৩,৫০০ (প্রায়)
স্নাতকোত্তর২,৫০০ (প্রায়)
অবস্থান,
শিক্ষাঙ্গনশহুরে
সংক্ষিপ্ত নামIU/ইবি
অধিভুক্তিবিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন
ওয়েবসাইটhttp://www.iu.ac.bd

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় স্বাধীনতার পর বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠিত প্রথম সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। [১] বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে এটিই দেশের সর্বোচ্চ ইসলামী বিদ্যাপীঠ। বাংলাদেশের সংবিধানের সাথে সামঞ্জস্য রেখে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে সকল ধর্মের ও বর্ণের দেশী ও বিদেশী ছাত্র-শিক্ষকের সমন্বয়ে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হয়। বিজ্ঞান, প্রকৌশল, ব্যবসা প্রশাসন, সামাজিক বিজ্ঞান এবং মানবিক ও কলা অনুষদীয় বিষয়ের পাশাপাশি দেশে শুধুমাত্র এই বিশ্ববিদ্যালয়টিতেই ধর্মতত্ব ও ইসলামী আইনের উপর স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রী প্রদান করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়টি আর্থিকভাবে ইসলামী সম্মেলন সংস্থার সাহায্য পরিচালিত হয়। ইসলামী শিক্ষার উন্নতি সাধনের লক্ষ্যে ১৯৭৯ সালের ২২ নভেম্বর খুলনা বিভাগের কুষ্টিয়া জেলায় প্রতিষ্ঠানটি গঠন করা হয়।[২] ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ১৯৮৬ সালের ২৮ জুন তাদের একাডেমিক কার্যক্রম শুরু করেন।বর্তমানে ৮ টি অনুষদের অধীনে ৩৩ টি বিভাগের চালু আছে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে একটি ইসলামী বিদ্যাপীঠ স্থাপনের উদ্যোগ অনেক পুরনো। সর্বপ্রথম ১৯২০ সালে মাওলানা মনিরুজ্জামান ইসলামাবাদী চট্টগ্রামের পটিয়ায় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্যে ফান্ড গঠন করেন। ১৯৩৫ সালে মাওলানা শওকত আলি মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। ১৯৪১ সালে মাওলা বক্স কমিটি ‘ইউনিভার্সিটি অব ইসলামিক লার্নিং’ প্রতিষ্ঠার জন্য সুপারিশ করে। ১৯৪৬-৪৭ সালে সৈয়দ মোয়াজ্জেম উদ্দীন কমিটি এবং ১৯৪৯ সালে মওলানা মুহাম্মদ আকরাম খাঁ কমিটি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্য সুপারিশ করে। ১৯৬৩ সালের ৩১ মে ড. এস. এম. হোসাইন-এর সভাপতিত্বে "ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয় কমিশন" গঠন করা হয়।

স্বাধীনতার পর বাংলাদেশ সরকার ১ ডিসেম্বর ১৯৭৬ সালে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দেয়। ১৯৭৭ সালের ২৭ জানুয়ারি প্রফেসর এম. এ. বারীকে সভাপতি করে ৭ সদস্যবিশিষ্ট ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় পরিকল্পনা কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি ২০ অক্টোবর ১৯৭৭ সালে রিপোর্ট পেশ করে।[৩] কমিটির সুপারিশে থিওলজি এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ অনুষদের অধীন (১) আল-কুরআন ওয়া উলূমুল কুরআন, (২) উলূমুত তাওহীদ ওয়াদ দা‘ওয়াহ, (৩) আল হাদীস ওয়া উলূমুল হাদীস, (৪) আশ-শরীয়াহ ওয়া উসূলুস শরীয়াহ, এবং (৫) আল ফাল সাফাহ ওয়াততাসাউফ ওয়াল আখলাক বিভাগ, মানবিক ও সমাজবিজ্ঞান অনুষদের অধীন (১) আরবী ভাষা ও সাহিত্য, (২) বাংলা ভাষা ও সাহিত্য, (৩) ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি, (৪) অর্থনীতি, (৫) লোক প্রশাসন, (৬) তুলনামূলক ধর্মতত্ত্ব, (৭) ভাষাতত্ত্ব, এবং বাণিজ্য বিভাগ এবং বিজ্ঞান অনুষদের অধীন (১) পদার্থ বিজ্ঞান, (২) গণিত, (৩) রসায়ন, (৪) উদ্ভিদবিদ্যা, এবং (৫) প্রাণিবিদ্যা বিভাগ প্রতিষ্ঠার কথা উল্লেখ করা হয়।[৩]

