বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা ক্রিকেট দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
বাংলাদেশ
বাংলাদেশের পতাকা
বাংলাদেশের পতাকা
আইসিসি সদস্যপদ অনুমোদন ১৯৭৭
সংস্থা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড
আইসিসি সদস্য মর্যাদা সহযোগী সদস্য (১৯৭৭)
পূর্ণাঙ্গ সদস্য (২০০০)
অঞ্চল এশিয়া
অধিনায়ক রুমানা আহমেদ
১ম আনুষ্ঠানিক খেলা বাংলাদেশ বাংলাদেশথাইল্যান্ড 
(ব্যাংকক; ৬ জুলাই, ২০০৭)
ক্রিকেট বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
অংশগ্রহণ ২ (১ম অংশগ্রহণ ২০১১)
সেরা ফলাফল ৫ম (২০১১ ও ২০১৭)
মহিলা বিশ্ব টুয়েন্টি২০
অংশগ্রহণ ১ (১ম অংশগ্রহণ ২০১৪)
সেরা ফলাফল ১ম রাউন্ড (২০১৪)
মহিলা বিশ্ব টুয়েন্টি২০ বাছাইপর্ব
অংশগ্রহণ ১ (১ম অংশগ্রহণ ২০১৫)
সেরা ফলাফল রানার-আপ (২০১৫)
১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ অনুযায়ী


বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা ক্রিকেট দল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে জাতীয় মহিলা ক্রিকেট দল হিসেবে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছে। জুলাই, ২০০৭ সালে থাইল্যান্ডের বিপক্ষে দলটি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে। এতে বাংলাদেশ প্রতিপক্ষ দলের বিপক্ষে দু’টি খেলায় অংশগ্রহণ করে বিজয়ী হয়েছিল।[১] এরপর দলটি ২০০৭ সালের এসিসি মহিলাদের প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় ও শিরোপা জয় করে।[২] ২০১১ সালের মহিলাদের ক্রিকেট বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের প্রতিযোগিতায় ৫ম স্থান অধিকার করে। এরফলে বাংলাদেশ দল নেদারল্যান্ডসের পরিবর্তে একদিনের আন্তর্জাতিকে খেলার মর্যাদা লাভ করে।[৩]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ওডিআই মর্যাদা লাভ[সম্পাদনা]

২৪ নভেম্বর, ২০১১ তারিখে মহিলাদের ক্রিকেট বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দলকে ৯ উইকেটে হারিয়ে একদিনের আন্তর্জাতিকের মর্যাদা লাভ করে বাংলাদেশ দল। এরফলে দলটি প্রতিযোগিতায় শীর্ষ ছয়ে প্রবেশ করায় বৈশ্বিকভাবে ১০ম স্থানে প্রবেশ করে যা একদিনের মর্যাদা প্রাপ্তির জন্য প্রয়োজন ছিল।[৩]

২০১৬ আয়ারল্যান্ড সফর[সম্পাদনা]

আঘাতপ্রাপ্ত সালমা খাতুনকে ছাড়াই[৪] জাহানারা আলমের নেতৃত্বে সেপ্টেম্বর, ২০১৬-এর প্রথম সপ্তাহে আয়ারল্যান্ড সফর করে।[৫][৬][৭] এ সফরে দলটি আয়ারল্যান্ড মহিলা ক্রিকেট দলের বিপক্ষে তিনটি একদিনের আন্তর্জাতিক এবং দুইটি টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে ০-১ ব্যবধানে পরাজিত হয়। বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত ১ম ওডিআইয়ের জন্য পরবর্তীতে যুক্ত হওয়া অতিরিক্ত একদিনের আন্তর্জাতিকে জয়লাভের মাধ্যমে বাংলাদেশ ১-০ ব্যবধানে সিরিজ জয় করে।[৮] ঐ খেলায় বাংলাদেশের মহিলা ক্রিকেটের ইতিহাসে রুমানা আহমেদ প্রথম হ্যাট্রিক করেন।[৯]

২০১৭ মহিলা ক্রিকেট বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

২০১৭ আইসিসি মহিলা ক্রিকেট বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের চতুর্থ আসরের এ প্রতিযোগিতাটি শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বোয় অনুষ্ঠিত হয়। ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিতব্য ২০১৭ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপ প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্ব হিসেবে এ বাছাইপর্ব প্রক্রিয়া চলে। ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তানআয়ারল্যান্ডের সাথে সুপার সিক্স পর্বে খেলার সুযোগ পায়। রুমানা আহমেদের অধিনায়কত্বে[১০] বাংলাদেশ দল পঞ্চম স্থান অধিকার করে ও তাদের ওডিআই মর্যাদা ২০২১ সাল পর্যন্ত ধরে রাখে।[১১][১২] এ প্রতিযোগিতার গ্রুপ পর্বে পাপুয়া নিউগিনিস্কটল্যান্ড এবং সুপার সিক্স পর্বে কেবলমাত্র আয়ারল্যান্ডকে পরাজিত করে।

