বিষয়বস্তুতে চলুন

জাতীয় গণহত্যা স্মরণ দিবস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(বাঙালি গণহত্যা স্মরণ দিবস থেকে পুনর্নির্দেশিত)
জাতীয় গণহত্যা দিবস
গণহত্যা স্মরণ দিবস
পালনকারীবাংলাদেশ
প্রবাসী বাংলাদেশি
ধরনজাতীয়
তাৎপর্য১৯৭১ সালে পাকিস্তানি বাহিনী কর্তৃক গণহত্যায় নিহতদের স্মরণ
তারিখ২৫ মার্চ
পরবর্তী আয়োজন২৫ মার্চ ২০২৫
সংঘটনবার্ষিক
প্রথম বার২০১৭[১]

জাতীয় গণহত্যা দিবস' বা বাঙালি গণহত্যা স্মরণ দিবস বাংলাদেশে পালিত একটি দিবস। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে পাকিস্তানি বাহিনী কর্তৃক নির্মম গণহত্যায় নিহতদের স্মরণে দিবসটি পালন করা হয়। ২০১৭ সালের ১১ মার্চ জাতীয় সংসদে দিবসটি পালনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।[১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালরাতে পাকিস্তানি সামরিক বাহিনী তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের (বর্তমান বাংলাদেশ) স্বাধীনতা আন্দোলনকে দমিয়ে দেওয়ার জন্য অপারেশন সার্চলাইট নামে একটি সামরিক অভিযানের মাধ্যমে দেশের প্রধান শহরের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার জন্য বাঙালিদের ওপর গণহত্যা চালায়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে গ্রেফতার করে পশ্চিম পাকিস্তানে নিয়ে যাওয়া হয়।[২] অভিযান শুরু করার পূর্বে সকল বিদেশি সাংবাদিকদের পূর্ব পাকিস্তান থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়।[৩][৪] বাঙালিদের ওপর আক্রমণের পর গ্রেফতার হওয়ার পূর্বে ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। এর মধ্য দিয়েই বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ শুরু হয় এবং বাংলাদেশ স্বাধীনতা লাভ করে।

পাকিস্তানি সামরিক বাহিনী কর্তৃক অপারেশন সার্চলাইটে নিহত ও আক্রান্তদের স্মরণে ২০১৭ সালের ১১ মার্চ বাংলাদেশের জাতীয় সংসদে ২৫শে মার্চকে "গণহত্যা দিবস" হিসেবে পালন করার সিদ্ধান্ত সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়।[৫]

আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি[সম্পাদনা]

অন্তর্জাতিক ভাবে ২৫ মার্চকে গণহত্যা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি আদায়ে কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। ইতোমধ্যে এই অপরাধযজ্ঞকে গণহত্যা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে জেনোসাইড ওয়াচ এবং লেমকিন ইন্সটিটিউট ফর জেনোসাইড প্রিভেনশন। এছাড়া সংস্থা দুটি জাতিসঙ্ঘসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে বাংলাদেশে সংঘটিত গণহত্যাকে স্বীকৃতি প্রদানের জন্য আহ্বান জানিয়েছে।[৬] এই নৃশংস গণহত্যাকে আরও স্বীকৃতি দিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন অব জেনোসাইড স্কলারস (আইএজিএস)। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ২৪ এপ্রিল ২০২৩ তারিখের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।[৭]

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "২৫ মার্চ 'গণহত্যা দিবস' ঘোষণা"কালের কণ্ঠ। ১২ মার্চ ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০২১ 
  2. সালিক, সিদ্দিক, Witness To Surrender, পৃষ্ঠা:৬৩, ২২৮-৯ আইএসবিএন ৯৮৪-০৫-১৩৭৩-৭
  3. সিদ্দিকী, আসিফ (ডিসেম্বর ১৯৯৭)। "From Deterrence and Coercive Diplomacy to War: The 1971 Crisis in South Asia"। জার্নাল অফ ইন্টারন্যাশনাল এন্ড এরিয়া স্টাডিজ (১): ৭৩–৯২। জেস্টোর 43106996 
  4. "পাকিস্তানিদের বর্বরতার সাফাই গায় হামুদুর রেহমান কমিশন"বাংলা ট্রিবিউন। ৮ মে ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০২১ 
  5. "গণহত্যা দিবস আজ"বাংলা ট্রিবিউন। ৬ ডিসেম্বর ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০২১ 
  6. ২৫ মার্চকে গণহত্যা দিবসের স্বীকৃতি দেয়ায় সংশ্লিষ্টদের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ধন্যবাদ, নয়া দিগন্ত, ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২২
  7. একাত্তরের গণহত্যার স্বীকৃতি দিলো আইএজিএস, আরটিভি অনলাইন, ২৫ এপ্রিল ২০২৩