দেবেন্দ্র কলেজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ, মানিকগঞ্জ
সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ
দেবেন্দ্র কলেজ.jpg
ধরনসরকারি কলেজ
স্থাপিত১৯৪২
প্রতিষ্ঠাতাশ্রী সিদ্ধেশ্বরী প্রসাদ রায় চৌধুরী
অধ্যক্ষপ্রফেসর মোঃ শাহজাহান
শিক্ষায়তনিক কর্মকর্তা
১০৬ জন
শিক্ষার্থী১৬৭৮৫ [১]
স্নাতকবিএসএস (পাস), বিএসসি (পাস), বিবিএস (পাস), বিএ (সম্মান), বিএসএস (সম্মান), বিএসসি (সম্মান), বিবিএস (সম্মান), বিবিএ (সম্মান)
স্নাতকোত্তরএমএ, এমএসএস, এমএসসি, এমবিএস ও এমবিএ
অন্যান্য শিক্ষার্থী
উচ্চ মাধ্যমিক
ঠিকানা
মানিকগঞ্জ সদর, মানিকগঞ্জ, বাংলাদেশ
, ,
২৩°৫১′৪৬″ উত্তর ৯০°০০′১০″ পূর্ব / ২৩.৮৬২৭৯৬° উত্তর ৯০.০০২৮১০° পূর্ব / 23.862796; 90.002810স্থানাঙ্ক: ২৩°৫১′৪৬″ উত্তর ৯০°০০′১০″ পূর্ব / ২৩.৮৬২৭৯৬° উত্তর ৯০.০০২৮১০° পূর্ব / 23.862796; 90.002810
অধিভুক্তিজাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়
ওয়েবসাইটdebendracollege.gov.bd

দেবেন্দ্র কলেজ বা মানিকগঞ্জ সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ মানিকগঞ্জ জেলা সদরে অবস্থিত একটি সরকারী কলেজ।[২] তেরশ্রী জমিদার শ্রী সিদ্ধেশ্বরী প্রসাদ রায় এর পৃষ্ঠপোষকতায় তার প্রতিষ্ঠাকালীন বিশ বিঘা জমি ও নগদ দশ হাজার টাকা দানে এটি ১৯৪২ সালে মানিকগঞ্জ কলেজ নামে তেরশ্রী, ঘিওর অঞ্চলে প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৪৩ সালে মানিকগঞ্জে স্থানান্তর হয়। ১৯৪৩-৪৪ সালে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর নিবাসী বিখ্যাত দানবীর বায়বাহাদুর রণদ প্রসাদ সাহা ষাট হাজার টাকা নগদ ও অন্যান্য আর্থিক সাহায্য প্রদান করলে সেসময় তাঁর পিতার নামানুসারে কলেজের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় দেবেন্দ্র কলেজ।[৩] ১৯৪৯ সালে ডিগ্রী কলেজ হিসেবে উন্নীত হয়। ১৯৬৩ সালে উচ্চ মাধ্যমিক বিজ্ঞান। ১৯৬৪ সালে ডিগ্রী বাণিজ্য কোর্স চালু হয়। ১৯৭০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাধ্যমে ডিগ্রী বিজ্ঞান কোর্স চালুর ফলে পূর্ণাঙ্গ ডিগ্রী কলেজে উন্নীত হয়। ১৯৭২ সালে বাংলা সম্মান কোর্স শুরু হয়। ১৯৭৬ সালে উচ্চ মাধ্যমিক কৃষি কার্যক্রম শুরু হয়। ১৯৮০ সালের ১ মার্চ সরকারীকরণ করা হলে কলেজের নাম হয় 'সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ, মানিকগঞ্জ ' কলেজের মোট আয়তন ২৪ একর। আনুষঙ্গিক স্থাপনার ভিতর উল্লেখযোগ্য হচ্ছেঃ শহীদ মিনার, শহীদ রণদা প্রসাদ সাহা চত্বর, অধ্যক্ষের বাসভবন, শিক্ষক ডরমিটরি, ২টি ছাত্রাবাস, ১টি ছাত্রীনিবাস, মসজিদ, সাইকেল স্ট্যান্ড ও পরিবহণ স্ট্যান্ড, শিক্ষক পরিষদের জন্য কমনরুম, ছাত্র সংসদের জন্য কমনরুম, ছাত্র কমনরুম, ছাত্রী কমনরুম, গ্রন্থাগার। সহশিক্ষা কার্যক্রম হিসেবে রোভার স্কাউট, বি.এন.সি.সি ও রেডক্রিসেন্ট রয়েছে। প্রতেক শিক্ষার্থীর জন্য কলেজের মনোগ্রাম সিলযুক্ত, নিজ নাম, ছবি, শ্রেণি, রক্তের গ্রুপ, মোবাইল নম্বর ও রোল নম্বর সম্বলিত পরিচয় পত্র হয়েছে। উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণির জন্য নির্দিষ্ট কলেজ ইউনিফর্ম রয়েছে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ, মানিকগঞ্জ

কলেজটির প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন তৎকালীন জমিদার শ্রী সিদ্ধেশ্বরী প্রসাদ রায় চৌধুরীর এবং কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ ছিলেন শ্রী হিমাংশুভূষণ সরকার। ১৯৪৩-৪৪ সালে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর নিবাসী বিখ্যাত দানবীর বায়বাহাদুর রণদ প্রসাদ সাহা ষাট হাজার টাকা নগদ ও অন্যান্য আর্থিক সাহায্য প্রদান করলে সেসময় তাঁর পিতার নামানুসারে কলেজের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় দেবেন্দ্র কলেজ।[৩] ১৯৪৯ সালে ডিগ্রী কলেজ হিসেবে উন্নীত হয়। ১৯৬৩ সালে উচ্চ মাধ্যমিক বিজ্ঞান। ১৯৬৪ সালে ডিগ্রী বাণিজ্য কোর্স চালু হয়। ১৯৭০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাধ্যমে ডিগ্রী বিজ্ঞান কোর্স চালুর ফলে পূর্ণাঙ্গ ডিগ্রী কলেজে উন্নীত হয়। ১৯৭২ সালে বাংলা সম্মান কোর্স শুরু হয়। ১৯৭৬ সালে উচ্চ মাধ্যমিক কৃষি কার্যক্রম শুরু হয়। ১৯৮০ সালের ১ মার্চ সরকারীকরণ করা হলে কলেজের নাম হয় 'সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ, মানিকগঞ্জ'।[৪]

অবকাঠামো[সম্পাদনা]

কলেজটি ২৩.৭৯ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত। কলেজে শুরু থেকেই ছাত্রদের জন্য আবাসিক ব্যবস্থা ছিলো। মূল ভবনঃ ১ টি অন্যান্য ভবনঃ ৪ টি অধ্যক্ষের বাসভবনঃ ১ টি শিক্ষক ডর্মিমিটরিঃ ১ টি ছাত্রাবাসঃ ২ টি ছাত্রীনিবাসঃ ১ টি মসজিদঃ ১ টি সাইকেল স্ট্যান্ডঃ ১ টি পরিবহণ স্ট্যান্ডঃ ১ টি শহীদ মিনারঃ ১ টি দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা চত্বরঃ ১ টি

পঠিত বিষয়[সম্পাদনা]

বর্তমানে কলেজে ঢাকা শিক্ষাবোর্ড এর অধীনে উচ্চ মাধ্যমিক এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এর অধীনে স্নাতক (পাশ), ১৭ টি বিষয়ে স্নাতক (সম্মান), ১৪ টি বিষয়ে স্নাতকোত্তর কোর্স চালু আছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]