নোয়াখালী সরকারি কলেজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
নোয়াখালি সরকারী কলেজ
নীতিবাক্য শিক্ষাই আলো
ধরন সরকারী
স্থাপিত ১ মার্চ, ১৯৬৩[১]
শিক্ষার্থী প্রায় ১০,০০০[১]
অবস্থান নোয়াখালী, বাংলাদেশ
২২°৫২′৪৪″ উত্তর ৯১°০৬′২০″ পূর্ব / ২২.৮৭৮৭৬৮° উত্তর ৯১.১০৫৫৪২° পূর্ব / 22.878768; 91.105542স্থানাঙ্ক: ২২°৫২′৪৪″ উত্তর ৯১°০৬′২০″ পূর্ব / ২২.৮৭৮৭৬৮° উত্তর ৯১.১০৫৫৪২° পূর্ব / 22.878768; 91.105542
শিক্ষাঙ্গন মাইজদী
অধিভুক্তি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, কুমিল্লা[১]
ক্রীড়া ফুটবল, ক্রিকেট, ভলিবল
ওয়েবসাইট www.noakhlicoll.gov.bd

নোয়াখালী সরকারি কলেজ বাংলাদেশের নোয়াখালী জেলায় অবস্থিত একটি স্নাতক ও স্নতকোত্তর পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৮৯২ সালে পূর্ণাঙ্গ জেলারুপে প্রতিষ্ঠিত হলেও নোয়াখালীতে কোন কলেজ স্থাপিত হয়নি। এই চিন্তা থেকে বিদ্যানুরাগী ব্যাক্তিরা ১৯৬৩ সালের ১লা মার্চ নোয়াখালী কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন।

প্রথমে একাদশ, মানবিক ও বাণিজ্য বিভাগ ছিল। ১৯৬৫ সালে কলা ও বাণিজ্য শাখায় ডিগ্রি কোর্স চালু হয়। পরে একাদশ বিভাগ চালু হয়। ১৯৬৮ সালের ১লা মার্চ নোয়াখালী কলেজকে সরকারি করা হয়। ১৯৭৮ সালে তৎকালীন শিক্ষামন্ত্রী নোয়াখালী সরকারি কলেজকে অন্যত্র স্থানান্তরের পরামর্শ দেন। পরবর্তীতে ১৯৭৯ সালে পূর্ব লক্ষীনারয়ণপুর বর্তমান নতুন ক্যাম্পাস নামে পরিচিত।

১৯৯২ সালে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হলে নোয়াখালী সরকারি কলেজে অনার্স কোর্স চালু হয়। বর্তমানে এই কলেজে ১৫ টি বিষয়ে অনার্স ও মাষ্টার্স কোর্স চালু আছে। এখনে বর্তমানে ১৯,০০০ ছাত্রছাত্রী অধ্যয়নরত আছে। বর্তমানে নোয়াখালী সরকারি কলেজ বৃহত্তর নোয়াখালীর সবচেয়ে বৃহত্তম এবং জনপ্রিয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এখানে সকল প্রকার সুযোগ সুবিধা বিদ্যমান। বর্তমানে এ ক্যাম্পাসের আয়তন ২১ একর।

বিভাগ[সম্পাদনা]

সহশিক্ষা কার্যক্রম[সম্পাদনা]

শিক্ষকগণ[সম্পাদনা]

তথ্যসুত্র[সম্পাদনা]