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ[সম্পাদনা]

আইসিসি মহিলা বিশ্ব টুয়েন্টি২০

মহিলা ক্রিকেট বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব

মহিলা এশিয়া কাপ

মহিলাদের এসিসি প্রতিযোগিতা

  • ২০০৭: বিজয়ী

এশিয়ান গেমস

বর্তমান আন্তর্জাতিক র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

আইসিসি মহিলাদের র‌্যাঙ্কিংয়ে টেস্ট, ওডিআই ও টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকের ফলাফলকে একটিমাত্র র‌্যাঙ্কিং ব্যবস্থায় তুলে ধরেছে।

আইসিসি মহিলা র‌্যাঙ্কিং
অবস্থান দল খেলা পয়েন্ট রেটিং
 অস্ট্রেলিয়া ৪৮ ৬১৭২ ১২৯
 ইংল্যান্ড ৪৭ ৫৭৪২ ১২২
 নিউজিল্যান্ড ৫৩ ৬২৬৩ ১১৮
 ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৫২ ৫৬০৭ ১০৮
 ভারত ৩৭ ৩৯৬৪ ১০৭
 দক্ষিণ আফ্রিকা ৬০ ৫৪০৫ ৯০
 পাকিস্তান ৪৭ ৩৬২৯ ৭৭
 শ্রীলঙ্কা ৪৫ ২৯৯৮ ৬৭
 বাংলাদেশ ২২ ৯৯৫ ৪৫
১০  আয়ারল্যান্ড ২২ ৮৩৮ ৩৮
সূত্র: আইসিসি মহিলা র‌্যাঙ্কিং, আইসিসি র‌্যাঙ্কিং ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭
"খেলা" বলতে অক্টোবর থেকে ১২-২৪ মাসের মধ্যে অনুষ্ঠিত খেলা, এছাড়াও, গত ২৪ মাসের অর্ধেক খেলার সংখ্যা।

দলীয় সদস্য[সম্পাদনা]

ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ সালে শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত ২০১৭ সালের মহিলা ক্রিকেট বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে ঘোষিত বাংলাদেশ মহিলা দলের সদস্যদের তালিকা নিম্নরূপ:[১০]

