নারোদ নদী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
নারোদ নদী
নাটোরে নারোদ, একটি মৃত নদী,
নাটোরে নারোদ, একটি মৃত নদী,
দেশ বাংলাদেশ
অঞ্চল রাজশাহী বিভাগ
জেলা নাটোর জেলা
উত্স মুসা খান
মোহনা বড়াল আপার নদী
দৈর্ঘ্য ১৬ কিলোমিটার (১০ মাইল)

নারোদ নদী বাংলাদেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের নাটোর জেলার একটি নদী। নদীটির দৈর্ঘ্য ১৬ কিলোমিটার, গড় প্রস্থ ২৪ মিটার এবং নদীটির প্রকৃতি সর্পিলাকার। বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড বা "পাউবো" কর্তৃক নারোদ নদীর প্রদত্ত পরিচিতি নম্বর উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের নদী নং ৬৭।[১]

প্রবাহ[সম্পাদনা]

নারোদ নদীটি নাটোর জেলার নাটোর সদর উপজেলার কাপুরিয়া ইউনিয়ন এলাকায় প্রবহমান মুসাখান নদী হতে উৎপত্তি লাভ করেছে। অতঃপর এই নদীর জলধারা একই জেলার গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়ন পর্যন্ত প্রবাহিত হয়ে বড়াল আপার নদীতে নিপতিত হয়েছে। মৌসুমি প্রকৃতির এই নদীতে সারাবছর পানিপ্রবাহ থাকে না। তবে বর্ষাকালে নদীটিতে স্বাভাবিকের চেয়ে পানির প্রবাহ অধিক মাত্রায় বৃদ্ধি পায়। কিন্তু শুকনো মৌসুমে, বিশেষত মার্চ-এপ্রিলের দিকে নদীটি পুরোপুরি শুকিয়ে যায়। পলির প্রভাবে এই নদীর তলদেশ যেমন দিনদিন ভরাট হয়ে যাচ্ছে, তেমনি নাটোর চিনিকলের নিঃসৃত বর্জ্যে নদীটি মারাত্মকভাবে দূষিত হয়ে পড়েছে।বর্তমানে নদীটির প্রধান শত্রু হল চিনিকল,প্রান কোম্পানি,এবং জনগন।নাটোর জেলায় এ নদীকে কেন্দ্র করে অনেক বাজার হাট প্রতিষ্টান গড়ে উঠেছে,নাটোর শহর এ নদীর চিত্র আরও মারাত্মক অনেক বাড়ী এবং প্রতিষ্টান এর জায়গা দখল করে গড়ে উঠেছে ফলে নদী ভরাট হচ্ছে এবং চিনিকল,প্রান কোম্পানি,ও শহরের বর্জ্য পদার্থে পানি/জল দুষিত হচ্ছে ফলে মাছসহ অনান্য জলজপ্রানী বিলুপ্ত হচ্ছে এবং মাটি,পানি/জল,বায়ু দুষন হচ্ছে পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে।[১]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. মোহাম্মদ রাজ্জাক, মানিক (ফেব্রুয়ারি ২০১৫)। "উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের নদী"। বাংলাদেশের নদনদী: বর্তমান গতিপ্রকৃতি (প্রথম সংস্করণ)। ঢাকা: কথাপ্রকাশ। পৃষ্ঠা ১৩৩। আইএসবিএন 984-70120-0436-4 |আইএসবিএন= এর মান পরীক্ষা করুন: invalid prefix (সাহায্য) 

jiban ck