শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়ন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
শহীদ ওহাবপুর
ইউনিয়ন
দেশবাংলাদেশ
বিভাগঢাকা বিভাগ
জেলারাজবাড়ী জেলা
উপজেলারাজবাড়ী সদর উপজেলা উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
সরকার
 • চেয়ারম্যানমোঃ তোরাপ আলী মন্ডল
আয়তন
 • মোট১৮.৪ বর্গকিমি (৭.১ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট১৪,৭৮৯
 • জনঘনত্ব৮০০/বর্গকিমি (২,১০০/বর্গমাইল)
সাক্ষরতার হার
 • মোট৩৪.৮৯%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড৭৭১১ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

শহীদ ওহাবপুর বাংলাদেশের রাজবাড়ী জেলার রাজবাড়ী সদর উপজেলার অন্তর্গত একটি ইউনিয়ন। বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ওহাব খাঁনের নামানুসারে এই ইউনিয়নের নামকরণ করা হয়।

আয়তন[সম্পাদনা]

আয়তন: ৪৫৪৩ একর (১৮.৪বর্গ কিলোমিটার)। ইউনিয়নে ২৩৬৯টি বাড়ি রয়েছে।

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

১৯৯১ আদমশুমারির (লোক গণনা) অনুযায়ী শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়নর জনসংখ্যা ছিল ১২,৯২১ জন। বর্তমানে শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়নের জনসংখ্যা ১৪,৭৮৯ জন (পুরুষ ৭৭৮৭ জন ও নারী ৭০০২ জন)।

অবস্থান ও সীমানা[সম্পাদনা]

গোয়ালন্দমোড় থেকে ২ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে শহীদওহাবপুর ইউনিয়ন অবস্থিত। এর উত্তরে রুপপুর, দক্ষিণে বড় নুরপুর, পূর্বে মধুপুর এবং পশ্চিমে দর্প নারায়ণপুর।

প্রশাসনিক কাঠামো[সম্পাদনা]

শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়ন রাজবাড়ী সদর উপজেলার আওতাধীন ৭নং ইউনিয়ন পরিষদ। এ ইউনিয়নের প্রশাসনিক কার্যক্রম উপজেলার রাজবাড়ী সদর থানার আওতাধীন। এটি ১০টি মৌজায় বিভক্ত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ব্রিটিশ শাসনামলের আনুমানিক ১৯৪৩ সালে প্রথম গোয়ালন্দ মহকুমার অধীনে বর্তমান বসন্তুপুর ও শহীদ ওহাবপুর এই ২টি ইউনিয়ন নিয়ে মামুনপুর ইউনিয়ন গঠিত হয়েছিল।

ঔ সময়ে ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যানকে গ্রাম প্রেসিডেন্ট বলা হতো।

১৯৫০ সালে পাকিস্তান শাসন আমলে গ্রাম প্রেসিডেন্ট এর পদকে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান পদবী ঘোষণা করা হয়।

১৯৭২ এ মামুনপুর ভাগ হয়ে বসন্তুপুর ও শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়ন গঠিত হয়। শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এর দ্বায়ীত্ব পালন করেন, জনাব, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সাত্তার খাঁন

বর্তমানে ১৪টি ছোট/বড় গ্রাম নিয়ে ৭নং শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়ন পরিষদ।

৭নং শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়ন পরিষদ নাম বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ওহাব খাঁন এর নাম অনুসারে নাম করণ করা হয়েছে। তিনি ছিলেন আব্দুর রহমানের ছোট ছেলে।

১৯৭১ সালে ৯ই ডিসেম্বর ফরিদপুর জেলার অন্তগত কানাইপুর, করিমপুর ব্রীজের পাশে পাক-বাহিনীর সম্মুখ যুদ্ধে তিনি শহীদ হন। এই বীর মুক্তি যোদ্ধার নামেই ৭ নং শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়ন পরিষদ গঠিত হয়।

নামকরণ[সম্পাদনা]

১৯৭১ সালে ৯ই ডিসেম্বর ফরিদপুর জেলার অন্তগত কানাইপুর, করিমপুর ব্রীজের পাশে পাক-বাহিনীর সম্মুখ যুদ্ধে শহীদ হন ওহাব খাঁন। পরবর্তীতে এই বীর মুক্তি যোদ্ধার নামেই ৭ নং শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়ন পরিষদ গঠিত হয়।

শিক্ষা ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়নের সাক্ষরতার হার ৩৪.৮৯৯%।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান[সম্পাদনা]

মাধ্যমিক বিদ্যালয়
  • ধুলদি জয়পুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় -১৯৯৭ সালে স্থাপিত
  • আলহাজ্ব নিজাম উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় ০১/০১/১৯৫০ সালে স্থাপিত
প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • আলাদিপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ১৯৫৫ ইং সালে স্থাপিত
  • মধুপুর ছকিরন নেছা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ১৯৯০ সালে স্থাপিত

যোগাযোগ ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

শহীদ ইউনিয়নে যোগাযোগের প্রধান সড়ক ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক। সব ধরনের যানবাহনে যোগাযোগ করা যায়।

হাট-বাজার[সম্পাদনা]

ইউনিয়নের প্রধান ২টি হাট/বাজার হল : ১।কুটির হাট

২।গোয়ালন্দ মোড়

এই সকল হাট বাজারে বিভিন্ন  প্রকার পন্য সামগ্রী ক্রয় ও বিক্রয় করা হয় । তাছাড়া এই কুটির হাটে সপ্তাহে দুটি হাট বসে শনিবার ও বুধবার । এবং ঐ হাটে সকাল ও বিকাল বিভিন্ন মাছ বিক্রয় করা হয় ।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]