৩১ মার্চ-৮ এপ্রিল ১৯৭৭ সালে মক্কায় ওআইসি-এর উদ্যোগে অনুষ্ঠিত মুসলিম বিশ্বের রাষ্ট্রপ্রধান ও সরকার প্রধানদের এক সম্মেলনে বিভিন্ন মুসলিম রাষ্ট্রে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার সুপারিশ করা হয়। এই সুপারিশের ভিত্তিতে ২২ নভেম্বর ১৯৭৯ সালে কুষ্টিয়া শহর থেকে ২৪ কিলোমিটার দক্ষিণে কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়কের পাশে শন্তিডাঙ্গা-দুলালপুর নামক স্থানে ১৭৫ একর জমিতে রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।[৩]

প্রশাসন[সম্পাদনা]

উপাচার্য: প্রফেসর ড, হারুন-উর রাশিদ আসকারী

উপ-উপাচার্য: প্রফেসর ড, শাহিনুর রহমান

কোষাধ্যক্ষ: অধ্যাপক ড. সেলিম ত্বোহা

নিবন্ধন: এস. এম. আব্দুল লতিফ (ভার:)

নায়েব: অধ্যাপক মোঃ আবদুল্লাহ ইব্রাহীম

ছাত্র উপদেষ্টা: অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্মণ

বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান অডিটোরিয়াম

এ্যাকাডেমিক বিভাগ[সম্পাদনা]

ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৮ টি অনুষদের অধীনে ৩৩ টি বিভাগ রয়েছে। অনুষদগুলি হল :


ধর্মতত্ত্ব অনুষদ 
কলা অনুষদ 
  • ইংরেজি বিভাগ
  • বাংলা বিভাগ
  • আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ
  • ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ
  • ফোকলোর স্টাডিজ বিভাগ
সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ 
  • অর্থনীতি বিভাগ
  • রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ
  • লোকপ্রশাসন বিভাগ
  • ডেভেপলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগ
  • সোশ্যাল ওয়েলফোর বিভাগ
প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদ 
  • ফলিত রসায়ন ও রাসায়নিক প্রকৌশল বিভাগ
  • ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ
  • কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগ
  • তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ
  • বায়োমেডিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ
জীববিজ্ঞান অনুষদ 
  • বায়োটেকনোলজি এবং জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ
  • ফলিত পুষ্টি ও খাদ্য প্রযুক্তি বিভাগ
  • ফার্মেসী বিভাগ
বিজ্ঞান অনুষদ 
  • গণিত বিভাগ
  • পরিসংখ্যান বিভাগ
  • ইনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড জিওগ্রাফি বিভাগ
ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ 
  • এ্যাকাউন্টিং এবং ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগ
  • ব্যবস্থাপনা বিভাগ
  • ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগ
  • মার্কেটিং বিভাগ
  • হিউমেন রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট বিভাগ
  • ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগ
আইন ও শরীয়াহ্ অনুষদ 
  • আইন বিভাগ
  • আল-ফিকহ এন্ড আইন বিভাগ
  • আইন ও ভুমি ব্যাবস্থাপনা বিভাগ

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Islamic University"Public Universities। University Grants Commission। ২০০৭-১০-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৫-১৭ 
  2. THE ISLAMIC UNIVERSITY ACT, 1980
  3. "ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়"banglapedia.org 

বহি:সংযোগ[সম্পাদনা]

স্থানাঙ্ক: ২৩°৪৩′১৬″ উত্তর ৮৯°০৯′০১″ পূর্ব / ২৩.৭২১২° উত্তর ৮৯.১৫০৪° পূর্ব / 23.7212; 89.1504