কক্সবাজার সরকারি কলেজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কক্সবাজার সরকারি কলেজ
নীতিবাক্যহে প্রভু আমায় জ্ঞান দান করো
ধরনসরকারি কলেজ
স্থাপিত১৯৬২
আচার্যরাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ
উপাচার্যঅধ্যাপক হারুন-অর-রশিদ
অধ্যক্ষপ্রফেসর এ.কে.এম ফজলুল করিম চৌধুরী
শিক্ষায়তনিক ব্যক্তিবর্গ
২০০+
প্রশাসনিক ব্যক্তিবর্গ
৫০+
শিক্ষার্থী১২,০০০+
স্নাতকবি.এ, বি.এস.এস,বি.বি.এ, বি.এস.সি
স্নাতকোত্তরএম.এ, এম.এস.এস, এম.বি.এ এম.এস.সি
অবস্থান
মুহুরীপাড়া, ঝিলংজা, কক্সবাজার
,
২১°২৫′২৩″ উত্তর ৯২°০১′০৮″ পূর্ব / ২১.৪২৩০৯০° উত্তর ৯২.০১৮৭৮৮° পূর্ব / 21.423090; 92.018788স্থানাঙ্ক: ২১°২৫′২৩″ উত্তর ৯২°০১′০৮″ পূর্ব / ২১.৪২৩০৯০° উত্তর ৯২.০১৮৭৮৮° পূর্ব / 21.423090; 92.018788
শিক্ষাঙ্গনশহুরে
রঙসমূহগাঢ় নীল ও হলুদ
সংক্ষিপ্ত নামকসক / CGC
অধিভুক্তিজাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়
ওয়েবসাইটcgc.edu.bd

কক্সবাজার সরকারি কলেজ দক্ষিণ চট্টগ্রামের সর্ববৃহত্‍ বিদ্যাপীঠ এবং কক্সবাজারে স্বীকৃত প্রথম জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভূক্ত কলেজ।

অবস্থান[সম্পাদনা]

কক্সবাজার সদর উপজেলার ঝিলংঝা ইউনিয়নের মুহুরীপাড়ায় এই কলেজটি অবস্থিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

কক্সবাজার সরকারি কলেজ ১৯৬২ খ্রিষ্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৬২ খ্রিষ্টাব্দে স.আ.ম শামসুল হুদা চৌধুরীকে অধ্যক্ষের দায়িত্ব প্রদান করে কক্সবাজার হাই স্কুল ভবনে উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে মানবিক ও বাণিজ্য বিভাগ নিয়ে কক্সবাজার সরকারি কলেজের যাত্রা শুরু হয় যা বর্তমানে ১৮.৯২ একর ভূমির উপর অবস্থিত। ১৯৬৭ খ্রিষ্টাব্দ হতে কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক বিজ্ঞান কোর্স চালু হয়। ১৯৬৬ খ্রিষ্টাব্দে কক্সবাজার কলেজে স্নাতক পর্যায়ে কলা ও বাণিজ্য বিভাগ চালু হয় এবং ১৯৭০-৭১ শিক্ষাবর্ষ হতে স্নাতক পর্যায়ে বিএসসি কোর্স চালু হয়। ১৯৮০ খ্রিষ্টাব্দের ১ মার্চ সরকার কক্সবাজার কলেজকে জাতীয়করণ করে এবং তখন হতে এ কলেজ কক্সবাজার সরকারি কলেজ নামে পরিচিত হয়ে আসছে।