খেলোয়াড় বয়স ব্যাটিংয়ের ধরণ বোলিংয়ের ধরণ খেলার স্তর শার্ট নং
অধিনায়ক ও অল-রাউন্ডার
রুমানা আহমেদ (১৯৯১-০৫-২৯) ২৯ মে ১৯৯১ (বয়স ২৬) ডানহাতি ডানহাতি লেগ ব্রেক ওডিআই, টুয়েন্টি২০
সহঃ অধিনায়ক ও ব্যাটসম্যান
আয়শা রহমান (১৯৮৪-০১-১৪) ১৪ জানুয়ারি ১৯৮৪ (বয়স ৩৩) ডানহাতি - ওডিআই, টুয়েন্টি২০
ব্যাটসম্যান
ফারজানা হক (১৯৯৩-০৩-১৯) ১৯ মার্চ ১৯৯৩ (বয়স ২৪) ডানহাতি - ওডিআই, টুয়েন্টি২০
সানজিদা ইসলাম (১৯৯৬-০৩-০১) ১ মার্চ ১৯৯৬ (বয়স ২১) ডানহাতি - ওডিআই, টুয়েন্টি২০
লতা মণ্ডল (১৯৯৩-০১-১৬) ১৬ জানুয়ারি ১৯৯৩ (বয়স ২৪) ডানহাতি ডানহাতি মিডিয়াম ওডিআই, টুয়েন্টি২০
শারমিন আক্তার (১৯৯৫-১২-৩১) ৩১ ডিসেম্বর ১৯৯৫ (বয়স ২১) ডানহাতি - ওডিআই, টুয়েন্টি২০
তাহিন তাহেরা (১৯৯০-০৬-২৮) ২৮ জুন ১৯৯০ (বয়স ২৭) বামহাতি - ওডিআই, টুয়েন্টি২০
শারমিন সুলতানা (১৯৯৩-০১-১২) ১২ জানুয়ারি ১৯৯৩ (বয়স ২৪) ডানহাতি -
শায়লা শারমিন (১৯৮৯-০৭-১৬) ১৬ জুলাই ১৯৮৯ (বয়স ২৮) ডানহাতি ডানহাতি অফ ব্রেক ওডিআই, টুয়েন্টি২০
অল-রাউন্ডার
সালমা খাতুন (১৯৯০-০৮-০১) ১ আগস্ট ১৯৯০ (বয়স ২৭) ডানহাতি ডানহাতি অফ ব্রেক ওডিআই, টুয়েন্টি২০
জাহানারা আলম (১৯৯৩-০৪-০১) ১ এপ্রিল ১৯৯৩ (বয়স ২৪) ডানহাতি ডানহাতি মিডিয়াম ওডিআই, টুয়েন্টি২০
চামেলী খাতুন (১৯৮৮-১০-১১) ১১ অক্টোবর ১৯৮৮ (বয়স ২৯) ডানহাতি ডানহাতি স্লো ওডিআই, টুয়েন্টি২০
শুকতারা রহমান (১৯৯১-০৫-২৯) ২৯ মে ১৯৯১ (বয়স ২৬) ডানহাতি ডানহাতি অফ ব্রেক ওডিআই, টুয়েন্টি২০
নাহিদা আক্তার (২০০০-০৩-০২) ২ মার্চ ২০০০ (বয়স ১৭) ডানহাতি স্লো লেফট আর্ম অর্থোডক্স ওডিআই, টুয়েন্টি২০
ফাহিমা খাতুন (১৯৯২-১১-০২) ২ নভেম্বর ১৯৯২ (বয়স ২৪) ডানহাতি লেগ ব্রেক ওডিআই, টুয়েন্টি২০
উইকেট-রক্ষক
সুলতানা ইয়াসমিন (১৯৮৯-০৮-১৩) ১৩ আগস্ট ১৯৮৯ (বয়স ২৮) ডানহাতি - ওডিআই, টুয়েন্টি২০
নিগার সুলতানা (১৯৯৭-০৮-০১) ১ আগস্ট ১৯৯৭ (বয়স ২০) ডানহাতি - ওডিআই, টুয়েন্টি২০
নুজাত তাসনিয়া টুম্পা (১৯৯৬-১২-৩১) ৩১ ডিসেম্বর ১৯৯৬ (বয়স ২০) ডানহাতি -
বোলার
খাদিজা তুল কুবরা (১৯৯৫-০১-৩০) ৩০ জানুয়ারি ১৯৯৫ (বয়স ২২) ডানহাতি ডানহাতি অফ ব্রেক ওডিআই, টুয়েন্টি২০
সাথিরা জাকির (১৯৯০-১১-৩০) ৩০ নভেম্বর ১৯৯০ (বয়স ২৬) ডানহাতি ডানহাতি অফ ব্রেক ওডিআই, টুয়েন্টি২০
চম্পা চাকমা (১৯৮৮-১১-১১) ১১ নভেম্বর ১৯৮৮ (বয়স ২৮) বামহাতি স্লো লেফট আর্ম অর্থডক্স ওডিআই, টুয়েন্টি২০
ঋতু মণি (১৯৯৩-০২-০৫) ৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৩ (বয়স ২৪) ডানহাতি ডানহাতি মিডিয়াম ওডিআই, টুয়েন্টি২০
জান্নাতুল ফেরদৌস (১৯৯৯-১২-১২) ১২ ডিসেম্বর ১৯৯৯ (বয়স ১৭) ডানহাতি ডানহাতি অফ ব্রেক ওডিআই, টুয়েন্টি২০
সুরাইয়া আজমিন (১৯৯৯-০৫-২৯) ২৯ মে ১৯৯৯ (বয়স ১৮) ডানহাতি ডানহাতি মিডিয়াম ওডিআই, টুয়েন্টি২০
মুর্শিদা খাতুন ওডিআই

কোচ: ইংল্যান্ড ডেভিড ক্যাপেল

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Thailand lose warm-ups by Andrew Nixon, 8 July 2007 at CricketEurope
  2. ACC Women's Tournament at official Asian Cricket Council website
  3. "Ireland and Bangladesh secure ODI status"। ICC। সংগৃহীত ২৪ নভেম্বর ২০১১ 
  4. Isam, Mohammad (২৮ আগস্ট ২০১৬)। "Injured Salma Khatun out for Bangladesh Women"ESPNcricinfo (ইংরেজি ভাষায়)। 
  5. "Bangladesh Women tour of Ireland, 2016"Cricinfo (ইংরেজি ভাষায়)। 
  6. "আয়ারল্যান্ড সফরে বাংলাদেশ মহিলা দল"দৈনিক জনকন্ঠ। ২৯ আগস্ট ২০১৬। 
  7. "আয়ারল্যান্ড সফর : মহিলা ক্রিকেট দলের প্রাথমিক ক্যাম্প কাল শুরু"নয়া দিগন্ত। ৯ আগস্ট ২০১৬। 
  8. "Ireland Women To Play Bangladesh At Shaws Bridge"Cricket Ireland (ইংরেজি ভাষায়)। ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৬। 
  9. "Rumana's historic hat-trick seals series for Bangladesh, Ireland v Bangladesh, 3rd Women's ODI, Belfast" (ইংরেজি ভাষায়)। espncricinfo। ২০১৬-৯-১০। সংগৃহীত ২০১৬-৯-১১ 
  10. "Bangladesh Women Squad: Players"ESPN Cricinfo। সংগৃহীত ২৫ জানুয়ারি ২০১৭ 
  11. "India, South Africa ready for final of ICC Women's World Cup Qualifier 2017"International Cricket Council। সংগৃহীত ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  12. "All 10 squads for the ICC Women’s World Cup Qualifier 2017 confirmed"International Cricket Council। সংগৃহীত ২৫ জানুয়ারি ২০১৭