বন্ধন এক্সপ্রেস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বন্ধন এক্সপ্রেস
Bandhan express.png
সংক্ষিপ্ত বিবরণ
পরিষেবা ধরনশীততাপ নিয়ন্তি
প্রথম পরিষেবা৯ নভেম্বর ২০১৭; ২১ মাস আগে (2017-11-09)
বর্তমান পরিচালকভারতীয় রেলওয়ে, বাংলাদেশ রেলওয়ে
যাত্রাপথ
শুরুকলকাতা (কেওএএ)
থামে
শেষখুলনা (কেএলএন)
দূরত্ব ভ্রমণ১৭২ কিমি (১০৭ মা)
যাত্রার গড় সময়৪:৫০ঘণ্টা/৪:৪০ঘণ্টা
পরিষেবার হারসাপ্তাহিক
যাত্রাপথের সেবা
শ্রেণীএসি-প্রথম শ্রেনি: ৪টি
এসি চেয়ার গাড়ি: ৪টি
সাধারণ দ্বিতীয় শ্রেনি: ২টি
আসনবিন্যাস ব্যবস্থাহ্যাঁ
ঘুমানোর ব্যবস্থাহ্যাঁ
খাদ্য সুবিধানা
বিনোদন সুবিধানা
কারিগরি
ট্র্যাক গেজ১,৬৭৬ mm (5 ft 6 in)
পথের মানচিত্র
কিমি
০ কিমি কলকাতা
৭৭ কিমি বনগাঁ
৭৮.৫০ কিমি পেট্রাপোল
ভারত এবং বাংলাদেশ সীমান্ত
৯০ কিমি বেনাপোল
কিমি যশোর
১৭৫ কিমি খুলনা

বন্ধন এক্সপ্রেস বা কলকাতা-খুলনা এক্সপ্রেস একটি আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন যাত্রীবাহী ট্রেন যা ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের রাজধানী কলকাতা থেকে বাংলাদেশের খুলনা শহরের মধ্যে যাতায়াত করে। এটিই দ্বিতীয় ট্রেন যা এই দুই দেশের মধ্যে চলাচল করে। এটি চালু হয় ৫২ বৎসর পর। বন্ধন শব্দের অর্থ হল সংযোগ। বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বন্ধুত্বের প্রতীক হিসেবে ২০১৭ সালের ১৬ নভেম্বর, এই ট্রেন সাভিস চালু করা হবে। [১] ট্রেনের বগি ও ইঞ্জিন হিসেবে দুই দেশের মধ্যে উভয় দেশের বগি ও ইঞ্জিন ব্যবহার করা হবে এর ফলে যাত্রীদের সীমান্তে ট্রেন পরিবর্তন করতে হবে না। ভারত থেকে ছেড়ে যাওয়া ট্রেনটি কলকাতা রেলওয়ে স্টেশন থেকে ছাড়ে, এখানে ইমিগ্রেশন সম্পন্ন হয়, যদিও ভিসা সংগ্রহ করতে হয় ভারতীয় দূতাবাস থেকে আগে থেকেই। বাংলাদেশের খুলনা স্টেশন থেকে কলকাতা গামী বন্ধন এক্সপ্রেস ছাড়ে। উপযুক্ত এবং সঠিক কাগজপত্র সহকারে খুলনা স্টেশনের কাউন্টারে উপস্থিত হয়ে টিকিট সংগ্রহ করতে হবে খুলনার যাত্রীদের।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি; বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা; পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কলকাতা-খুলনা বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেন কলকাতা থেকে ৯ নভেম্বর ২০১৭ সালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে পতাকাঙ্কিত করেছিলেন।[২]

নামকরণ[সম্পাদনা]

কলকাতা-ঢাকার পর কলকাতা-খুলনা রুটে ভারত-বাংলাদেশর দ্বিতীয় মৈত্রী ট্রেনটির নামকরণের প্রস্তাব করা হয়েছিল ‘সোনারতরী’। কিন্তু উভয় দেশের রেলে একই নাম ব্যবহৃত হওয়ায় তা বাদ দেওয়া হয়। এরপর প্রস্তাব দেওয়া হয় ‘সম্প্রীতি’ ও ‘বন্ধন’। পরে বন্ধন নামটি সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়।

অনেক আমলাতান্ত্রিক জটিলতার পর শেষ পর্যন্ত বন্ধন চলাচল শুরু করে।[৩]

সময় সূচি[সম্পাদনা]

