বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়

স্থানাঙ্ক: ২৩°৫৭′০৫″ উত্তর ৯০°২২′৪৭″ পূর্ব / ২৩.৯৫১৪৩০° উত্তর ৯০.৩৭৯৭৪৮° পূর্ব / 23.951430; 90.379748
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়
বাউবি
উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের লোগো.svg
ধরনউন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়
স্থাপিতঅক্টোবর ২১, ১৯৯২
আচার্যরাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ
উপাচার্যসৈয়দ হুমায়ুন আখতার
শিক্ষার্থী৫,৩৩,৬১৫ (২০১৮)
অবস্থান, ,
২৩°৫৭′০৫″ উত্তর ৯০°২২′৪৭″ পূর্ব / ২৩.৯৫১৪৩০° উত্তর ৯০.৩৭৯৭৪৮° পূর্ব / 23.951430; 90.379748
প্রোগ্রাম৪০
অধিভুক্তিবিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন
ওয়েবসাইটbou.edu.bd
বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যানার

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের সর্বস্তরের শিক্ষাকে দূরশিক্ষণ পদ্ধতির মাধ্যমে সকল স্তরের জনগনের কাছে পৌঁছে দেওয়ার উদ্দেশ্যে ঢাকার অদূরে গাজীপুরে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।[১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ কর্তৃক প্রণীত আইন অনুযায়ী ১৯৯২ সালের ২০ অক্টোবর বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়-এর জন্ম। এটি একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে অন ক্যাম্পাস (সিটি ক্যাম্পাস, ঢাকা) ও আউটার ক্যাম্পাস (স্টাডি সেন্টার সমূহ) দুই ধরনের শিক্ষা ব্যবস্থা প্রচলিত আছে। বহুমুখি শিক্ষা প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে জ্ঞান-বিজ্ঞানের সৃজন, চর্চা ও বিকাশকে অধিকতর গণমুখী ও জীবন-ঘনিষ্ঠ করে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে পৌঁছে দেয়ার মাধ্যমে একটি সুশিক্ষিত ও আত্মনির্ভরশীল জাতি গড়ে তুলতে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় বিশেষভাবে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

ঢাকা শহরের উত্তরে গাজীপুর জেলার বোর্ডবাজারে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল কাম্পাস অবস্তিত। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম সংগঠনের জন্য সারা দেশে রয়েছে ১২টি আঞ্চলিক কেন্দ্র, ৮০টি কো অর্ডিনেটিং আফিস এবং ১০০০টিরও অধিক টিউটোরিয়াল কেন্দ্রের বিশাল নেটওয়ার্ক। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও প্রশাসনিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য রয়েছে সাতটি একাডেমিক অনুষদক বা স্কুল এবং ১১টি প্রশাসনিক বিভাগ।

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় আইন (১৯৯২) অনুসারে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল কর্মকাণ্ড বোর্ড অব গভর্নরস, একাডেমিক কাউন্সিল, স্কুল, পাঠ্যক্রম কমিটি, অর্থ কমিটি প্রভৃতি কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত ও নীতিমালা অনুযায়ী পরিচালিত।

উপাচার্যগণ[সম্পাদনা]

নিম্নোক্ত ব্যক্তিবর্গ বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন:

আন্ডার গ্রাজুয়েট ও গ্রাজুয়েট কোর্স[সম্পাদনা]

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যায়ে সারা দেশের কলেজগুলোতে রয়েছে তিন বছর মেয়াদি ডিগ্রী কোর্স।

এছাড়াও রয়েছে চার বছর মেয়াদি অনার্স সমতুল্য বিবিএ প্রোগ্রাম।

চার বছর মেয়াদি অনার্স বিএ/বিএসএস কোর্স।

স্কুল অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি[সম্পাদনা]

ডিন: প্রফেসর ডা: সরকার নোমান (অধ্যাপক, মেডিকেল সায়েন্স বিভাগ) | প্রাক্তন ডিন:ড. কেএম রেজানুর রহমান (অধ্যাপক, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগ)

  • কম্পিউটার প্রকৌশল: চার বৎসরের ব্যাচেলর অব সায়েন্স (ডিগ্রী) ইন কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং
  • শিক্ষা কেন্দ্র (দুটি) : ক. ঢাকা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (ডুয়েট) এবং খ. ঢাকা আঞ্চলিক কেন্দ্র (সিটি ক্যাম্পাস),অইউ (ঢাকা কলেজ সংলগ্ন) ।
  • খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞান:চার বছরের ব্যাচেলর অব ফুড সায়ন্স এন্ড নিউট্রিশন(ডিগ্রী)
  • যন্ত্রপাতি প্রকৌশল: চার বৎসরের ব্যাচেলর সায়েন্স (ডিগ্রী) ইন ইলেকট্রনিক্স এন্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং
  • সফটওয়্যার প্রকৌশলে মাস্টার ডিগ্রী
  • ফার্মেসী: চার বৎসরের ব্যাচেলর সায়েন্স ‍(ডিগ্রী) ইন ফার্মেসী শীঘ্রই শুরু হবে।

চলমান স্বাস্থ্য বিষয়ক কোর্স

  • বিএসসি ইন নার্সি
  • এমএসসি ইন পঙ্গু ব্যবস্থাপনা ও পুর্নবাসন[৩]

স্কুল অব এগ্রিকালচারাল সায়েন্স[সম্পাদনা]

