মেঘনা এক্সপ্রেস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মেঘনা এক্সপ্রেস
সংক্ষিপ্ত বিবরণ
পরিষেবা ধরনআন্তঃনগর
অবস্থাপরিচালিত হচ্ছে
প্রথম পরিষেবা১৯৮৫ খ্রি.
বর্তমান পরিচালকবাংলাদেশ রেলওয়ে (পূর্বাঞ্চল)
যাত্রাপথ
শুরুচট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন
শেষচাঁদপুর রেলওয়ে স্টেশন
ভ্রমণ দূরত্ব১৮০ কিলোমিটার (১১০ মাইল)
পরিষেবার হারদৈনিক
রেল নং৭২৯/৭৩০
যাত্রাপথের সেবা
শ্রেণী
  • প্রথম
  • শোভন চেয়ার
  • শোভন
আসন বিন্যাসআছে
খাদ্য সুবিধাআছে
মালপত্রের সুবিধাওভারহেড র্যাক
কারিগরি
ট্র্যাক গেজ১০০০ মিলিমিটার
রক্ষণাবেক্ষণচট্টগ্রাম

মেঘনা এক্সপ্রেস (ট্রেন নম্বর ৭২৯/৭৩০) বাংলাদেশের একটি আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিস। এটি চট্টগ্রাম জেলার চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন থেকে চাঁদপুর জেলার চাঁদপুর রেলওয়ে স্টেশন পর্যন্ত চলাচল করে, এবং যাত্রাপথে ফেনীকুমিল্লা জেলাকে সংযুক্ত করে। এটি বাংলাদেশ রেলওয়ে দ্বারা পরিচালিত হয়। এটি ১৯৮৫ সালে চালু হয়[১] ও চট্টগ্রাম-চাঁদপুর রুটে চলা একমাত্র আন্তঃনগর ট্রেন।

সময়সূচী[সম্পাদনা]

(বাংলাদেশ রেলওয়ের সময়সূচী পরিবর্তনশীল। বাংলাদেশ রেলওয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে সর্বশেষ সময়সূচী যাচাই করার জন্য অনুরোধ করা হলো। নিম্নোক্ত সময়সূচীটি বাংলাদেশ রেলওয়ের ৫২তম সময়সূচী অনুযায়ী, যা ২০২০ সালের ১০ই জানুয়ারি হতে কার্যকর।)

ট্রেন

নং

উৎস প্রস্থান গন্তব্য প্রবেশ সাপ্তাহিক

ছুটি

৭২৯ চট্টগ্রাম ১৭:১৫ চাঁদপুর ২১:২৫ নেই
৭৩০ চাঁদপুর ০৫:০০ চট্টগ্রাম ০৯:০০

যাত্রাবিরতি[সম্পাদনা]

(অনেকসময় বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃক কোনো ট্রেনের যাত্রাবিরতি পরিবর্তিত হতে পারে। নিম্নোক্ত তালিকাটি ২০২০ সাল অব্দি কার্যকর।)

রোলিং স্টক[সম্পাদনা]

মেঘনা এক্সপ্রেস ভ্যাকুয়াম কোচের ১৭/৩৪ লোডে চলে[৩]। পূর্বে এর লোড ছিলো ১৯/৩৮[৪]। এই ট্রেনে ক্লাস ২৯০০ অথবা ক্লাস ২৬০০ এর লোকোমোটিভ ব্যবহার করা হয়।

কর্মক্ষমতা[সম্পাদনা]

মেঘনা এক্সপ্রেস খুবই লাভজনক ট্রেন যা চট্টগ্রামের সাথে বাংলাদেশের দক্ষিনাঞ্চলের একাধিক জেলার সাথে সম্পর্কিত করেছে[৫]মেঘনা নদীর মাধ্যমে বরিশাল জেলার অনেক নিয়মিত যাত্রী চট্টগ্রামের সাথে যোগাযোগের জন্য এই ট্রেন ব্যবহার করে[৬]। এমন জনপ্রিয়তার জন্য এই ট্রেনে আরেকটি রেক চালু করার প্রস্তাব করা হয়েছিলো[৭], যদিও এখনও এই ট্রেন একটি রেকেই চলে।

ঘটণা ও দূর্ঘটণা[সম্পাদনা]

  • ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫: চট্টগ্রামগামী মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনের সাথে সকাল ১১ টায় এ. কে. খান রেল ক্রসিং, পাহারতলী, চট্টগ্রামে একটি বাসের সংঘর্ষ হয়, এতে ২ জন মারা যান ও ২৫ জন আহত হন।[৮]
  • ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫: কিছু হরতাল সমর্থকেরা মেঘনা এক্সপ্রেসের কোচ নং. ২০২৪ এ পেট্রোল ঢেলে আগুন জ্বালিয়ে দেয়। এতে করে কোচের আসন নং. ৪৮, ৪৯, ৫০ এবং ৫১ এর কিছু অংশ পুড়ে যায়।[৯]
  • ৭ জানুয়ারি, ২০১৬: চাঁদপুরগামী মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেন রাত ৮টা ৪৫ মিনিটে চিতোষী/শাহারাস্তি সংলগ্ন উনকিলা এলাকায় পেট্রোল-বোমা ও ককটেল হামলার শিকার হয়। এতে কোনো হতাহত ঘটেনি।[১০]
  • ১৪ নভেম্বর, ২০১৭: চাঁদপুরের বঙ্গবন্ধু সড়ক সংশ্লিষ্ট রেল ক্রসিং এ মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনে কাটা পড়ে এক ব্যক্তি নিহত হন।[১১]
  • ৯ মার্চ, ২০১৮: চাঁদপুর রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছার ৫ মিনিট পূর্বে চাঁদপুরগামী মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনের পাওয়ার কার নং. ৮৩৫৮ এ ওভারহিটিং এর ফলে আগুন ধরে যায়। পরিস্থিতি খারাপ হবার পূর্বেই রেলওয়ে স্টাফগন আগুন নিভাতে সক্ষম হন। প্রায় ৩০ জন যাত্রী আগুনে আতংকিত হয়ে দ্রুত ট্রেন থেকে নামার সময় আহত হন।[১২][১৩]
  • ২৮ নভেম্বর, ২০১৮: চাঁদপুরগামী মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেন ফেনী জেলার শর্শদী রেল গেটে একটি লোকাল বাসের সাথে সংঘর্ষ হয়। এতে ৫ জন নিহত ও ১৫ জন আহত হন।[১৪]
  • ২৮ মে, ২০১৯: চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন এলাকায় চাঁদপুরগামী মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে এক ব্যক্তি নিহত হন।[১৫]
  • ১৫ জুন, ২০১৯: চট্টগ্রামগামী মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেন প্রায় দেড় ঘণ্টা দেরীতে নাঙ্গলকোট রেলওয়ে স্টেশনে আসায় বিক্ষুব্ধ যাত্রীরা স্টেশনের দরজা-জানালা ভেঙ্গে দেয়।[১৬][১৭]
  • ২৫ আগস্ট, ২০১৯: ফেনী জেলার গোডাউন কোয়ার্টার এলাকা সংলগ্ন রেল ক্রসিং এ মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনে কাটা পড়ে এক কিশোর নিহত হন।[১৮]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "বগি–সংকটে যাত্রীদের দুর্ভোগ"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 
  2. "মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেন এখন মধুরোড় স্টেশনে যাত্রাবিরতি করছে"প্রথম আলো। ৬ অক্টোবর ২০১১। [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. "চাঁদপুরে মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুন অল্পের জন্যে রক্ষা পেলো ১৭টি বগি ও শত শত যাত্রী"Chandpur News। ২০১৮-০৩-০৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 
  4. "বগি–সংকটে যাত্রীদের দুর্ভোগ"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 
  5. "যাত্রী আছে ট্রেন নেই ॥ ডেমুতে তোলাবাজ"The Daily Sangram। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 
  6. "মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি সম্পর্কে | চিঠিপত্র | The Daily Ittefaq"archive1.ittefaq.com.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 
  7. "চাঁদপুর-চট্টগ্রাম রুটে চালু হবে মেঘনা এক্সপ্রেস-২"চাঁদপুর টাইমস। ২০১৯-০৪-০৩। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 
  8. "চট্টগ্রামে বাস-ট্রেন সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫"somoynews.tv। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 
  9. BanglaNews24.com। "চাঁদপুরে মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনের বগিতে আগুন"banglanews24.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 
  10. "চাঁদপুর যাওয়র পথে মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ - খবর তরঙ্গ"khobortorongo.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 
  11. "চাঁদপুরে মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত তরুণীর মৃত্যু"হৃদয়ে চাঁদপুর। ২০১৭-১১-১৪। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 
  12. "চাঁদপুরে মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুন : আহত ৩০"যুগান্তর। ২০১৮-০৩-০৯। 
  13. "চাঁদপুরে মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুন অল্পের জন্যে রক্ষা পেলো ১৭টি বগি ও শত শত যাত্রী"Chandpur News। ২০১৮-০৩-০৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 
  14. "ফেনীতে ট্রেনের ধাক্কায় ৫ বাসযাত্রীর মৃত্যু"Sarabangla.net। ২০১৮-১১-২৮। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 
  15. রিপোর্টার, চাঁদপুর থেকে স্টাফ। "হাজীগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত নারী মৃত্যু"দৈনিক ইনকিলাব। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 
  16. "ট্রেন দেরিতে আসায়…"Risingbd.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 
  17. "মেঘনা ট্রেন বিলম্বে আসায় যাত্রীদের কুমিল্লার নাঙ্গলকোট রেলস্টেশন বিক্ষোভ ও ভাংচুর"বর্তমান প্রতিদিন। ২০১৯-০৬-১৫। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 
  18. "ফেনীতে ট্রেনে কাটা পড়ে কিশোর নিহত"unb.com.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]