ইরান জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ইরান
দলের লোগো
ডাকনামتیم ملی (মেল্লি দল)[১]
ستارگان پارسی (ফার্সি তারা)[২]
অ্যাসোসিয়েশনইরান ফুটবল ফেডারেশন
কনফেডারেশনএএফসি (এশিয়া)
প্রধান কোচদ্রাগান স্কোচিচ
অধিনায়কএহসান হাজসাফি
সর্বাধিক ম্যাচজাভাদ নেকুউনাম (১৫১)
শীর্ষ গোলদাতাআলী দাই (১০৯)
মাঠআজাদি স্টেডিয়াম
ফিফা কোডIRN
ওয়েবসাইটwww.ffiri.ir
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ২৯ অপরিবর্তিত (১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১)[৩]
সর্বোচ্চ১৫ (আগস্ট ২০০৫[৪])
সর্বনিম্ন১২২ (মে ১৯৯৬[৫])
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ৩০ বৃদ্ধি(১ এপ্রিল ২০২১)[৬]
সর্বোচ্চ১৮ (এপ্রিল ২০০৫, জানুয়ারি ২০১৯)
সর্বনিম্ন৭৭ (ডিসেম্বর ১৯৫৯)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 আফগানিস্তান ০–০ ইরান 
(কাবুল, আফগানিস্তান; ২৫ আগস্ট ১৯৪১)
বৃহত্তম জয়
 ইরান ১৯–০ গুয়াম 
(তাবরিজ, ইরান; ২৪ নভেম্বর ২০০০)[৭]
বৃহত্তম পরাজয়
 তুরস্ক ৬–১ ইরান 
(ইস্তাম্বুল, তুরস্ক; ২৮ মে ১৯৫০[৮])
 দক্ষিণ কোরিয়া ৫–০ ইরান 
(টোকিও, জাপান; ২৮ মে ১৯৫৮[৯])
বিশ্বকাপ
অংশগ্রহণ৫ (১৯৭৮-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যপ্রথম পর্ব ১৯৭৮
এএফসি এশিয়ান কাপ
অংশগ্রহণ১৪ (১৯৬৮-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যচ্যাম্পিয়ন (১৯৬৮, ১৯৭২, ১৯৭৬)
গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক
অংশগ্রহণ৩ (১৯৬৪-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যকোয়ার্টার-ফাইনাল (১৯৭৬)
ডাব্লিউএএফএফ চ্যাম্পিয়নশিপ
অংশগ্রহণ৭ (২০০০-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যচ্যাম্পিয়ন (২০০০, ২০০৪, ২০০৭, ২০০৮)

ইরান জাতীয় ফুটবল দল (ফার্সি: تیم ملی فوتبال مردان ایران‎, প্রতিবর্ণী. তিম-এ মেল্লি-এ ফুতবল-ই মারদান-এ ইরান‎, ফার্সি: تیم ملی‎, প্রতিবর্ণী. তিম-এ মেল্লি, অনুবাদ 'জাতীয় দল'‎,[১০] ইংরেজি: Iran national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে ইরানের প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম ইরানের ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইরান ফুটবল ফেডারেশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯৪৮ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং ১৯৫৪ সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯৪১ সালের ২৬শে আগস্ট তারিখে, ইরান প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; আফগানিস্তানের কাবুলে অনুষ্ঠিত ইরান এবং আফগানিস্তানের মধ্যকার উক্ত ম্যাচটি ০–০ গোলে ড্র হয়েছে।

৭৮,১১৬ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট আজাদি স্টেডিয়ামে ফার্সি তারা নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় ইরানের রাজধানী তেহরানে অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন দ্রাগান স্কোচিচ এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন ট্র্যাক্টরের রক্ষণভাগের খেলোয়াড় এহসান হাজসাফি