ডিন: প্রফেসর ড. ফরিদ হোসেন (অধ্যাপক, কৃষিবিজ্ঞান বিভাগ)

  • কৃষি: চার বৎসরের ব্যাচেলর অব সায়েন্স (অনার্স) ইন এগ্রিকালচার
  • মৎসবিজ্ঞান: চার বৎসরের ব্যাচেলর অব সায়েন্স (অনার্স) ইন ফিসারিজ

স্কুল অব বিজনেস[সম্পাদনা]

ডিন, প্রফেসর আজাদ কামাল (অধ্যাপক, অর্থনীতি বিভাগ)

  • ব্যবসায় প্রশাসন: চার বৎসরের ব্যাচেলর (ডিগ্রী) অব বিজনেস এডমিনিসট্রেশন
  • দুই বৎসরের মাস্টার অব বিজনেস এডমিনিসট্রেশন

ওপেন স্কুল[সম্পাদনা]

ডিন: মোসা: সাবিনা ইয়াসমিন (অধ্যাপক, হোম ইকোনমিক্স)

  • ব্যাচেলর অব বিজনেস স্টাডিস (BBS) : ২০০৫-২০০৬ সন সেশন থেকে চালু আছে।

স্কুল অব সোশাল সায়েন্স, হিউম্যানিটিস অ্যান্ড ল্যাঙ্গুয়েজ[সম্পাদনা]

ডিন: ড. জাহাঙ্গীর আলম (সহযোগী অধ্যাপক, বাংলা বিভাগ)

  • ৩ বছর মেয়াদি ব্যাচেলর অব আর্টস (BA)/ ব্যাচেলর অব সোশাল সায়েন্স।

অনার্স কোর্স: এছাড়াও রয়েছে ৪ বছর মেয়াদী স্নাতক (সম্মান) প্রোগ্রামঃ

  • আইন

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় আইন অনার্স ৪ বছর মেয়াদি কোর্স। বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যুদ্ধের মাধ্যমে মাত্র ৬০টি সিটের জন্য প্রতিযোগিতামূলক পরিক্ষার মাধ্যমে ছাত্র ভর্তি হয়ে থাকে। আইনের বিষয়ের ক্লাস শুধু মাত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ঢাকা আঞ্চলিক কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক কর্তৃক মূল্যায়িত হয়ে থাকে। বর্তমানে ড. নাহিদ ফেরদৌসী ম্যাম আইন বিভাগের চেয়ারম্যান হিসেবে নিযুক্ত রয়েছেন।

  • বাংলা ভাষা ও সাহিত্য
  • ইতিহাস
  • দর্শন
  • ইসলামি অধ্যয়ন
  • রাষ্ট্রবিজ্ঞান
  • সমাজতত্ত্ব
  • ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য [ শীঘ্রই শুরু হবে ]
  • অর্থনীতি [ শীঘ্রই শুরু হবে ]

স্কুল অব এডুকেশন[সম্পাদনা]

ডিন: প্রফেসর সুফিয়া বেগম (অধ্যাপক, প্রাণিবিজ্ঞান বিভাগ)

  • অনার্স কোর্স: ব্যাচেলর অব এডুকেশন-বিএড (অনার্স)
  • মাস্টার্স কোর্স: মাস্টার্স অব এডুকেশন-এম.এড (মাস্টার্স)

ভর্তির নিয়মাবলী[সম্পাদনা]

  • লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা (অনার্স, চার বছর মেয়াদী যেকোন ডিগ্রী ও ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ের ক্ষেত্রে)

ক্লাব সমূহ[সম্পাদনা]

  • বাংলাদেশ ওপেন ইউনিভার্সিটি ল' সোসাইটি
  • অইউ কম্পিউটার ক্লাব
  • ওপেন ইউনিভার্সিটি প্রোগ্রামিং ক্লাব
  • ওপেন ইউনিভার্সিটি কম্পিউটার সোসাইটি
  • ওপেন ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট ইউনিয়ন অব এসএসটি

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা[সম্পাদনা]

  • বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি যুগোপযুগী আধুনিক পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে উপস্থাপন করা। পর্যায়ক্রমে বিশ্ববিদ্যালয়টিকে একটি প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে উপস্থাপন করে এতে প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার মাধ্যমে মান সম্মত শিক্ষার মাধ্যম হিসেবে গড়ে তোলা হবে।
  • বর্তমানে বিএসসি ইন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং, বিএসসি ইন নার্সিং, এমএসসি ইন ডিএমআর, এমএসসি ইন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং, এলএলবি অনার্স, বিবিএ, এমবিএ, ইএমবিএ ও বিএসসি ইন এগ্রিকালচার কোর্সসহ বিভিন্ন বিষয়ের উপর চালু অনার্স ও ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়গুলোতে প্রতিযোগিতামূলক লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে অন্যান্য সরকারি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মত শিক্ষার্থীদেরকে ভর্তি করে নেওয়া হয়। অদূর ভবিষ্যতে এর পরিধি আরও বৃদ্ধি পাবে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. https://www.bou.edu.bd/ বাংলাদেশ উম্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়
  2. "উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন উপাচার্য হুমায়ুন আখতার"জাগোনিউজ২৪.কম। ৩০ জুন ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুলাই ২০২১ 
  3. https://www.bousst.edu.bd/ স্কুল অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]