মঙ্গোলিয়া জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মঙ্গোলিয়া
ডাকনামনীল নেকড়ে
অ্যাসোসিয়েশনমঙ্গোলীয় ফুটবল ফেডারেশন
কনফেডারেশনএএফসি (এশিয়া)
প্রধান কোচরাস্তিস্লাভ বোজিক
অধিনায়কনর্ঝমুগিন ৎসেদেনবাল[১]
সর্বাধিক ম্যাচবায়াসগালাঙ্গিন গারিদামগনি (৩৫)
শীর্ষ গোলদাতানিয়াম-অসোর নারাবোলদ (৭)[২]
মাঠএমএফএফ ফুটবল সেন্টার
ফিফা কোডMNG
ওয়েবসাইটthe-mff.mn
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ১৮৪ অপরিবর্তিত (১৯ নভেম্বর ২০২১)[৩]
সর্বোচ্চ১৬০ (আগস্ট ২০১১)
সর্বনিম্ন২০৫ (জুলাই ২০১৫)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ২১৩ বৃদ্ধি ২ (২৬ নভেম্বর ২০২১)[৪]
সর্বোচ্চ২০৫ (নভেম্বর ২০১১, মার্চ ২০১৩)
সর্বনিম্ন২২৫ (মার্চ ২০১৫)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 উত্তর ভিয়েতনাম ৩–১ মঙ্গোলিয়া 
(হ্যানয়, উত্তর ভিয়েতনাম; ৩ অক্টোবর ১৯৬০)
বৃহত্তম জয়
 মঙ্গোলিয়া ৯–০ উত্তর মারিয়ানা দ্বীপপুঞ্জ 
(উলানবাটর, মঙ্গোলিয়া; ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮)
বৃহত্তম পরাজয়
 উজবেকিস্তান ১৫–০ মঙ্গোলিয়া 
(চিয়াং মাই, থাইল্যান্ড; ৫ ডিসেম্বর ১৯৯৮)
এএফসি সলিডারিটি কাপ
অংশগ্রহণ১ (২০১৬-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যগ্রুপ পর্ব (২০১৬)

মঙ্গোলিয়া জাতীয় ফুটবল দল (মঙ্গোলীয়: Монголын хөлбөмбөгийн үндэсний шигшээ баг, ইংরেজি: Mongolia national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে মঙ্গোলিয়ার প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম মঙ্গোলিয়ার ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা মঙ্গোলীয় ফুটবল ফেডারেশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯৯৮ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং একই বছর হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯৬০ সালের ৩রা অক্টোবর তারিখে, মঙ্গোলিয়া প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; উত্তর ভিয়েতনামের হ্যানয়ে অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে মঙ্গোলিয়া উত্তর ভিয়েতনামের কাছে ৩–১ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

৫,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট এমএফএফ ফুটবল সেন্টারে নীল নেকড়ে নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় মঙ্গোলিয়ার রাজধানী উলানবাটরে অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন রাস্তিস্লাভ বোজিক এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন উলানবাটর সিটির রক্ষণভাগের খেলোয়াড় নর্ঝমুগিন ৎসেদেনবাল

মঙ্গোলিয়া এপর্যন্ত একবারও ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে পারেনি। অন্যদিকে, এএফসি এশিয়ান কাপেও মঙ্গোলিয়া এপর্যন্ত একবারও অংশগ্রহণ করতে সক্ষম হয়নি। অন্যদিকে, এএফসি সলিডারিটি কাপে মঙ্গোলিয়া এপর্যন্ত মাত্র ১ বার অংশগ্রহণ করেছে, যেখানে তারা শুধুমাত্র গ্রুপ পর্বে অংশগ্রহণ করতে পেরেছিল।

গারিদমাগনাই বায়াসগালান, লুম্বেনগারাভ দনোরোভিন, ৎসেন্দ-আয়ুশ খুরেলবাটর, নিয়াম-অসোর নারাবোলদ এবং বায়াসগালাঙ্গিন গারিদামগনির মতো খেলোয়াড়গণ মঙ্গোলিয়ার জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ২০১১ সালের আগস্ট মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে মঙ্গোলিয়া তাদের ইতিহাসে সর্বপ্রথম সর্বোচ্চ অবস্থান (১৬০তম) অর্জন করে এবং ২০১৫ সালের জুলাই মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ২০৫তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে মঙ্গোলিয়ার সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ২০৫তম (যা তারা সর্বপ্রথম ২০১১ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ২২৫। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
১৯ নভেম্বর ২০২১ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[৩]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
১৮২ অপরিবর্তিত  মাকাও ৯২২.১
১৮৩ অপরিবর্তিত  ডোমিনিকা ৯১৬.৭২
১৮৪ অপরিবর্তিত  মঙ্গোলিয়া ৯১৬.৬৮
১৮৫ অপরিবর্তিত  লাওস ৯১২.০৭
১৮৬ অপরিবর্তিত  ভুটান ৯১০.৯৬
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
২৬ নভেম্বর ২০২১ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[৪]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
২১১ অপরিবর্তিত  চাগোস দ্বীপপুঞ্জ ৭৭৬
২১২ অপরিবর্তিত  সিন্ট মার্টেন ৭৬৮
২১৩ বৃদ্ধি  মঙ্গোলিয়া ৭৬৬
২১৪ হ্রাস  টুভালু ৭৩৯
২১৫ বৃদ্ধি  সেঁ বার্তেলেমি ৭১৫

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ প্রতিষ্ঠিত হয়নি প্রতিষ্ঠিত হয়নি
ইতালি ১৯৩৪
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪
সুইডেন ১৯৫৮
চিলি ১৯৬২ ফিফার সদস্য ছিল না ফিফার সদস্য ছিল না
ইংল্যান্ড ১৯৬৬
মেক্সিকো ১৯৭০
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮
স্পেন ১৯৮২
মেক্সিকো ১৯৮৬
ইতালি ১৯৯০
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪
ফ্রান্স ১৯৯৮
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ উত্তীর্ণ হয়নি ২২
জার্মানি ২০০৬ ১৩
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০
ব্রাজিল ২০১৪
রাশিয়া ২০১৮
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট ০/২২ ১৪ ১০ ১২ ৪৬

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "New captain Tsedenbal delivers for Mongolia"। The Asian Football Confederation। ৭ জুন ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ জুন ২০১৯ 
  2. Földesi, László। "International Goals of Mongolia"। RSSSF। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১১ 
  3. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ১৯ নভেম্বর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৯ নভেম্বর ২০২১ 
  4. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ২৬ নভেম্বর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ২৬ নভেম্বর ২০২১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]