কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস
Kurigram Express with 3016.jpg
২০২১ সালে কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস
সংক্ষিপ্ত বিবরণ
পরিষেবা ধরনআন্তঃনগর
অবস্থাসচল
প্রথম পরিষেবা১৭ অক্টোবর ২০১৯; ২ বছর আগে (17 October 2019)
বর্তমান পরিচালকবাংলাদেশ রেলওয়ে
যাত্রাপথ
শুরুকমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন
বিরতি৮টি
শেষকুড়িগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন
ভ্রমণ দূরত্ব৪৫৪ কিলোমিটার (২৮২ মাইল)
যাত্রার গড় সময়৯ ঘণ্টা ৫০ মিনিট
পরিষেবার হারসপ্তাহে ৬ দিন (বুধবার বন্ধ)
রেল নং৭৯৭/৭৯৮
যাত্রাপথের সেবা
শ্রেণী
  • তাপানুকুল স্লিপার
  • তাপানুকুল চেয়ার
  • শোভন চেয়ার
আসন বিন্যাসআছে
ঘুমানোর ব্যবস্থাআছে
খাদ্য সুবিধাঅন-বোর্ড
মালপত্রের সুবিধাওভারহেড রেক
কারিগরি
গাড়িসম্ভার
  • ১টি ২৯০০ শ্রেণীর লোকোমোটিভ
  • ১টি তাপানুকুল স্লিপার
  • ২টি তাপানুকুল চেয়ার
  • ৮টি শোভন চেয়ার
  • ১টি পাওয়ার কার
  • ২টি শোভন চেয়ার+খাবার গাড়ী+গার্ডব্রেক
ট্র্যাক গেজ১,০০০ মিলিমিটার (৩ ফুট   ইঞ্চি)
ট্র্যাকের মালিকবাংলাদেশ রেলওয়ে
রক্ষণাবেক্ষণঢাকা

কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস (ট্রেন নং ৭৯৭/৭৯৮) বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃক পরিচালিত বাংলাদেশের একটি আন্তঃনগর ট্রেন।[১] এটি ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনকুড়িগ্রামের কুড়িগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনের মধ্যে চলাচল করে। ট্রেনটি যাত্রাপথে নাটোর, বগুড়া, জয়পুরহাট, দিনাজপুররংপুর জেলাকে সংযুক্ত করেছে।

কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ঢাকা ও কুড়িগ্রাম জেলার মধ্যে চলাচলকারী প্রথম আন্তঃনগর ট্রেন। ২০২০ সালের ১৬ই অক্টোবর ট্রেনটি উদ্বোধন করা হয়, এবং এর পরের দিন থেকে ট্রেনটি রেলসেবায় যুক্ত হয়।[২] কুড়িগ্রাম জেলার নাম অনুসারে ট্রেনটির নামকরণ করা হয়। ঢাকা-কুড়িগ্রাম রুটে যাত্রীবাহী ট্রেন হিসেবে একমাত্র কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস চলাচল করে। ট্রেনটির বেজ কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন।

সময়সূচী

(বাংলাদেশ রেলওয়ের সময়সূচী পরিবর্তনশীল। বাংলাদেশ রেলওয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে সর্বশেষ সময়সূচী যাচাই করার জন্য অনুরোধ করা হলো। নিম্নোক্ত সময়সূচীটি বাংলাদেশ রেলওয়ের ৫২তম সময়সূচী অনুযায়ী, যা ২০২০ সালের ১০ই জানুয়ারি হতে কার্যকর।)

ট্রেন

নং

উৎস প্রস্থান গন্তব্য প্রবেশ সাপ্তাহিক

ছুটি

৭৯৭ কমলাপুর ২০:৪৫ কুড়িগ্রাম ০৬:১৫ বুধবার
৭৯৮ কুড়িগ্রাম ০৭:১৫ কমলাপুর ১৭:২৫

যাত্রাবিরতি

(অনেকসময় বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃক কোনো ট্রেনের যাত্রাবিরতি পরিবর্তিত হতে পারে। নিম্নোক্ত তালিকাটি ২০২০ সাল অব্দি কার্যকর।)

রোলিং স্টক

ট্রেনটিতে সাধারণত ২৯০০ শ্রেণীর লোকোমোটিভ ব্যবহার করা হয়। ট্রেনটি লাল-সবুজ রঙের ইন্দোনেশীয় এয়ার ব্রেকের কোচের রেকে ১৪/৩৮ লোডে চলে। এটি পূর্বে রংপুর এক্সপ্রেসলালমনি এক্সপ্রেসের সাথে রেক শেয়ার করে চলতো। ৭৯৭-এর আসন সংখ্যা ৫৯৬টি এবং ৭৯৮-এর আসন সংখ্যা ৬২৬টি।[২]

তথ্যসূত্র

  1. "জেনে নিন নতুন ট্রেন কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেসের সময়সূচি"। kalerkantha.com। ১৫ অক্টোবর ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ অক্টোবর ২০১৯ 
  2. "কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেসের উদ্বোধন, ঢাকার দিকে ছুটবে কাল"প্রথম আলো। ২০২০-১০-১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১০-১৬ 

বহিঃসংযোগ