ইরান এপর্যন্ত ৫ বার ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেছে, যার মধ্যে সেরা সাফল্য হচ্ছে ১৯৭৮ ফিফা বিশ্বকাপের ফাইনালে পৌঁছানো, যেখানে তারা ১টি ম্যাচে ড্র করে ১ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলে চতুর্থ স্থান লাভ করে উক্ত আসর হতে বিদায় নিয়েছিল। অন্যদিকে, এএফসি এশিয়ান কাপে ইরান অন্যতম সফল দল, যেখানে তারা ৩টি (১৯৬৮, ১৯৭২ এবং ১৯৭৬) শিরোপা জয়লাভ করেছে। এছাড়াও, ইরান এপর্যন্ত ৪ বার (২০০০, ২০০৪, ২০০৭ এবং ২০০৮) ডাব্লিউএএফএফ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জয়লাভ করেছে।

জাভাদ নেকুউনাম, আলী দাই, আলী করিমি, সর্দার আজমুন এবং করিম আনসারিফার্ডের মতো খেলোয়াড়গণ ইরানের জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ২০০৫ সালের আগস্ট মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে ইরান তাদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অবস্থান (১৫তম) অর্জন করে এবং ১৯৯৬ সালের মে মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ১২২তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে ইরানের সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ১৮তম (যা তারা সর্বপ্রথম ২০০৫ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ৭৭। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[৩]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
২৭ অপরিবর্তিত  জাপান ১৫০২
২৮ অপরিবর্তিত  ভেনেজুয়েলা ১৫০১
২৯ অপরিবর্তিত  ইরান ১৪৯৬
৩০ অপরিবর্তিত  সার্বিয়া ১৪৯২
৩১ অপরিবর্তিত  আলজেরিয়া ১৪৮৮
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
১ এপ্রিল ২০২১ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[৬]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
২৯ বৃদ্ধি  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৭৬৭
৩০ বৃদ্ধি  ইরান ১৭৬৬
৩১ হ্রাস  দক্ষিণ কোরিয়া ১৭৫৮
৩১ হ্রাস  জাপান ১৭৫৮

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ ফিফার সদস্য ছিল না ফিফার সদস্য ছিল না
ইতালি ১৯৩৪
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪
সুইডেন ১৯৫৮
চিলি ১৯৬২
ইংল্যান্ড ১৯৬৬
মেক্সিকো ১৯৭০
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪ উত্তীর্ণ হয়নি
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮ প্রথম পর্ব ১৪তম ১২ ১০ ২০
স্পেন ১৯৮২ প্রত্যাহার প্রত্যাহার
মেক্সিকো ১৯৮৬ অযোগ্য অযোগ্য
ইতালি ১৯৯০ উত্তীর্ণ হয়নি ১২
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪ ১১ ২৩ ১৩
ফ্রান্স ১৯৯৮ গ্রুপ পর্ব ২০তম ১৭ ৫৭ ১৭
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ উত্তীর্ণ হয়নি ১৪ ৩৬
জার্মানি ২০০৬ গ্রুপ পর্ব ২৫তম ১২ ২৯
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০ উত্তীর্ণ হয়নি ১৪ ১৫
ব্রাজিল ২০১৪ গ্রুপ পর্ব ২৮তম ১৬ ১০ ৩০
রাশিয়া ২০১৮ গ্রুপ পর্ব ১৮তম ১৮ ১২ ৩৬
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট প্রথম পর্ব ৫/২১ ১৫ ২৪ ১৩২ ৮০ ৩৪ ১৮ ২৮৪ ৮৪

অর্জন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Veo, Valerio (২৩ নভেম্বর ২০১৪)। "Team Melli looked excellent in defeat"ESPNFC.com। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৫ 
  2. "پیش بازی ایران – یمن : ستارگان پارسی وارد می‌شوند" [Iran-Yemen pre-match: Persian stars arrive]। 90tv.ir (ফার্সি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-০৪ 
  3. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  4. FIFA.com। "The FIFA/Coca-Cola World Ranking - Ranking Table - FIFA.com" 
  5. FIFA.com। "The FIFA/Coca-Cola World Ranking - Ranking Table - FIFA.com" 
  6. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ১ এপ্রিল ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০২১ 
  7. "Biggest margin victories/losses (Fifa fact-Sheet)" (PDF)। FIFA.com। সংগ্রহের তারিখ ২৭ নভেম্বর ২০১৩ 
  8. "Iran: Fixtures and Results"। FIFA.com। 
  9. "Asian Games 1958 (Tokyo, Japan)"। rsssf। 
  10. "Fan Forum"। PersianFootball.com। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৪ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]