জুলফিকার আলী ভুট্টো

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
জুলফিকার আলী ভুট্টো
Zulfikar Ali Bhutto
ذوالفقار علی بھٹو
Zulfikar Ali Bhutto 1971.jpg
১৯৭১ সালে জুলফিকার আলী ভুট্টো
৯তম পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী
অফিসে
১৪ আগষ্ট ১৯৭৩ – ৫ জুলাই ১৯৭৭
রাষ্ট্রপতি ফজল ইলাহী চৌধুরী
পূর্বসূরী নুরুল আমিন
উত্তরসূরী মুহাম্মদ খান জুনেজো
৪র্থ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী
অফিসে
২০ ডিসেম্বর ১৯৭১ – ১৩ আগষ্ট ১৯৭৩
উপরাষ্ট্রপতি নুরুল আমিন
পূর্বসূরী ইয়াহিয়া খান
উত্তরসূরী ফজল ইলাহী চৌধুরী
জাতীয় পরিষদের স্পিকার
অফিসে
১৪ এপ্রিল ১৯৭২ – ১৫ আগস্ট ১৯৭২
পূর্বসূরী আব্দুল জব্বার খান
উত্তরসূরী ফজল ইলাহী চৌধুরী
পররাষ্ট্র মন্ত্রী
অফিসে
১৫ জুন ১৯৬৩ – ৩১ আগস্ট ১৯৬৬
রাষ্ট্রপতি আইয়ুব খান
পূর্বসূরী মোহাম্মদ আলী বগড়া
উত্তরসূরী শরিফুদ্দিন পিরজাদা
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (১৯২৮-০১-০৫)৫ জানুয়ারি ১৯২৮
লরখনা, সিন্ধ, ব্রিটিশ ভারত
(এখন পাকিস্তান)
মৃত্যু ৪ এপ্রিল ১৯৭৯(১৯৭৯-০৪-০৪) (৫১ বছর)
রাওয়ালপিন্ডি, পাকিস্তান
রাজনৈতিক দল পাকিস্তান পিপলস পার্টি
দাম্পত্য সঙ্গী নুসরাত ইস্পাহানী
সম্পর্ক Bhutto family
সন্তান বেনজির
Murtaza
Sanam
Shahnawaz
প্রাক্তন ছাত্র University of California, Berkeley
Christ Church, Oxford
Inns of Court School of Law
জীবিকা Lawyer
Politician
ধর্ম Islam
আমেরিকার ওয়াইট হাউসে জুলফিকার আলী ভুট্টো

জুলফিকার আলী ভুট্টো (জানুয়ারি ৫, ১৯২৮এপ্রিল ৪, ১৯৭৯) পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী১৯৫৮ সালে তিনি মন্ত্রী সভায় যোগ দেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রীর দায়িত্ব পান ১৯৬৩ সালে। আইয়ুব খানের মন্ত্রীসভা ত্যাগ করে ১৯৬৭ সালে নিজে আলাদা দল গঠন করেন যার নাম দেয়া হয় পাকিস্তান পিপ্‌লস পার্টি। ১৯৭০ সালে পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনে তার দল পশ্চিম পাকিস্তানে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে। কিন্তু পূর্ব পাকিস্তানের আওয়ামী লীগ সার্বিক সংখ্যা গরিষ্ঠতা অর্জন করা সত্ত্বেও তাদের উপর ক্ষমতা অর্পণে ভুট্টো আপত্তি তুলেন। ১৯৭১ সালের বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে পাকিস্তানের পরাজয়ের পর ভুট্টো ইয়াহিয়া খানের স্থলে পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট হন। ১৯৭৩ সালে দেশের সংবিধান পরিবর্তনের মাধ্যমে তিনি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদ গ্রহণ করেন। ১৯৭৭ সালে পুনরায় প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন। কিন্তু অল্পদিনের মধ্যেই জেনারেল জিয়াউল হক দ্বারা সংঘটিত এক সামরিক অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যূত হন। এক ব্যক্তিকে হত্যার ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার অভিযোগে ১৯৭৯ সালে সামরিক আদালত তাকে মৃত্যুদন্ডে দন্ডিত করে। তিনি পাকিস্তান পিপলস্‌ পার্টির প্রধান ছিলেন। তার মেয়ে বেনজির ভুট্টো পরে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]