দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ (চলচ্চিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ
The Concert for Bangladesh film poster.jpg
চলচ্চিত্রের পোস্টার
পরিচালক সল সুইমার
প্রযোজক জর্জ হ্যারিসন
অ্যালেন ক্লেইন
অভিনেতা জর্জ হ্যারিসন
রবিশঙ্কর
বব ডিলান
রিঙ্গো স্টার
লেওন রাসেল
বিলি প্রিস্টন
এরিক ক্ল্যাপটন
ক্লস ভোরম্যান
সুরকার জর্জ হ্যারিসন(প্রযোজক)
ফিল স্পেক্টার (প্রযোজক)
সম্পাদক রিচার্ড ব্রুকস
স্টুডিও অ্যাপল ফিল্মস
পরিবেশক টুয়েন্টিয়েথ সেঞ্চুরি ফক্স
মুক্তি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ২৩ মার্চ ১৯৭২
যুক্তরাজ্য ২৭ জুলাই ১৯৭২
দৈর্ঘ্য ১০৩ মিনিট
দেশ যুক্তরাষ্ট্র
ভাষা ইংরেজি
আয় $২.৫ মিলিয়ন (ইউএস/কানাডা)[১]

দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ হল ১৯৭২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সল সুইমার পরিচালিত একটি চলচ্চিত্র। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের আন্তর্জাতিক সচেতনতা এবং শরণার্থীদের জন্য তহবিল ত্রাণ প্রচেষ্টা বাড়াতে ১৯৭১ সালের ১ আগস্ট নিউ ইয়র্কের ম্যাডিসন স্কয়ার গার্ডেনে অনুষ্ঠিত জর্জ হ্যারিসন এবং রবি শঙ্কর আয়োজিত দুটি বেনেফির কনসার্টের ঘটনাকে ভিত্তি করে চলচ্চিত্রটি নির্মিত হয়। হ্যারিসন এবং শঙ্করের পারফরম্যান্স ছাড়াও চলচ্চিত্রটিতে হ্যারিসনের বিটলস ব্যান্ডের প্রাক্তন সহকর্মী রিংগো স্টার, বিলি প্রিস্টন এবং লেওন রাসেলকেও দেখা যায়। এছাড়াও এতে ছিল বব ডিলানের হেঁটে যাওয়ার দৃশ্য। সংগীতজ্ঞদের মধ্যে আলী আকবর খান, এরিক ক্ল্যাপটন, ব্যাডফিঙ্গার ব্যান্ড, ক্লস ভোরম্যান, জেস এস ডেভিস, জিম হর্ন এবং জিম কেল্টনার এতে অবদান রাখেন।

প্রাক্তন পূর্ব পাকিস্তানের জনগণের[২] জন্য হ্যারিসনের "পায়োনিয়ারিং" অনুদান প্রকল্পের শেষ কার্যক্রম ছিল চলচ্চিত্রটি। এর আগের কার্যক্রমগুলো ছিল "বাংলা দেশ" চ্যারিটি সিঙ্গেল, ইউনিসেফ বেনিফিট কনসার্ট, এবং "জর্জ হ্যারিসন অ্যান্ড হিস ফ্রেন্ডস" নির্মিত ট্রিপল লাইভ অ্যালবামদ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ বিটলসের অ্যাপল ফিল্মস কর্তৃক প্রযোজিত হয়। ১৯৭২ সালের বসন্তে চলচ্চিত্রটি যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তিলাভ করে। কনসার্টটির যথাযথ ভিডিও ফুটেজের অভাবে মুক্তি দিতে কিছুটা দেরি হয়ে যায়। ২০০৫ সালে দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ রিভিজিটেড উইথ জর্জ হ্যারিসন অ্যান্ড ফ্রেন্ডস নামক নব্যনির্মিত তথ্যচিত্রটির সাথে চলচ্চিত্রটি ডিভিডিতে বের হয়। তথ্যচিত্রে ঐ অনুষ্ঠানের বেশ কয়েকজন অংশগ্রহণকারীর স্মৃতিচারণা, তখনকার ইউএন সেক্রেটারি-জেনারেল কফি আনান, ইউনিসেফ-এর ইউএস ফান্ডের সভাপতি চার্লস লিওনস এবং লাইভ এইডের প্রতিষ্ঠাতা বব গিল্ডফ প্রমুখের কাছ থেকে সংগৃহীত তথ্যও ছিল।

লাইভ অ্যালবামের মতই চলচ্চিত্রটির ডিভিডি বিক্রিত সকল অর্থ ইউনিসেফের জর্জ হ্যারিসন ফান্ডে অন্তর্ভুক্ত হয়।

টীকা[সম্পাদনা]

  1. Solomon, Aubrey. Twentieth Century Fox: A Corporate and Financial History (The Scarecrow Filmmakers Series). Lanham, Maryland: Scarecrow Press, 1989. আইএসবিএন ৯৭৮-০-৮১০৮-৪২৪৪-১. p232. Please note figures are rentals accruing to distributors and not total gross.
  2. The Editors of Rolling Stone, p. 43.

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]