বর্তমানে কক্সবাজার সরকারি কলেজে অধ্যয়নরত ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা বারো হাজার প্রায়। ১৯৯৭-৯৮ শিক্ষাবর্ষ হতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন ক্রমে কলেজে অনার্স কোর্স চালু হয়। বর্তমানে বাংলা, ইংরেজি, ইতিহাস, ইসলামের ইতিহাস ও সংষ্কৃতি, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, অর্থনীতি, হিসাববিজ্ঞান, ব্যবস্থাপনা, পদার্থবিদ্যা, রসায়ন, প্রাণিবিদ্যা, উদ্ভিদবিদ্যা ও গণিত-এই ১৩ টি বিষয়ে অনার্স এবং বাংলা, হিসাববিজ্ঞান, রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও অর্থনীতি বিষয়ে মাস্টার্স কোর্স চালু রয়েছে। পাশাপাশি উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে মানবিক, বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা কোর্স অব্যাহত রয়েছে। তাছাড়াও কক্সবাজার সরকারি কলেজে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে এইচএসসি এবং বিএ/বিএসএস প্রোগ্রাম চালু রয়েছে। কলেজে অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষসহ মোট শিক্ষকের পদ রয়েছে ৬৬ টি। এছাড়াও ৫০ এর অধিক ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির সরকারি-বেসরকারি কর্মচারি কর্মরত রয়েছে।

চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডে এইচএসসি এর ফলাফলে সেরা দশ কলেজের মধ্যে কক্সবাজার সরকারি কলেজের সম্মানজনক অবস্থান রয়েছে বিগত কয়েক বছর ধরে। এছাড়াও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর পরীক্ষাসমূহে প্রতিবছরই ছাত্র-ছাত্রী তাদের প্রতিভার উজ্জ্বল স্বাক্ষর রেখেই চলেছে।

বর্তমানে কলেজটি পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কলেজে উন্নীত হয়েছে।

শিক্ষা কার্যক্রম[সম্পাদনা]

কলেজটিতে বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা এবং মানবিক শিক্ষা এই তিন বিভাগে উচ্চ মাধ্যমিকের পাশাপাশি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অনার্স ও মাস্টার্স কোর্স চালু আছে।

অনার্সে চালু কোর্সসমূহঃ

  1. অর্থনীতি
  2. ইতিহাস
  3. ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি
  4. ইংরেজি
  5. উদ্ভিদবিদ্যা
  6. গণিত
  7. বাংলা
  8. ব্যবস্থাপনা
  9. রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও
  10. হিসাব বিজ্ঞান

মাস্টার্স (স্নাতকোত্তর) ফাইনাল পর্বের চালু কোর্সসমূহঃ

  1. রাষ্ট্রবিজ্ঞান
  2. গণিত
  3. উদ্ভিদবিদ্যা
  4. বাংলা
  5. ব্যবস্থাপনা ও
  6. হিসাব বিজ্ঞান

একাডেমিক ভবন[সম্পাদনা]

  • প্রশাসনিক ভবন
  • বাণিজ্য ভবন
  • স্বাধীনতা ভবন
  • সমাজবিজ্ঞান ভবন
  • ভৌতবিজ্ঞান ভবন
  • উদ্ভিদবিদ্যা ভবন
  • একাডেমিক ভবন কাম পরীক্ষা হল

এছাড়া সম্প্রসারিত নতুন বিজ্ঞান ভবন, ২৪০ আসন বিশিষ্ট ২ টি ছাত্রী হোস্টেল, অধ্যক্ষ নিবাস, পুকুর সংলগ্ন মসজিদ নিয়ে এখানে মোট ১১ টি ভবন রয়েছে।

সুযোগ সুবিধা[সম্পাদনা]

কক্সবাজার সরকারি কলেজে ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য ৩ টি সুদৃশ্য কম্পিউটার ল্যাব এবং ১১ টি মাল্টিমিডিয়া ক্লাস রুম রয়েছে। এছাড়া একটি বিদেশি ভাষা প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (FLTC) রয়েছে। জেলা পরিষদের সার্বিক সহযোগিতায় নতুন শহীদ মিনার নির্মাণের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ছাত্র-ছাত্রীদের বিভিন্ন ফি জমাদানের জন্য কলেজ ক্যাম্পাসে বেসিক ব্যাংকের একটি কালেকশন বুথ রয়েছে। UNHCR প্রদত্ত একটি বাস ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক প্রদত্ত ১ টি বাসসহ ২ টি কলেজ বাস রয়েছে। এছাড়াও কলেজে একটি বিশাল খেলার মাঠ আছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]