তরিকুল ইসলাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
তরিকুল ইসলাম
তরিকুল ইসলাম.jpg
খাদ্য মন্ত্রণালয়
কাজের মেয়াদ
১০ অক্টোবর ২০০১ – ১৩ মার্চ ২০০২
প্রধানমন্ত্রীখালেদা জিয়া
তথ্য মন্ত্রণালয়
কাজের মেয়াদ
১১ মার্চ ২০০২ – ৬ মে ২০০৪
প্রধানমন্ত্রীখালেদা জিয়া
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম(১৯৪৬-১১-১৬)১৬ নভেম্বর ১৯৪৬
যশোর, বাংলাদেশ
মৃত্যু৪ নভেম্বর ২০১৮(2018-11-04) (বয়স ৭১)
অ্যাপোলো হাসপাতাল ঢাকা
নাগরিকত্ব ব্রিটিশ ভারত (১৯৪৭ সাল পর্যন্ত)
 পাকিস্তান (১৯৭১ সালের পূর্বে)
 বাংলাদেশ
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল

তরিকুল ইসলাম (জন্ম : ১৬ই নভেম্বর ১৯৪৬ - মৃত্যু: ৪ঠা নভেম্বর ২০১৮[১]) হলেন একজন বাংলাদেশী রাজনীতিবিদ, বাংলাদেশ সরকারের সাবেক মন্ত্রী ও সাংবাদিক। তিনি দৈনিক লোকসমাজ পত্রিকার প্রকাশক ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ছিলেন।[১]

জন্ম ও শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

তরিকুল ইসলাম ১৯৪৬ সালের ১৬ নভেম্বর যশোরে জন্মগ্রহণ করেন। পিতা আব্দুল আজিজ পেশায় একজন ব্যবসায়ী ছিলেন ও মাতা মোসাম্মৎ নূরজাহান বেগম ছিলেন একজন গৃহিণী।

পারিবারিক ব্যবস্থাপনায় ইসলামের বাল্যশিক্ষা শুরু হয়। অতঃপর ১৯৫৩ সালে তিনি যশোর জিলা স্কুলে তৃতীয় শ্রেণীতে ভর্তি হন এবং ১৯৬১ সালে তিনি এই স্কুল থেকে প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। ১৯৬৩ সালে তিনি যশোর মাইকেল মধুসূদন মহাবিদ্যালয় থেকে আই.এ. এবং ১৯৬৮ অর্থনীতিতে বি.এ. (অনার্স) ডিগ্রী লাভ করেন। ১৯৬৯ সালে তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অর্থনীতিতে এম.এ. ডিগ্রী লাভ করেন।

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

তরিকুল ইসলামের স্ত্রী নারর্গিস ইসলাম যশোর সরকারি সিটি কলেজে বাংলা বিভাগের উপাধ্যাক্ষ পদে কর্মরত আছেন। তাদের দুটি ছেলে সন্তান (অমিত ও সুমিত) রয়েছে।

মৃত্যু[সম্পাদনা]

তরিকুল ইসলাম ঢাকার এপোলো হাসপাতালে ৪ নভেম্বর ২০১৮ তারিখে ৫.০৫ মিনিটে ইন্তেকাল করেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে কিডনি, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, ডায়াবেটিসসহ বিভিন্ন দুরারোগ্য জটিল রোগে ভুগছিলেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "বিএনপি নেতা তরিকুল ইসলাম আর নেই"প্রথম আলো। ২০১৮-১১-০৪। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-১১-০৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]