আব্দুস সাত্তার খাঁন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
আব্দুস সাত্তার খাঁন
আব্দুস সাত্তার খাঁন.jpg
জন্মআনু. ১৯৪৯
আহলাদীপুর, বৃহত্তর ফরিদপুর
মৃত্যু৬ জুন, ১৯৭৫
গোয়ালন্দ মোড়, রাজবাড়ী
জাতীয়তাবাংলাদেশি
নাগরিকত্ব পাকিস্তান (১৯৭১ সালের পূর্বে)
 বাংলাদেশ
পরিচিতির কারণবীর প্রতীক
আত্মীয়

আব্দুস সাত্তার খাঁন (আনু. ১৯৪৯ - ৬ জুন ১৯৭৫) বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী একজন মুক্তিযোদ্ধা। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে সাহসিকতা প্রদর্শনের জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে বীর প্রতীক খেতাব প্রদান করে।

জন্ম ও শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

আব্দুস সাত্তার খাঁন রাজবাড়ী জেলার তৎকালীন মামুনপুর (বর্তমান বসন্তপুর ও শহীদওহাবপুর ইউনিয়নের সমন্বিত ইউনিয়ন) ইউনিয়নের আহলাদীপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম আব্দুর রহমান খান এবং মাতার নাম ছিলো মোসাম্মৎ আজিমুন্নেসা। চার ভাই ও চার বোনের মধ্যে আব্দুস সাত্তার খান সেজ। তার ছোট ভাই বীর প্রতিক আব্দুল ওহাব খাঁনও ছিলেন একজন মুক্তিযোদ্ধা।

দেশ স্বাধীনের পরবর্তীতে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সাত্তার খাঁন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা প্রথম বর্ষের ছাত্র ছিলেন। থাকতেন জহুরুল হক হলে। তিনি ৭ নং শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়ন পরিষদ প্রতিষ্ঠা করেন এবং এই বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় ইউনিয়নের প্রথম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

যেভাবে মারা গেলেন[সম্পাদনা]

১৯৭৫ সালের পরবর্তী সময়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সাত্তার খাঁন একদিন প্রচন্ড ঝড় বৃস্টির মধ্যে গোয়ালন্দ মোড় সংলগ্ন টেক্সটাইল মিলের সন্নিকটে আরব হোটেলের মধ্যে আশ্রয় নেন। এসময় এখানেই আব্দুস সাত্তার খান আততায়ীর (জাসদ বাহিনী) হাতে গুলি বর্ষনে নিহত হন। স্বাধীন বাংলার বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ আব্দুস সাত্তার খাঁন।

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

স্বাধীনতা যুদ্ধে তার সাহসিকতার জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে বীর প্রতীক খেতাব প্রদান করে।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]