কলকাতা থেকে খুলনা পর্যন্ত পৌনে দুশ’ কিলোমিটার রেলপথ পাড়ি দিতে সময় লাগবে মাত্র পাঁচ ঘণ্টা। সকাল ৭ টা ১০ মিনিটে কলকাতার চিৎপুর থেকে যাত্রী নিয়ে দুপুর সাড়ে ১২টায় বন্ধন পৌছায় খুলনায়। এরপর দুপুর দেড়টায় খুলনা থেকে যাত্রী নিয়ে সন্ধ্যা ৬ টা ১০ মিনিট নাগাদ ফের কলকাতায় পৌছায়।

রুট ট্রেন সংখ্যা দিন সময় রেক সূত্র
কলকাতা থেকে খুলনা ১৩১২৯ বৃহস্পতিবার কলকাতা ০৭:১০ সকাল (প্রস্থান)
পেট্রাপোল ০৮:৫৫ সকাল (প্রবেশ)
বেনাপোল ০৯:১৫ সকাল(প্রবেশ)
যশোর ১১:৩০ সকাল (প্রবেশ)
খুলনা ১২:৩০ দুপুর (প্রবেশ)
আইআর [৪]
খুলনা থেকে কলকাতা ১৩১৩০ বৃহস্পতিবার খুলনা ০১:৩০ দুপুর (প্রস্থান)
যশোর ০২:৩০ দুপুর (প্রবেশ)
বেনাপোল ০৪:০০ (প্রবেশ) বিকাল
পেট্রাপোল ০৪:২০ বিকাল (প্রবেশ)
কলকাতা ০৬:১০ (প্রবেশ) সন্ধ্যা
আইআর [৫]

রুট[সম্পাদনা]

ট্রেনটি কলকাতা থেকে দমদম–বনগাঁ–পেট্রাপোল–বেনাপোল–ঝিকরগাছা–যশোর হয়ে খুলনা পর্যন্ত চলাচল করে। [৬]

কোচের গঠন[সম্পাদনা]

ভারতে উৎপাদিত ধূসর-লাল (রাজধানী প্রকাশ দ্বারা ব্যবহৃত) এবং আকাশি ধূসর-নীল (শতাব্দী প্রকাশ দ্বারা ব্যবহৃত) বিশুদ্ধ এলএইচভি কোচ ব্যবহার করা হয় এই ট্রেন জন্য।

  • ট্রেনে মোট ১০ টি কোচ রয়েছে। যার মধ্যে ৪ টি এক্সিকিউটিভ চেয়ার (ইসি), ৪ টি এসি চেয়ার গাড়ি (সিসি) এবং ২ টি জেনারেটরের সহ লাগেজ ও গার্ড ভ্যান।
এলআরএম/জিডি/ইওজি/এসএলআর এইচ- সি-
জেনারেটর সহ লাগেজ ভ্যান এক্সিকিউটিভ চেয়ার (ইসি) এসি চেয়ার গাড়ী (সিসি)
কলকাতা থেকে খুলনা পর্যন্ত ১৩১২৯ রেকের সংকলন
লোকো ১০
BSicon LDER.svg ইওজি এইচ১ এইচ২ এইচ৩ এইচ৪ চি১ সি২ সি৩ সি৪ ইওজি
  • কলকাতা থেকে খুলনা পর্যন্ত ১৩১২৯ রেক পৌঁছানোর পর একই রেক ১৩১৩০ রেক হিসাবে একি সংকলনে কলকাতা ফিরে আসে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "বন্ধন ছুটবে ১৬ নভেম্বর, পাঁচ ঘণ্টায় খুলনা থেকে কলকাতা"। বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর। ১৭ অক্টোবর ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১৭ 
  2. "Prime Minister of India & Prime Minister of Bangladesh Jointly along with Chief Minister, West Bengal Flag off New Cross-Border Train between India & Bangladesh, "Kolkata-Khulna Bandhan Express" from Kolkata through Video Confencing" (সংবাদ বিজ্ঞপ্তি)। Press Information Bureau, Government of India, Ministry of Railways। ৯ নভেম্বর ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১০ নভেম্বর ২০১৭ 
  3. "কলকাতা-খুলনা রুটের যাত্রীবাহী রেল নিয়ে অনিশ্চয়তা"। দ্যা ডেইলি স্টার। ২৯ জুলাই ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১৭ 
  4. "Khulna to Kolkata Express timing"Indianrailinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ৯ নভেম্বর ২০১৭ 
  5. "Kolkata to Khulna Express timing"Indianrailinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ৯ নভেম্বর ২০১৭ 
  6. "নভেম্বরেই চালু হচ্ছে কলকাতা-খুলনা বন্ধন এক্সপ্রেস"। ২৪ ঘন্টা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ অক্টোবর ২০১৭