ভাওয়াল এক্সপ্রেস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ভাওয়াল এক্সপ্রেস
সংক্ষিপ্ত বিবরণ
পরিষেবা ধরনমেইল ট্রেন
বর্তমান পরিচালকবাংলাদেশ রেলওয়ে
যাত্রাপথ
শুরুদেওয়ানগঞ্জ বাজার রেলওয়ে স্টেশন
শেষকমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন
যাত্রার গড় সময়৮ ঘণ্টা
পরিষেবার হারদৈনিক
রেল নং৫৫/৫৬
যাত্রাপথের সেবা
আসন বিন্যাসআছে
ঘুমানোর ব্যবস্থানাই
অটোরেক ব্যবস্থানাই
খাদ্য সুবিধানাই
পর্যবেক্ষণ সুবিধাআছে
বিনোদন সুবিধাআছে
মালপত্রের সুবিধাআছে
কারিগরি
ট্র্যাক গেজ১,০০০ মিলিমিটার (৩ ফুট   ইঞ্চি)

ভাওয়াল এক্সপ্রেস (ট্রেন নাম্বর-৫৫/৫৬) বাংলাদেশ রেলওয়ের একটি যাত্রীবাহী ট্রেন। দেওয়ানগঞ্জ বাজার থেকে ঢাকা যাত্রাপথে জামালপুর জেলা, ময়মনসিংহ জেলাগাজীপুর জেলাকে সংযুক্ত করে।[১]

যাত্রী[সম্পাদনা]

ভাওয়াল এক্সপ্রেস বৃহত্তর ময়মনসিংহ বাসীর ঢাকা যাওয়ার একটি জনপ্রিয় ট্রেন। এই ট্রেনে প্রায় সবসময় যাত্রীচাপ থাকে।

রেলপথ[সম্পাদনা]

ভাওয়াল এক্সপ্রেস নারায়ণগঞ্জ-বাহাদুরাবাদ ঘাট রেলপথে চলাচল করে।

যাত্রাপথ[সম্পাদনা]

ভাওয়াল এক্সপ্রেস জামালপুর> ময়মনসিংহ> গাজীপুর> ঢাকা রেলপথে চলাচল করে এবং যাত্রাপথে থাকা প্রায় সকল স্টেশনে যাত্রাবিরতি দেয়।[২]

স্টেশন তালিকা[সম্পাদনা]

ভাওয়াল এক্সপ্রেস যেসকল রেলওয়ে স্টেশন দিয়ে চলাচল করে:

সময়সূচি[সম্পাদনা]

ভাওয়াল এক্সপ্রেস,

  • ঢাকা থেকে ছাড়ে রাত ৭টা ৩৫ মিনিটে, দেওয়ানগঞ্জ বাজার পৌঁছায় ভোর ৪টা ২০ মিনিটে।[৩]
  • দেওয়ানগঞ্জ বাজার থেকে ছাড়ে রাত ২টায়, ঢাকা পৌঁছায় সকাল ১১টা ৪৫ মিনিটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. প্রতিবেদক, নিজস্ব। "ভাওয়াল এক্সপ্রেস ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত"আজকের পত্রিকা - Ajker Patrika। ২০১৯-১১-২২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-২৮ 
  2. "যাত্রীচাপ ব্যাপক, তবুও ধুঁকছে ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ রেলপথ"যুগান্তর। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-২৮ 
  3. "নতুন সময়সূচি নিয়ে আপত্তি"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-২৮